1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

এইডস সম্পর্কে গীর্জার প্রচারণা

কেন এরকম রেডিও অনুষ্ঠানগুলোতে আঘাত হানছে গোটা পৃথিবীর রেডিও সেন্টারগুলো ? ডয়চে ভেলে যেমন তার শর্টওয়েভ অনুষ্ঠান বন্ধ করেছে৷

default

আবার বিবিসি’তেও বেশ কিছু বিষয় বন্ধ করা হয়েছে৷ ডয়চে ভেলের ওয়েবসাইট দেখে অবাক হলাম৷ আমরা শ্রোতারা কত কষ্ট পাচ্ছি সেটা কি কর্তৃপক্ষ একবার ভাবছে ? আমাদের অন্তরের বন্ধু রেডিও, আর সেটা আমাদের কাছ থেকে কেড়ে নিচ্ছে অনেক দেশ৷ শ্রোতাদের কি আর তারা চাইছে না ? কাঞ্চন কুমার চ্যাটার্জী, শাহানগর, মুর্শিদাবাদ৷

সন্ধ্যায় বিবিসি’র পরিক্রমা অনুষ্ঠান শুনছিলাম৷ সংবাদ শিরোনামে জানলাম বিবিসি’র ৫টি ভাষায় সম্প্রচার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাচ্ছে৷ পরে বিস্তারিত জানলাম বিবিসি বাংলা বিভাগের প্রধান সাবির মোস্তাফার কাছ থেকে৷ আরো জানলাম শিঘ্রই বন্ধ হয়ে যাচ্ছে বিবিসি’র হিন্দি শর্টওয়েভ সম্প্রচার! এবং এর পর হয়ত বন্ধ হয়ে যাবে বিবিসি বাংলা শর্টওয়েভ সম্প্রচারও! সংবাদটি শর্টওয়েভ শ্রোতাদের জন্য অনেক দুঃখজনক হলেও, বর্তমান মাল্টিমিডিয়া প্রযুক্তির হাওয়ায় এর বিকল্প নেই৷ শহরাঞ্চলের শ্রোতা হিসেবে আমরা এই সিদ্ধান্তের কিছুটা সমর্থন করি এবং সেই সাথে গ্রামের শ্রোতাদের পক্ষ থেকে বিরোধীতা করি৷ বিবিসি’র অনুষ্ঠান শুনতে শুনতে ভাবছিলাম এবং বিশ্বাস করছিলাম এ সম্পর্কে ডয়চে ভেলের কাছ থেকেও সংবাদ পাবো৷ হলোও তাই, বিবিসি বাংলা অনুষ্ঠান শেষ হওয়ার সাথে সাথে শুরু হয়ে গেলো ডয়চে ভেলের বাংলা অনুষ্ঠান এবং সেখানেও জানলাম বিবিসি’র ৫টি ভাষায় সম্প্রচার কার্যক্রম বন্ধ হয়ে যাচ্ছে এবং ওয়েবসাইটেও দেখলাম প্রতিবেদনটি পোস্ট করা হয়েছে৷

প্রতিবেদনটি ছিলো এরকম, ‘বিবিসি’র ৫টি অনুষ্ঠান বন্ধ হচ্ছে, চাকরি যাবে ৬৫০ কর্মীর৷ অর্থাভাবের কোপ এবার বিবিসি’র ওয়ার্ল্ড সার্ভিসে৷ এক আধটা নয়, ৬৫০ কর্মী চাকরি হারাবেন এক কোপে৷ বন্ধ হয়ে যাবে ৫টি বেতার অনুষ্ঠান৷ সরকারের ঘরে অর্থাভাব, তাই এই সিদ্ধান্ত৷ ব্রিটেনের ডেভিড ক্যামেরনের সরকারকে নিশ্চয়ই সাধুবাদ দেবেন না আলবেনিয়া, ম্যাসিডোনিয়া, সার্বিয়া কিংবা পর্তুগালের মানুষ৷ ক্যারিবিয় দ্বীপপুঞ্জও তাতে সামিল৷ কারণ, সরকারের ঘরে টাকার সংস্থান নেই অতএব বহুদিন ধরে চলে আসা বিবিসি’র এইসব অনুষ্ঠানকে এক কোপে কেটে ফেলার সিদ্ধান্ত ঘোষিত হল৷ সেইসঙ্গে চাকরি হারাবেন ৬৫০ জন কর্মী৷ আলবেনিয়া, ম্যাসিডোনিয়া, সার্বিয়া৷ পূর্ব ইউরোপের এই তিনটি দেশের অনুষ্ঠান বন্ধ করে এবং পর্তুগাল আর ক্যারিবিয় দ্বীপপুঞ্জে জন্য এতদিন প্রচারিত ইংরেজি অনুষ্ঠান বাতিল করে একটু আধটু নয়, মোট ৪৬ মিলিয়ন পাউন্ড বছরে বাঁচাবে বিবিসি৷ সেই অর্থ সরকারের হাতে থাকবে৷ কিন্তু, এভাবে তো কোন সমাধান হতে পারেনা৷ অতএব বিবিসি’র নিজস্ব সিদ্ধান্ত, তাদের খরচ বাঁচাতে হবে৷ সে খরচ যেভাবেই বাঁচানো যাক, তাতেই লাভ৷ লাভ হলেও ইউনিয়ন তাতে স্বভাবতই নাখোশ৷ একসঙ্গে ৬৫০ জনের চাকরি নট হওয়ার এই সিদ্ধান্তকে ‘ভয়াবহ' বলে আখ্যা দিয়েছে ইউনিয়ন৷

