1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘ইসলাম মানে শান্তি, অথচ আইএস করছে উল্টো'

ব্রিটেনে বসবাসরত মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত চৌধুরী মইনুদ্দীনের বিরুদ্ধে আইএস জঙ্গি তৈরিতে ভূমিকা রাখার অভিযোগ উঠেছে৷ তবে জার্মানিতে আইএস-এর সে দেশে আক্রমণের হুমকির বিষয়টি নিয়েই চলছে আলোচনা৷

জার্মানি আক্রমণের হুমকি দিয়ে ভিডিও প্রকাশ করেছে জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট বা আইএস৷ বুধবার প্রকাশিত এ ভিডিওতে জার্মানি আক্রমণের হুমকির পাশাপাশি জার্মানির চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলকেও এক হাত নিয়েছে আইএস-এর হয়ে কথা বলা দুই তরুণ৷ ইসলামি জঙ্গি সংগঠনের ওই দুই সমর্থক ভিডিওতে জার্মান ও আরবি ভাষায় কথা বলেছেন৷ এদিকে বুধবারই স্টুটগার্ট শহর থেকে দুই আইএস সমর্থককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ৷

ডয়চে ভেলে বাংলা বিভাগের ফেসবুক পাতায় আইএস-এর এই জার্মানি আক্রমণের হুমকির খবরটি শেয়ার করা হয়৷ অনেক পাঠক-বন্ধুই মন্তব্য করেছেন সেখানে৷ নির্বিচারে মানুষ হত্যা আর বর্বরতার জন্য আইএস-এর সমালোচনা করেছেন কয়েকজন৷

জুবায়ের ইসলাম লিখেছেন, ‘‘ওরা (আইএস) যে সন্ত্রাসী এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই৷ ইসলাম মানে শান্তি৷ অথচ তাদের কাজকর্মের শান্তির সঙ্গে কোনো সম্পর্কই নেই৷''

সানজিদা খানও মনে করেন খেলাফত কায়েম করার কথা বললেও আইএস-এর সঙ্গে ইসলামের কোনো সম্পর্ক নেই৷ তাঁর মতে, ‘‘আল্লাহ গুনাহগারদের ক্ষমা করেন না৷ কাউকে হত্যা করা গুনাহ৷ তার সাজা দোজখ৷ ইসলামে কোনো জায়গায় কারো ক্ষতি করার কথা বলা নেই৷ যে ধর্মে বলা আছে কোনো গরিব প্রতিবেশী না খেয়ে থাকলে তাঁকে খাওয়ানোর পর নিজেকে খেতে হবে, সে ধর্মে মানুষকে হত্যা করার কথা থাকতে পারে না৷''

সানজিদা মনে করেন, ‘‘ওরা (আইএস) নিজে ধর্ম বানিয়েছে, ওদের ধর্ম ইসলাম না৷ ইসলাম যারা অনুসরণ করে তারা দোজখ ভয় পায়৷ আল্লাহ তাদের সাজা দেবেন৷''

মনিরুজ্জামান আইএস-এর হুমকিকে খুব এক গুরুত্ব দেননি৷ তিনি মনে করেন, আইএস হুমকি দিলেও জার্মানি আক্রমণ তারা করবে না৷ তাঁর ভাষায় ‘‘জঙ্গিরা এটা করবে না৷ যত গর্জে তত বর্ষে না৷ এই আক্রমণে ওদের অস্তিত্ব বিলীন হবে৷''

সংকলন: আশীষ চক্রবর্ত্তী

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়