1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

এক্স-রে থেকে সিটিস্ক্যান – চিকিৎসার বড় ভরসা

শরীরে হাড় ভেঙেছে কিনা, জানতে এক্স-রে বড় ভরসা৷ সিটিস্ক্যানও আজকাল সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে৷ অথচ এককালে এই প্রযুক্তি মানুষের ধরাছোঁয়ার বাইরে ছিল৷ ফিরে তাকানো যাক এক্স-রে প্রযুক্তির বিবর্তনের দিকে৷

হাড় ভেঙে গেছে? অথবা কেউ কিছু গিলে ফেলেছ? নাকি টিউমার হয়েছে? ডাক্তাররা এক্স রে, আলট্রাসাউন্ড, সিটি অথবা এমআরআই স্ক্যানের মতো নানা ‘ইমেজিং' প্রক্রিয়ার মাধ্যমে তা পরীক্ষা করতে পারেন৷

বহুকাল ধরে শুধু মানুষের লাশের উপর চিকিৎসা সংক্রান্ত পরীক্ষা করা যেত৷ জীবন্ত মানুষের ক্ষেত্রে ডাক্তাররা আন্দাজের ভিত্তিতে রোগ নির্ণয় করতেন৷

১৮৯৫ সালে জার্মান পদার্থবিজ্ঞানী ভিলহেল্ম কনরাড ব়্যোন্টগেন আবিষ্কার করেন, যে কিছু যন্ত্র অদৃশ্য রশ্মি বিকিরণ করে – অনেকটা পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া হিসেবে৷ এই রশ্মির বিস্ময়কর গুণ হলো সহজেই তা নানা বস্তুর মধ্যে প্রবেশ করতে পারে, আলো যা পারে না৷

এর পরেই ব়্যোন্টগেন তাঁর স্ত্রীর হাতের বিখ্যাত ছবিটি তোলেন৷ তাতে হাড় ও আংটি পরিষ্কার দেখা যাচ্ছে৷ এক্স রে-র আবিষ্কারকে সত্যি চাঞ্চল্যকর ঘটনা হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছিল৷ ব়্যোন্টগেন নোবেল পুরস্কার পেলেন৷ তাঁর দেখানো পথ শল্যচিকিৎসার ক্ষেত্রে বিপ্লব এনে দিল৷

এই প্রথম ডাক্তাররা মানুষের শরীরে ছুরি না চালিয়েও তার ভিতরের অংশ দেখতে পেলেন৷ বিষয়টি আসলে খুবই সহজ৷ এক্স-বিকিরণের ফলে ফটোগ্রাফির প্লেট কালো হয়ে যায়৷ এক্স-রে ও ফটোগ্রাফিক প্লেটের মাঝে কিছু রাখলে তা রশ্মিকে দুর্বল করে দেয়৷ ঠিক যেভাবে কাপড় সূর্যের রশ্মিকে দুর্বল করে তোলে৷ সে কারণে কোনো এক্স-রে ছবিতে হাড় পেশির তুলনায় হালকা দেখায়৷

বহু বছর ধরে গবেষক ও ডাক্তাররা কোনো সতর্কতা ছাড়াই ঢালাওভাবে এক্স-রে ছবি তুলে গেছেন৷ অথচ এক্স রেডিয়েশন অত্যন্ত শক্তিশালী হওয়ায় তা শরীরের কোষের ক্ষতি করতে পারে – এমনকি ক্যানসারেরও কারণ হতে পারে৷ সে কারণে ডাক্তাররা আজকাল কয়েক দশক আগের তুলনায় বিকরণের ভগ্নাংশ ব্যবহার করেন৷

এক্স রে প্রযুক্তিকে আরও এক ধাপ এগিয়ে নিয়ে গিয়ে কম্পিউটার টোমোগ্রাফি সৃষ্টি করা হয়েছে৷ এর আওতায় পরীক্ষার জন্য শরীরের অজস্র এক্স-রে ছবি তোলা হয়৷ তারপর কম্পিউটার তা একত্র করে এক থ্রিডি সংস্করণ সৃষ্টি করে৷

কিন্তু হাড় ভাঙলে আজও সেই সাধারণ এক্স-রে ছবির উপরই ভরসা করা হয়৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়