তবে এখনই এই ৬৫০ জনের চাকরি চলে যাচ্ছে না৷ আগামী দুই বছর ধরে চলবে এই প্রকল্প, যার নাম আসলে ঝাঁপ বন্ধের সূত্রপাত৷ বলা হয়েছে, আগামী এক বছরের মধ্যে তিন ভাগের দুইভাগ কর্মী চাকরি খোয়াবেন এই বিভাগগুলিতে৷ বাকিদের পালা আসবে তার পরের বছরে৷ কিন্তু এখানেই সব থেমে যাচ্ছে না৷ বিবিসি’র মোট ৩২টি ভাষার বেতার পরিষেবার মধ্যে আরও কয়েকটির ওপরেও কোপ পড়তে চলেছে অদূর ভবিষ্যতে৷ জানিয়েছে বিবিসি ওয়ার্ল্ড সার্ভিসের একটি সূত্র৷ ওই সূত্রের বক্তব্য, সরকারের কাছ থেকে যে সহায়তা বিবিসি পাচ্ছিল, তার ১৬ শতাংশ অর্থ কম মিলবে এখন৷ সুতরাং সবদিক থেকে ব্যয়সংকোচ না করলে চালানো অসম্ভব বিবিসি’র পক্ষেও৷ সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতা গণতন্ত্রের প্রথম গুণ৷ কিন্তু সাংবাদিকদের জীবিত থাকার মত অর্থের সংস্থান দেখা যাচ্ছে এই মুহূর্তের সবচেয়ে বড় সমস্যা৷ বিশেষ করে সরকারের হাত থেকে৷

বিবিসি’র পাশাপাশি ডয়চে ভেলেও দ্রুত তরতাজা সংবাদটি শ্রোতাদের কাছে পৌঁছে দেওয়ায় আমরা ডয়চে ভেলের কাছে কৃতজ্ঞ এবং বাংলা বিভাগের কর্মীদের অভিনন্দন জানাচ্ছি আমাদেরকে তাজা তাজা খবর দিয়ে আপডেট রাখার জন্য৷ আমরা ডয়চে ভেলের কাছ থেকে সবসময় এমনটাই আশা করি৷ আরো একটি ফিচারে শুনলাম এবং ওয়েবসাইটেও দেখলাম, এসে গেল নেটে দেওয়া ছবি মুছে দেওয়ার জার্মান সফ্টওয়্যার৷ ইন্টারনেটে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ছবি মুছতে পারবে এইরকম একটি প্রযুক্তির উন্নয়ন ঘটাচ্ছে একটি জার্মান প্রতিষ্ঠান৷ ফেসবুক, মাইস্পেস অথবা ফ্লিকারের মতো ওয়েবসাইটে একটি নির্দিষ্ট সময় পরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে আপলোড করা ছবি মুছে যাবে৷ সফ্টওয়্যারটি নিঃসন্দেহে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের উপকারে আসবে৷ এছাড়া বিশেষ করে আমাদেরও কখনো কখনো কাজে লাগবে বলে মনে করি৷ ধন্যবাদ ডয়চে ভেলের বাংলা বিভাগের কর্মীদের যাঁরা শ্রোতাদের জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন৷   

শুভেচ্ছান্তে দিদারুল ইকবাল, শহীদুল কায়সার লিমন, তাছলিমা আক্তার লিমা, লিয়াকত আলী, হাজেরা বেগম, রফিকুল ইসলাম, আয়েশা বেগম, শাওন খান, আসিফুল ইসলাম রাতুল, আনোয়ারা বেগম, সাহাদাত হোসেন, তাছলিমা বেগম, আব্দুল রাজ্জাক, মুসলিমা বেগম, জোবেদা রিনা, উম্মে সালমা মাছুমা, ডয়চে ভেলে এফএম লিসেনার্স অ্যাসোসিয়েশন, বাড়ি- ৩৩৬, সেকশন- ৭, রোড- ২, মিরপুর, ঢাকা-১২১৬, বাংলাদেশ৷

আপনাদের অনুষ্ঠান আমার খুবই ভালো লাগে৷ কিন্তু আমার মনটা খুবই খারাপ কারণ আমি এসএমএস করলেও আমার নাম প্রচার করা হয়না অনুষ্ঠানে৷ মোঃ আখতারুল ইসলাম স্বাধীন, কচুকাটা, বাংলাদেশ৷

