1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি

উয়েফার সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ বোরুসিয়া ডর্টমুন্ডের কোচ

হামলার শিকার হওয়ার ২৪ ঘণ্টার মধ্যে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের কোয়ার্টার ফাইনালের ম্যাচ খেলতে হওয়ায় ইউরোপীয় ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা উয়েফার তীব্র সমালোচনা করেছেন বোরুসিয়া ডর্টমুন্ডের কোচ টোমাস টুখেল৷

বুধবার মোনাকোর বিপক্ষে প্রথম পর্বের ম্যাচে ৩-২ গোলে হারার পর এক সাক্ষাৎকারে তিনি দাবি করেন, মোবাইলে ক্ষুদে বার্তার মাধ্যমে ২৪ ঘণ্টা পর ম্যাচ খেলার সিদ্ধান্তের কথা তিনি জানতে পারেন৷ ‘‘ক্ষুদে বার্তার মাধ্যমে আমাদের জানানো হয় যে, ম্যাচের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিচ্ছে উয়েফা'', হামলার কিছুক্ষণ পরের অবস্থা বর্ণনা করতে গিয়ে এই কথা বলেন তিনি৷ ‘‘ঘটনা পরবর্তী অবস্থা বুঝতে আমাদের আরও সময় পেলে ভালো হতো, কিন্তু সুইজারল্যান্ডে বসে কেউ সিদ্ধান্ত নিয়েছে যে, আমাদের খেলতে হবে'', বলেন ডর্টমুন্ডের কোচ৷

ক্ষুদ্ধ কণ্ঠে তিনি জানান, ‘‘হামলার কয়েক মিনিট পর একটাই মাত্র প্রশ্ন করা হয়, ‘আমরা খেলার জন্য প্রস্তুত কিনা?' মনে হচ্ছিল যেন আমাদের বাসে বোমা নয়, বিয়ারের ক্যান ছুড়ে মারা হয়েছে৷'' খেলার নতুন তারিখ তাদের উপর চাপিয়ে দেয়া হয়েছিল বলে জানান টুখেল৷ ‘‘আমরা অসহায় অনুভব করছিলাম'', বলেন তিনি৷

এ সব অভিযোগের ব্যাপারে উয়েফার কমিউনিকেশন্স ডাইরেক্টর পেদ্রো পিন্টো এপি-কে বলেন, ‘‘দুটি ক্লাব ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে৷ আমরা সবার সঙ্গেই কথা বলেছি৷ কোনো ক্লাব যে খেলতে চায় না, সেরকম তথ্য আমাদের কেউ দেয়নি৷''

এদিকে, ডর্টমুন্ডের মিডফিল্ডার নূরি শাহিন বুধবারের ম্যাচ শেষে জানান, হামলার পর এত তাড়াতাড়ি তিনি মাঠে ফিরতে চাননি৷ ‘‘আমি জানি না মানুষ বুঝতে পারবে কিনা, কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে মাঠে নামার আগ পর্যন্ত আমি ফুটবল নিয়ে ভাবতে পারিনি'', বলেন তিনি৷

উয়েফার সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন ডর্টমুন্ডের কিছু সমর্থকও৷ বুধবারের ম্যাচের আগে স্টেডিয়ামে সমর্থকরা একটি ব্যানার ঝুলিয়েছিলেন৷ তাতে লেখা ছিল, ‘‘উয়েফা: লোভী বুড়ো বাস্টার্ডস৷'' সমর্থকরা মনে করেছেন, নিরাপত্তার চেয়ে আগে ব্যবসার কথাই ভেবেছে উয়েফা৷

তবে জার্মানির একজন স্পোর্ট সাইকোলজিস্ট ইয়েন্স ক্লাইন্যার্ট মনে করেন, এই ধরণের হামলার পর ‘বিজনেস অ্যাজ ইউজ্যুয়াল' মনোভাব খুবই গুরুত্বপূর্ণ৷ ডয়চে ভেলেকে তিনি বলেন, একটি ঘটনার পর যত দ্রুত সম্ভব স্বাভাবিক কাজে ফিরে যাওয়া উচিত, নয়ত সময় পেলে হামলার ঘটনা ঘুরেফিরে মনে আসতে পারে৷

বুধবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ কোয়ার্টার ফাইনালের অন্য আরেক খেলায় রেয়াল মাদ্রিদ ২-১ গোলে বায়ার্ন মিউনিখকে হারিয়েছে৷ রেয়ালের দুটি গোলই করেন রোনালদো৷ ফলে ইউরোপিয়ীয় প্রতিযোগিতায় গোলের সেঞ্চুরি পূর্ণ হলো তাঁর৷

অন্য খেলায় অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ ১-০ গোলে হারায় ইংলিশ ক্লাব লেস্টারকে৷

জেডএইচ/এসিবি (ডিডাব্লিউ, এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

সংশ্লিষ্ট বিষয়