1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

উচ্চবর্ণের মেয়ে বিয়ে করায় যুবককে কুপিয় হত্যা

ভারতে এক যুবককে তাঁর স্ত্রীর পরিবারের সদস্যরা কুপিয়ে হত্যা করেছে বলে অভিযোগ উঠেছে৷ ছেলে-মেয়ে দু'জনই হিন্দু, কিন্তু ভিন্ন জাতের বা বর্ণের হওয়ায় এই হত্যাকাণ্ড ঘটেছে বলে মনে করা হচ্ছে৷

দক্ষিণ ভারতের তামিলনাড়ুর ঘটনা৷ জনাকীর্ণ এক রাস্তায় ২২ বছর বয়সি এক শিক্ষার্থী এবং তাঁর স্ত্রীর উপর হামলা চালায় তিন ব্যক্তি৷ হামলাকারীদের হাতে থাকা কাস্তে দিয়ে ছেলেটিকে কুপিয়ে হত্যা করে, সোমবার এই তথ্য জানিয়েছে পুলিশ৷

হামলার শিকার দম্পতি আট মাস আগে বিয়ে করেন বলে জানা গেছে৷ যদিও মেয়ের পরিবারের পক্ষ থেকে বিয়েতে সম্মতি ছিল না৷ এই বিষয়ে স্থানীয় পুলিশ কর্মকর্তা এন মঞ্জুনাথ বার্তাসংস্থা এএফপিকে বলেন, ‘‘মেয়েটার পরিবারের সদস্যরা খুশি ছিল না৷ মেয়েটা উচ্চবর্ণের ছিল, আর ছেলেটা দলিত বা নিম্নবর্ণের হিন্দু৷''

১৯ বছর বয়সি মেয়েটি অবশ্য হামলার শিকার হয়েও বেঁচে গেছেন৷ গুরুতর আহত অবস্থায় তাঁকে হাসপাতালে নেয়া হয়েছে৷

ঘটনাস্থলে পাশের একটি শপিং মলের সিসিটিভি ক্যামেরায় হত্যাকাণ্ডের পুরো দৃশ্য রেকর্ড হয়েছে৷ ভারতীয় টেলিভিশনে প্রচারিত সেই ভিডিওতে দেখা যায়, হামলার শিকার দম্পতি রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছিলেন৷ আর তখন তিন ব্যক্তি মোটর সাইকেল থেকে নেমে তাদের উপর হামলা চালায়৷

স্থানীয় পুলিশ জানিয়েছে, তারা ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে মেয়েটির চাচাকে খুঁজছেন৷

প্রসঙ্গত, ভারতে পরিবারের সম্মতি না নিয়ে বিয়ে করা দম্পতিদের উপর হামলা বিরল কিছু নয়৷ বিশেষ করে প্রত্যন্ত অঞ্চলে তথাকথিত ‘অনার কিলিংয়ের' শিকার হচ্ছেন অনেকে৷ সাধারণত, পরিবারের সম্মানহানি হচ্ছে এমন মনে করলে বিবাহিত বিবাহিতের পরিবার বা বর্ণের সদস্যরা তাঁকে হত্যা করে৷ জাতিসংঘের হিসেবে, বিশ্বে প্রতিবছর পাঁচ হাজার ‘অনার কিলিংয়ের' ঘটনা ঘটে৷ এরমধ্যে এক পঞ্চমাংশই ঘটে ভারতে৷

ভারতের টাইমস অফ ইন্ডিয়া পত্রিকাকে নিহত যুবকের বাবা জানিয়েছেন, হামলার শিকার দম্পতি যেদিন বিয়ে করেছিলেন, সেদিনই তাদের হত্যার হুমকি দিয়েছিল মেয়েটির পরিবারের সদস্যরা৷

এআই/ডিজি (এএফপি, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন