1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

একাধিক জার্মান মন্ত্রণালয়ে আড়ি পেতেছে এনএসএ

উইকিলিক্স-এর ফাঁস করা নতুন তথ্য অনুযায়ী মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা সংস্থা যে শুধু জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের টেলিফোনের উপর নজর রেখেছে, এমন নয়; অর্থ, অর্থনীতি এবং কৃষি মন্ত্রণালয়েও আড়ি পেতেছে এনএসএ৷

মাত্র মাস খানেক আগে সরকারি কৌঁসুলি ম্যার্কেলের ফোনে আড়ি পাতা নিয়ে তদন্ত বাতিল করেন এই বলে যে, কোনো নতুন সাক্ষ্যপ্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে না৷ এবার জার্মানির স্যুডডয়েচে সাইটুং দৈনিক ২০১০ সাল থেকে ২০১২ সাল অবধি বিভিন্ন জার্মান মন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের উপর এনএসএ-র আড়ি পাতার খবর, ৬৯টি টেলিফোন নম্বরের তালিকা এবং অন্তত দু'টি ইন্টারসেপ্ট'-এর অনুলিপি প্রকাশ করার পর, সবুজ দলের রাজনীতিক ক্রিস্টিয়ান স্ট্র্যোবেলে দাবি করেছেন যে, সরকারি কৌঁসুলির পুনরায় তদন্ত চালু করা উচিত৷

প্রসঙ্গত, এই স্ট্র্যোবেলেই ২০১৩ সালের অক্টোবর মাসের শেষে মস্কোয় গিয়ে ‘হুইসলব্লোয়ার' এডোয়ার্ড স্নোডেন-এর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন – এমনকি দাবি করেন যে, স্নোডেনকে জার্মানিতে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য জার্মান সরকারের তাঁকে নিরাপত্তার গ্যারান্টি দেওয়া উচিত৷ অর্থাৎ স্যুডডয়েচে সাইটুং এবং সরকারি এআরডি টেলিভিশন সংস্থার ফাঁস করা এই সর্বাধুনিক কেলেঙ্কারি জার্মান অভ্যন্তরীণ রাজনীতিতে আবার ঝড় তোলার ক্ষমতা রাখে৷

প্রথমে ম্যার্কেলের মোবাইলের উপর আড়ি পাতার অভিযোগ; তারপর ইউরোপের অপরাপর দেশে – যেমন ফ্রান্সে – এনএসএ-র আড়ি পাতায় জার্মান গুপ্তচর সংস্থা বিএনডি-র সহযোগিতার অভিযোগ; সবশেষে ওলঁদ সহ একাধিক ফরাসি প্রেসিডেন্টের উপর এনএসএ-র নজরদারির অভিযোগ৷ সব সত্ত্বেও বার্লিন কিংবা ওয়াশিংটন, কোনো পক্ষই জার্মান-মার্কিন মৈত্রীসুলভ সম্পর্কে আঁচড় পর্যন্ত পড়তে দেয়নি৷ কিন্তু এবার যে ধরনের ব্যাপক অর্থনৈতিক গুপ্তচরবৃত্তির আভাস দেওয়া হয়েছে, তা-তে সংসদ, সরকার এবং জার্মান জনমত, তিনটি ক্ষেত্রেই কোনো না কোনো প্রতিক্রিয়া প্রত্যাশা হবে – তা সে প্রীতিকর অথবা সুবিধাজনক হোক আর না-ই হোক৷

বিভিন্ন মন্ত্রী ও মন্ত্রণালয়ের ৬৯টি সরকারি টেলিফোনের উপর আড়ি পেতেছে এনএসএ৷ তার মধ্যে ছিলেন বর্তমান অর্থনীতি মন্ত্রী ও ভাইস চ্যান্সেলর জিগমার গাব্রিয়েল – যদিও তিনি তখন বিরোধীপক্ষে ছিলেন; সাবেক অর্থমন্ত্রী অস্কার লাফন্টেইন অথবা হালের অর্থমন্ত্রী ভল্ফগাং শয়েবলেকেও পাওয়া যাবে সেই তালিকায়৷ তালিকার কিছু কিছু টেলিফোন নম্বর নাকি এখনও সচল!

ব্যাপারটা আরো সমসাময়িকতা পাচ্ছে এই কারণে যে, এনএসএ দৃশ্যত সে আমলেও গ্রিসের ঋণ সংকটে জার্মান সরকারের মনোভাব জানতে আগ্রহী ছিল৷ একটি আড়ি পাতা টেলিফোনালাপে ম্যার্কেল গ্রিক সংকট সম্পর্কে তাঁর নিজের ধ্যানধারণা ব্যক্ত করেছেন, এক্ষেত্রে অর্থমন্ত্রী ভল্ফগাং শয়েবলের সঙ্গে তাঁর মতানৈক্যের কথাও উল্লেখ করেছেন৷

Europarat Video-Schalte mit Edward Snowden

এডোয়ার্ড স্নোডেন

অপরদিকে ম্যার্কেল ও তাঁর সহযোগীর কথোপকথনে ফরাসি নেতৃবর্গ অথবা তথাকথিত ‘ট্রোইকা', কিংবা ইউরোপীয় ইউনিয়নের অন্যান্য বড় প্রতিষ্ঠানের প্রধানরা গ্রিক সংকট সম্পর্কে কি ভাবছেন অথবা বলেছেন, সে'কথা জানতেও দৃশ্যত আগ্রহী ছিল এনএসএ৷

স্যুডডয়েচে সাইটুং-এর রিপোর্ট অনুযায়ী একটি জার্মান ইন্টারসেপ্ট (আড়ি পাতা বার্তালাপ) এসেছে ব্রিটিশ গুপ্তচর সংস্থা জিসিএইচকিউ-এর কাছ থেকে৷ ‘টপ সিক্রেট'-এর চেয়ে দু'পর্যায় বেশি গোপনীয় এই তথ্য নাকি পাঠানো হয় মার্কিন নেতৃত্বাধীন ‘ফাইভ আইজ' স্পাইং জোটের অন্যান্য সদস্যদের কাছে৷ ঐ ‘পঞ্চচক্ষু গুপ্তচর জোটে' আছে, যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ক্যানাডা, অস্ট্রেলিয়া ও নিউজিল্যান্ড৷

এসি/ডিজি (ডিপিএ, এপি, এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন