1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

একদিনে পাঁচ নেতার জামিন, মাহবুবের রিমান্ড বাতিল

বিএনপির পাঁচ নেতাকে মঙ্গলবার জামিন দিয়েছে হাইকোর্ট৷ তবে দলের চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা খন্দকার মাহবুব হোসেনের রিমান্ড আদাল অবৈধ ঘোষণা করা হয়েছে৷ বিএনপি বলেছে, আটক নেতাদের মুক্ত করতে তারা আইনি লড়াই চালিয়ে যাবে৷

হাইকোর্ট থেকে বিএনপির যে পাঁচ নেতা জামিন পেয়েছেন তাঁরা হলেন, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমেদ, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া ও এম কে আনোয়ার, বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আব্দুল আউয়াল মিন্টু এবং বিশেষ সহকারি শিমুল বিশ্বাস৷ এঁদের পাঁচজনকেই ৭ই নভেম্বর গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ এরপর ককটেল বিস্ফোরণ এবং গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় গত বছরের ২৪শে সেপ্টেম্বর ও ৫ই নভেম্বর মতিঝিল থানায় দায়ের করা দুটি মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়৷

মঙ্গলবার হাইকোর্টের বিচারপতি নিজামুল হক ও মো. জাহাঙ্গির হোসেনের বেঞ্চে বিএনপির এই পাঁচ নেতার জামিনের আবেদন জানান হয়৷ ব্যারিস্টার রফিকুল হকসহ পাঁচজন আইনজীবী এই জামিনের আবেদন জানিয়ে শুনানিতে অংশ নেন৷ এছাড়া, রাষ্ট্রপক্ষে শুনানি করেন অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এবং ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল অমিত তালুকদার৷ আদালত উভয় পক্ষের শুনানি শেষে দুটি মামলাতেই এই পাঁচজন নেতার জামিন মঞ্জুর করেন৷

বিএনপি নেতাদের আইনজীবীদের একজন এহসানুর রহমান জানান, আব্দুল আউয়াল মিন্টুর বিরুদ্ধে মোট পাঁচটি মামলার তিনটিতে তিনি নিম্ন আদালত থেকে জামিন পেয়েছেন৷ আর এবার, অন্য দুটি মামলায় হাইকোর্ট থেকে জামিন পেলেন৷ তাই তাঁর মুক্তিতে আর কোনো বাধা নেই৷ এদিকে অন্য চারজন নেতার বিরুদ্ধে আরো মামলা থাকায় তাঁরা আপাতত মুক্তি পাচ্ছেন না৷ এহসানুর রহমান জানান, নেতাদের মুক্ত করতে আইনি লড়াই অব্যাহত থাকবে৷

Bangladesch Dhaka Bus Feuer brennender Bus

বিএনপির পাঁচ নেতাকে ককটেল বিস্ফোরণ ও গাড়ি ভাঙচুরের মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়েছিল



ওদিকে বিএনপির চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা এবং বার কাউন্সিলের ভাইস চেয়ারম্যান খন্দকার মাহবুব হোসেনকে রিমান্ডে নেয়ার আদেশ বেআইনি বলে ঘোষণা করেছে হাইকোর্ট৷ গত ৭ই জানুয়ারি তাঁকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ৷ পুলিশের কাজে বাধা এবং ভাঙচুর ও বোমা হামলায় উস্কানি দেয়ার অভিযোগে ৫ই জানুয়ারি রমনা থানায় দায়ের করা একটি মামলায় তাঁকে গ্রেপ্তার দেখানো হয়৷ ৮ই জানুয়ারি এই মামলায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নিম্ন আদালত তাঁর দু'দিনের পুলিশ রিমান্ড মঞ্জুর করেন৷ পুলিশ রিমান্ডের বিরুদ্ধে হাইকোর্টের বিচারপতি নাঈমা হায়দার এবং বিচাপতি জাফর হায়দারের বেঞ্চে রিট আবেদন করা হয় ৯ই জানুয়ারি৷ আদালত প্রথমে রিমান্ড স্থগিত ও রুল জারি করে৷ পরে মঙ্গলবার চূড়ান্ত শুনানি শেষে খন্দকার মাহবুবের রিমান্ড বেআইনি ও বাতিল ঘোষণা করেন৷ এর ফলে তাঁকে আর রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করতে পারবে না পুলিশ৷

অন্যদিকে বিএনপির আরেক নেতা হান্নান শাহর হেফাজতকাণ্ড মামলায় জামিন আবেদন ‘না মঞ্জুর' করেছে জেলা ও দায়রা জজ আদালত৷ বিএনপির শীর্ষ থেকে নানা পর্যায়ের অন্তত ৫০ জন নেতা এখন কারাগারে আছেন৷ তাঁদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে একাধিক মামলা আছে৷ বিএনপির চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা আহমেদ আজম খান জানান, সরকার মিথ্যা এবং হয়রানিমূলক মামলায় নেতাদের আটক করেছে৷ তাই তাঁদের মুক্ত করতে আইনি লড়াই অব্যাহত থাকবে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন