1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

একবার মোটা হওয়া মানে চিরকালই মোটা

খুব বেশি মোটা মানুষরা যতই চেষ্টা করুন না কেন, ওজন তাঁরা কমাতে পারেন না৷ একথা মনে করেন কিছু সংখ্যক গবেষক৷ আর তাঁদের সঙ্গে একমত হয়েছে স্থূলকায় বেশ কিছু মানুষ যাঁরা কিনা মেদ কমানোর নানা রকম চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়েছেন৷

default

ফাইল ফটো

জার্মানির ফার্মেসি মহল থেকে নিয়মিত বের হওয়া সাময়িকীর সাম্প্রতিক সংখ্যাতে লেখা হয়েছে, মানুষ বেশি খেলে বা খাবার উপভোগ করলেই মোটা হয় না৷

অন্যদিকে যিনি সব সময়েই কম খান তাঁর ওজন কিন্তু সব সময় কমে না৷ শরীর তখন কম খাওয়াতেই অভ্যস্ত হয়ে যায় ৷ সে মানুষটিই যখন আবার বেশি খেতে শুরু করেন তখন সাথে সাথেই আবার ওজন বেড়ে যায় এমনকি আগের চেয়েও বেশি হতে পারে ওজন৷ বলা হয় মাত্রাধিক ওজন কমানোর জন্য কঠোর ডায়েট না করে বরং একটু সময় নিয়ে দিনে তিনবার খাওয়া ভালো৷ বিশেষ করে টেলিভিশন দেখার সময় এটা সেটা সারাক্ষণ খাওয়া ভাল নয়৷ অনিয়মিতভাবে যখন তখন চিপস, বাদাম বা এধরণের স্নেহপদার্থযুক্ত খাবারই বাড়তি ওজনের প্রধান কারণ বলে মনে করেন গবেষকরা৷

বৃটিশ গবেষকরা বলেছেন, মানুষের শরীরে যা যা প্রয়োজন সে খাবার যদি পরিমাণে সামান্য বেশিও হয় তাতে অসুবিধা তো নেইই বরং পুষ্টিকর খাবার খেলে শরীর মন দুটোই ভালো থাকে৷

কঠোরভাবে বেশিদিন ডায়েটিং করা অনেকের পক্ষেই সম্ভব নয়৷ তাই সময় কিছুটা বেশি লাগলেও নিজের মতো করে ডায়েটিং করা উচিৎ, যে পন্থায় একসময় ওজন কমানোর লক্ষ্যে পৌঁছনোও সম্ভব৷

মোটা মানুষদের সবচেয়ে আগে যা করা উচিৎ বলে অনেক বিশেষজ্ঞ মনে করেন তা হচ্ছে তাদের খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তন করা৷ তিন বেলা বেশি পরিমাণ খাবার না খেয়ে তিনবারের খাবারটাকেই পাঁচভাগে ভাগ করে খাওয়া উচিৎ৷ এতে শরীর কখনো ভারী লাগবে না, হালকা শরীরে চলাফেরা করতে সুবিধা হবে৷ ওজন কমানোর জন্য শুধু খাওয়ার অভ্যাস পরিবর্তনই যথেষ্ট নয়, পাশাপাশি ব্যায়াম এবং যথেষ্ট হাঁটাচলা করাও প্রয়োজন৷ মোটা নন এমন একজন পূর্ণ বয়স্ক মানুষের দিনে দুই থেকে তিন কিলোমিটার হাঁটা উচিৎ বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করেন৷

যে পথটুকু ইচ্ছে করলেই হেঁটে যাওয়া যায় সেখানে কোন যানবাহনের সাহায্য না নিয়ে হেঁটেই যাওয়া উচিৎ৷ সময়ের তাড়া না থাকলে লিফ্ট ব্যবহার না করে সিঁড়ি দিয়ে ওঠা নামা করা ভালো৷ সোজা কথায় বলা যায় শরীরকে যতটা সম্ভব সচল রাখতে হবে৷ অতিরিক্ত ওজন অনেকের জন্যই ঝুঁকি স্বরূপ৷ বেশি ওজন শুধু সৌন্দর্যেরই হানি ঘটায় না, তা নানা অসুখ বিসুখের কারণও হয়ে দাড়ায়৷ উচ্চ রক্তচাপ, হৃদরোগ বা ডায়াবেটিসে আক্রান্ত মোটা রোগীরা যখন ডাক্তারের কাছে যান তখন ডাক্তাররা প্রথমেই তাঁদের ওজন কমানোর পরামর্শ দিয়ে থাকেন৷

আজকাল ওজন কমানো বা শরীর ঠিক রাখার জন্য চারিদিকে গড়ে উঠেছে আকর্ষণীয় বেশ কিছু ফিটনেস সেন্টার যা অনেকের জন্যই বেশ ব্যয়বহুল৷ অনেকে সেখানে ভর্তি হয়ে কিছুদিন পরই তা ছেড়ে দেন সময়ের অভাব বা যাওয়া আসার বিড়ম্বনা ইত্যাদি কারণে৷ কারো কারো জন্য এসব ফিটনেস সেন্টার কাজের, কিন্তু সবার জন্য নয়৷ কারণ সেখানে বিভিন্ন যন্ত্রের সঠিক ব্যবহার না জানায় বা ভুল ব্যবহারে উপকারের চেয়ে ক্ষতির সম্ভাবনাও কম নয়৷

সব বয়সের মানুষই মোটা হয়ে যেতে পারেন যে কোন সময়ে৷ তবে কিশোর-কিশোরীদের মধ্যে মোটা হওয়ার প্রবণতা আজকাল আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে৷ এক সমীক্ষায় জানা গেছে জার্মানিতে স্কুল ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে শতকরা ১০ থেকে ২০জনই মোটা৷ এর প্রধান কারণ হিসেবে বলা হয়ে থাকে কম্পিউটার আর ফাস্ট ফুড৷ এসব ছেলেমেয়েদের আগে থেকেই সচেতন হয়ে যথেষ্ট খেলাধুলা করার পরামর্শ দেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা৷ তাহলে অতিরিক্ত মোটা হওয়ার আশঙ্কা অনেকটাই কমে যেতে পারে৷ কমবয়সি ছেলেমেয়েরা অনেকে অতিরিক্ত মোটা হওয়ার কারণে বিষন্নতায় ভোগে৷

আজকের এই যান্ত্রিক জীবনে বড়রাও ফাস্ট ফুড বা রেডিমেড খাবারের দিকে ঝুঁকছেন৷ রেডিমেড খাবারের সাথে যথেষ্ট পরিমাণে ফলমূল ও শাকসবজি খাওয়া প্রয়োজন বলে জানান বিশেষজ্ঞরা৷

সুস্থ থাকার জন্য চাই সব কিছুতেই পরিমিতি বোধ: খাওয়া থেকে শুরু করে পুরো জীবনযাত্রায়৷ আর তখন মোটা হওয়ার সম্ভাবনাও থাকবে না আর ওজন কমানোর প্রশ্নও আসবে না৷

প্রতিবেদক : নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা : আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়