ডয়চে ভেলের ওয়েবসাইটের কথা এতো শুনেও দেখতে পারছিনা৷ এতে আমার এতো কষ্ট হচ্ছে যে মুখে তা প্রকাশ করতে পারছিনা৷ আমি অনেক মোবাইলেও ওয়েবসাইট দেখার চেষ্টা করে লাভ হয়নি৷ তাছাড়া আমার গ্রামে বিদ্যুৎ নেই৷ নাজমুল, গাইবান্ধা৷

সুপ্রিয় বন্ধুরা, ২৪ জানুয়ারি রাতে মিডিয়ামওয়েভে নির্বিঘ্নে ভারতের মানবাধিকারবাদী চিকিৎসক বিনায়ক সেন, টিউনিশিয়ার পরিস্হিতি যক্ষ্মা প্রতিরোধের টিকা আবিস্কার, ভারতীয় মার্গ সংগীতের রত্ন প্রয়াত পন্ডিত ভীমসেন যোশীর কন্ঠে গান এবং ফিচারপর্ব হেল্থ লাইনে উগান্ডার গীর্জাগুলোতে এইডস রোগের অ্যান্টি রেট্টো ভাইরাল ড্রাগ সেবনের বিরোধী প্রচারাভিযান সম্পর্কে এবং বিজ্ঞান ডটকমে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে কুকুরকে বিদ্যাশিক্ষা দান নিয়ে চমৎকার প্রতিবেদন আমাদের ক্লাবের সবার খুব ভালো লেগেছে৷ মোখলেসুর রহমান, কুষ্টিয়া৷

এইডস সম্পর্কে গীর্জার নেতিবাচক প্রচারণা নিয়ে এক অসাধারণ প্রতিবেদন শুনলাম৷ অভিজ্ঞতায় দেখেছি, আমাদের দেশেও পোলিও প্রতিরোধ কর্মসূচি ব্যাহত হচ্ছে ধর্মীয় নেতিবাচক প্রচারের জন্য৷ চৈতালী ও ডা. সিদ্ধার্থ সরকার, জিয়াগঞ্জ, মুর্শিদাবাদ৷

আমি আপনাদের রেডিও অনুষ্ঠানের নিয়মিত শ্রোতা৷ প্রতিদিন অনুষ্ঠান শুনি৷ সত্যি কথা বলতে কি আপনাদের উপস্থাপনা আমার খুব ভালো লাগে৷ এই অনুষ্ঠান থেকে আমি অনেক জ্ঞান অর্জন করি৷ আপনাদের প্রতিটি পরিবেশনা এবং সংবাদ পর্যলোচনা খুব ভালো লাগে৷ আপনাদের কাছে আমি কৃতজ্ঞ৷ মোঃ শরিফুল ইসলাম, ভাঙ্গুরা, পাবনা৷

আমি নিয়মিতভাবে ডয়চে ভেলের বাংলা ওয়েবসাইট ভিজিট করি এবং নিত্য নতুন তথ্য সংগ্রহ করে অভিজ্ঞতার ঝুলি পরিপূর্ণ করি৷ সংবাদ, চলতি ঘটনা, খেলাধুলা, সমাজ জীবন, সংস্কৃতি বিনোদন, বিজ্ঞান প্রযুক্তি ইত্যাদি আমাদের খুব ভাল লাগে৷ ধন্যবাদ ডয়চে ভেলেকে আমাদেরকে সুন্দর ও তথ্য সমৃদ্ধ একটি ওয়েবসাইট উপহার দেবার জন্য৷ সংস্কৃতি বিনোদন পর্বে এক শিক্ষিত কুকুর শিরোনামে সংবাদটি পুরোপুরি পড়লাম৷ যুক্তরাষ্ট্রের এক কুকুর চিনে ফেলেছে এক হাজারেরও বেশি শব্দ৷ কী করে সম্ভব হলো তা ? জন পিলে নামক ব্যক্তির অধীনে থাকা চেজার নামক কুকুরটির এ অসাধারণ বুদ্ধিমত্তার কাহিনী সত্যি আমাদের খুব ভালো লেগেছে৷ মোঃ ওবাযদুল্লাহ পিন্টু রেইনবো শ্রোতা সংঘ আমলা, মিরপুর, কুষ্টিয়া৷ rlcamla@yahoo.com

আজ ওয়েবসাইটের প্রায় সব পাতাই দেখলাম, পড়লাম৷ ভালো লাগলো৷ কিন্তু শ্রোতাদের মতামতের পাতায় আমাদের অভিমত নেই কেন ? কৃষ্ণাপদ বাইন, ভয়েস অফ জার্মানি লিসনার্স ক্লাব, গোপালগঞ্জ৷ voglcbd.listenersclub@gmail.com