1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ঈগল পাখির বিশ্বরেকর্ড

৫২ লাখেরও বেশি মানুষ দেখেছে বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবন থেকে এক ঈগল পাখির উড়াল৷ উড়ে উড়ে ঈগল পৌঁছে গেল দূরে দাঁড়ানো প্রশিক্ষকের কাছে৷ হয়ে গেল বিশ্বরেকর্ড৷ বিশ্বরেকর্ডের সঙ্গে এক নজরে দুবাই শহরটাও দেখে নিল সবাই৷

হ্যাঁ, এভাবেই একটা বিশ্বরেকর্ড করেছে দার্শান৷ দার্শান মানে, সেই ঈগল, যাকে বিশ্বরেকর্ডের জন্য প্রস্তুত করেছে ফ্রান্স থেকে আসা প্রশিক্ষক৷ ঈগল বা যে কোনো পাখির ওড়া তো আমরা সাধারণত নীচ থেকেই দেখি৷ বিশ্বরেকর্ড গড়ার অভিযানে ঈগলের সঙ্গে থেকেই তার ওড়া দেখেছে, ঈগলের চোখে ২,৭০০ ফুট ওপর থেকে দুবাই শহরও দেখেছে কয়েক লাখ মানুষ৷

বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবন দুবাইয়ের বুর্জ খালিফা টাওয়ার৷ সেই ভবনের একেবারে ওপরে বসিয়ে দেয়া হয়েছিল দার্শান নামের ঈগলটিকে৷ ঈগলের ঘাড়ের ওপরে বাঁধা ছিল অত্যাধুনিক লাইভ স্ট্রিম ক্যামেরা৷ ফলে দার্শানের বিশ্বরেকর্ড গড়ার উড়াল এবং ২,৭০০ ফুটেরও বেশি ওপর থেকে তার দুবাই শহর দেখতে দেখতে নেমে আসার প্রতিটি মুহূর্তই উপভোগ করার সুযোগ পেয়েছে মানুষ৷

এভাবে বুর্জ খালিফা থেকে দূরের এক মাঠে দাঁড়ানো ফরাসি প্রশিক্ষকের কাছে নেমে এসে মানুষের তৈরি সবচেয়ে উঁচু কাঠামো থেকে ওড়ার বিশ্বরেকর্ড গড়েছে দার্শান৷ আগের রেকর্ডটি কার ছিল? তা বলা সম্ভব নয়, কেননা, বিশ্বের সবচেয়ে উঁচু ভবনের ওপরে আর কোনোদিন কোনো পাখি বসেছে বা বসবে কিনা সেটাই তো জানা নেই কারো!

স্বাভাবিক অবস্থায় ২,৭০০ ফুটের চেয়ে অনেক ওপর দিয়ে উড়তে পারে নেড়ে মাথার এক ধরণের ঈগল৷ ১০ হাজার ফুট ওপর দিয়ে অনায়াসে উড়ে যেতে পারে তারা৷ এক ধরণের শকুন তো ৩৭ হাজার ফুট ওপর দিয়ে ওড়ে! তবে এই দুই ধরণের পাখিই এখন বিলুপ্তির পথে৷

এমন বিলুপ্ত প্রায় পাখিদের রক্ষার জন্যই কাজ করে ফ্রিডম কনজারভেশন নামের একটি সংগঠন৷ মানুষের তৈরি সবচেয়ে উঁচু ভবন থেকে ওড়ার ব্যবস্থা করে দার্শান নামের ঈগলটিকে বিশ্বরেকর্ড গড়ার সুযোগটা তারাই দিয়েছিল৷

এখন বিশ্বের সব দেশের মানুষই দেখছে দার্শানকে৷ দার্শানের চোখেই আকাশ থেকে দেখছে দুবাই শহর৷ বিশ্বরেকর্ড এবং দুবাই দেখতে গিয়ে ইউটিউবের এই ভিডিওটি গত ৮ মাসে এখন পর্যন্ত ৫২ লক্ষ ৪ হাজার ৩৯২ বার দেখেছে পাখি এবং ভ্রমণপ্রেমী মানুষ৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন