1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

উপকূলে সিরীয় শিশুর নিথর দেহ, স্তব্ধ ইউরোপ

সাগর পাড়ে নিথর পড়ে আছে তিন বছরের ছোট্ট এক শিশু৷ সামাজিক মাধ্যমে এই ছবি ছড়িয়ে পড়ায় ইউরোপ সহ সারা বিশ্বের মানুষ ফেসবুক, টুইটারে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন৷

লাল টি-শার্ট আর নীল প্যান্ট পরা শিশুটির নাম আয়লান কুর্দি৷ তুরস্কের এক উপকূলে তার মরদেহ পাওয়া গেছে৷ সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ থেকে বাঁচতে সেদেশের হাজার হাজার মানুষ দেশ ছেড়ে এখন ইউরোপের দিকে ছুটছেন৷ এক্ষেত্রে তারা প্রথমে নৌকা করে সাগর পাড়ি দিয়ে তুরস্ক, কিংবা ইটালি ও গ্রিসে পৌঁছচ্ছেন৷ এমনই এক নৌকা গ্রিস ও তুরস্কের মাঝামাঝি সাগরে ডুবে গেলে ১২ জন সিরীয় নাগরিক নিহত হন৷ ছোট্ট শিশুটি তাদেরই একজন বলে মনে করা হচ্ছে৷

সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারীরা #KiyiyaVuranInsanlik ব্যবহার করে ক্ষোভ প্রকাশ করছেন৷ কেউ কেউ চলমান শরণার্থী সংকট সামলাতে ইউরোপের পদক্ষেপের সমালোচনা করেছেন৷

তুরস্কের জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ এক বিবৃতিতে বলেছে, ‘‘অভিবাসীদের আগমন বিষয়ে ইউরোপ যে মনোভাব দেখাচ্ছে সেটা দুঃখজনক৷ বিষয়টি সাধারণ মানবাধিকারের দৃষ্টিকোণ থেকে দেখার সময় এসে গেছে৷''

ব্রিটেনের দৈনিক ইন্ডিপেন্ডেন্ট একটি প্রশ্ন তুলেছে, ‘‘সিরিয়ার ছোট্ট শিশুর মরদেহের এই শক্তিশালী ছবিটি যদি চলমান সংকট নিয়ে ইউরোপের মনোভাবে পরিবর্তন না আনে, তাহলে আর কীসে কী হবে?''

ব্রিটেনের অনাগ্রহ

ইউরোপে যত শরণার্থী আসছে তার বেশিরভাগই আসছে জার্মানিতে৷ জার্মানিও এসব শরণার্থীদের একটি বড় অংশকে আশ্রয় দিচ্ছে৷ কিন্তু সেই তুলনায় ব্রিটেন শরণার্থীদের নিতে আগ্রহী হচ্ছে না৷ পরিসংখ্যান বলছে, জনসংখ্যার অনুপাতে ব্রিটেন খুব কম সংখ্যক শরণার্থীদের আশ্রয় দিচ্ছে৷ তাই ফ্রান্স, জার্মানি ও ইটালি শরণার্থী নীতিতে পরিবর্তন আনার প্রস্তাব করেছে যেন ইইউর দেশগুলো জনসংখ্যার অনুপাতে সমান সংখ্যক শরণার্থী নেয়৷

জেডএইচ/এসবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়