1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

এক নতুন ধারণার নাম ‘খাদ্য সমাজ’

খাদ্য সমাজ৷ একটি নতুন ধারণা৷ আর এই ধারণার জন্মদাতার নাম কার্লো পেত্রিনি৷ সম্প্রতি তিনি কথা বলেছেন ডয়চে ভেলের সঙ্গে৷ বলেছেন, ক্ষুধা মুক্ত বিশ্ব গড়তে পারে কেবল কৃষকরাই৷ অথচ কৃষিশিল্পকে দেখা হচ্ছে অবজ্ঞার চোখে৷

default

‘স্লো ফুড’-এর প্রতিষ্ঠাতা কার্লো পেত্রিনি

‘স্লো ফুড' এবং ‘তেরা মাদ্রে আন্দোলন'-এর জন্মদাতা পেত্রিনি চাইছেন এমন একটি সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে, যার নাম হবে খাদ্য সমাজ৷ যেখানে নিবিড় সম্পর্ক থাকবে যারা খাদ্য উৎপাদন করছেন এবং যারা কিনছেন – তাদের মধ্যে৷ এ নিয়ে তিনি একটি বই লিখেছেন, যার নামও দেওয়া হয়েছে ‘তেরা মাদ্রে'৷ যেখানে তিনি খাদ্যকে আনন্দ, গাম্ভীর্য এবং সম্মান – এই তিনটি বিষয়ের সঙ্গে এক করেছেন৷ তাঁর এই তত্ত্বের সমালোচনা যে নেই, তা নয়৷ সমালোচকরা এই তিন বিষয়কে এক সঙ্গে মিশ্রণ করতে চান না বলেই পেত্রিনির মত, সমালোচকরা না বুঝেই কথা বলছেন৷ খাবার গ্রহণ করে সেখান থেকে আনন্দ লাভ করাটা কেবল ধনীদের কাজ – সমালোচকরা যে এই কথা বলছে, এরও কোন অর্থ হয় না৷ খাবার গ্রহণ কিংবা এ থেকে আনন্দ লাভটা ধনীদের একার সম্পত্তি নয়৷ এটা সকলের জন্যই প্রযোজ্য৷ তিনি বলেন, দরিদ্র দেশে, যেখানে আমাদের আন্দোলন অনেক সম্প্রসারিত, যেখানে রয়েছে পুষ্টির অভাব, রয়েছে ক্ষুধা, সেখানেও কিন্তু মানুষ খুবই সহজ খাবার প্রস্তুত করে নিজেরা মিলেমিশে খাচ্ছে, সকলের সঙ্গে খাবারের আনন্দটা ভাগ করে নিচ্ছে৷

Buchcover Carlo Petrini: Terra Madre

পেত্রিনির বই ‘তেরা মাদ্রে’

তিনি তেরা মাদ্রে আন্দোলনের কথা উল্লেখ করে জানালেন, ছোট ছোট কৃষি খামার করে তাতে উৎপাদন করে এবং প্রাণবৈচিত্র্যকে সঙ্গে নিয়ে পরিবেশকে রক্ষা করা যায়৷ এক কথায় খাদ্য উৎপাদন বৃদ্ধি করা সম্ভব৷ বিশ্ব থেকে ক্ষুধা দূর করতে কাজ করে যাচ্ছে বিশ্ব খাদ্য কর্মসূচিসহ অনেক বড় বড় সংগঠন৷ সেখানে তাঁর এই আন্দোলন কতোটা ফল বয়ে আনতে পারবে? এমন প্রশ্নের জবাবে কার্লো পেত্রিনি বলছেন, ‘‘আমার মনে হয়, বড় এবং ছোট – উভয় চেষ্টাই এ ক্ষেত্রে সফলতা আনতে পারে৷ যদিও বড় কৃষিশিল্প সংশ্লিষ্টরা এ ক্ষেত্রে ক্ষুদ্র কৃষকদের দিকে তেমন নজর দিচ্ছে না৷ তারপরও ইতিমধ্যেই দেখা গেছে সেই কৃষকরা এই সমস্যা সমাধানে বেশ সফল৷'' তিনি বলেন, ‘‘ক্ষুদ্র কৃষকদের বাঁচানোর কথা সকলে বলছে, কিন্তু সেগুলো তারা বলার জন্যই বলছে, কাজের কাজ কিছুই করছে না৷''

তিনি জানিয়েছেন, তাঁর এই আন্দোলনে প্রচুর তরুণ অংশ নিচ্ছেন৷ আর এ কাজে তাঁরা সফল হবেনই৷

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন