1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

এইউ মহাপরিকল্পনায় গাদ্দাফি প্রশাসনের সম্মতি

লিবিয়ার সংকট নিরসনে আফ্রিকান ইউনিয়নের প্রতিনিধি দল লিবিয়া সফর করছে৷ প্রথম দিনেই কিছুটা সাফল্যের চিহ্ন মিলেছে৷ লিবীয় নেতা মুয়াম্মার গাদ্দাফি এইউ এর পরিকল্পনার সাথে একমত বলে জানালেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা৷

default

এইউ প্রতিনিধি দলের সফরে অগ্রগতি

মুয়াম্মার গাদ্দাফির সাথে শনিবার সাক্ষাৎ করলেন এইউ প্রতিনিধি দলের সদস্যরা৷ দলে রয়েছেন মৌরিতানিয়ার প্রেসিডেন্ট মোহামেদ উলুদ আবদেল আজিজ, মালির প্রেসিডেন্ট আমাদু তৌমানি তৌরে, কঙ্গোর ডেনিস সাসু নাগেসু এবং দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট জ্যাকব জুমা৷ এছাড়া উগান্ডার প্রেসিডেন্টের পক্ষে রয়েছেন সেদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হেনরি অরিয়েম ওকেলো৷ বৈঠক শেষে গাদ্দাফির বাসভবন বাব আল-আজিজিয়ায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন জ্যাকব জুমা৷ তিনি বলেন, ‘‘ভ্রাতৃপ্রতিম দেশের নেতার প্রতিনিধিরা আমাদের মহাপরিকল্পনা গ্রহণ করেছেন৷'' তিনি আরো বলেন, ‘‘আমরা সেখানে যুদ্ধবিরতির একটি সুযোগ সৃষ্টি করতে ন্যাটো'র কাছেও আহ্বান জানাবো বোমা হামলা বন্ধ করার৷''

বিদ্রোহীদের সাথে বৈঠক করবে এইউ প্রতিনিধি দল

প্রতিনিধি দলটি বেনগাজিতে বিদ্রোহী গোষ্ঠীগুলোর সাথে বৈঠক করবেন আজ৷ সেখানে বিরোধী নেতাদের কাছে আফ্রিকান ইউনিয়নের পরিকল্পনা উপস্থাপন করা হবে৷ একইসাথে তাদেরকে অস্ত্রবিরতির প্রস্তাব দেওয়া হবে বলে জানা গেছে৷ তবে গাদ্দাফি কিংবা তাঁর ছেলেরা ক্ষমতায় থাকা পর্যন্ত কোন অস্ত্রবিরতি নয় বলে ইতিমধ্যে তাদের শক্ত অবস্থানের কথা জানিয়ে দিয়েছে বিরোধী পক্ষ৷

No Flash Libyen Rebellen in der Nähe von Brega

এদিকে, আফ্রিকান ইউনিয়নের শান্তি ও নিরাপত্তা বিষয়ক কমিশনার রামতানে লামামরা জানিয়েছেন, এইউ প্রতিনিধি দলের সাথে বৈঠকে গাদ্দাফির ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়ানোর বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হয়েছে৷ তবে এ ব্যাপারে বিস্তারিত কিছু না জানিয়ে তিনি বলেন, ‘‘মূলত গণতান্ত্রিকভাবে তাদের নেতা নির্বাচিত করাটা লিবিয়ার জনগণের উপরই নির্ভর করছে৷'' তিনি আরো জানান, লিবিয়া সফররত এইউ প্রতিনিধি দলের প্রস্তাবিত মহাপরিকল্পনার মধ্যে রয়েছে অস্ত্রবিরতি, জাতীয় সংলাপের আয়োজন, লিবিয়ায় অবস্থানরত বিদেশি নাগরিকদের নিরাপত্তা প্রদান এবং মানবিক সাহায্য পৌঁছে দেওয়া৷

ন্যাটো'র হামলা

অন্যদিকে, এইউ নেতারা যখন শান্তি প্রক্রিয়ার জন্য লিবিয়া সফর করছেন, তখন ন্যাটো জানালো গাদ্দাফির অনুগত বাহিনীর ২৬টি সাঁজোয়া যান ধ্বংস করার খবর৷ ন্যাটোর দাবি, মিসরাতা এবং আজদাবিয়া শহরে সরকারি বাহিনীর ২৬ টি সাঁজোয়া যান ধ্বংস করা হয়েছে৷ এগুলোর মধ্যে মিসরাতায় ১৪ টি এবং বাকিগুলো আজদাবিয়ায় আকাশ থেকে বোমা হামলা চালিয়ে ধ্বংস করা হয়েছে৷ এছাড়া মিসরাতায় বেশ কয়েক হাজার বিদেশি অভিবাসী অবরুদ্ধ হয়ে পড়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ত্রাণ সংস্থা রেড ক্রস৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: আরাফাতুল ইসলাম

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়