1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ইসলামবিরোধী ‘পেগিডা' আন্দোলনের সমালোচনায় ম্যার্কেল

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল নববর্ষের বার্তায় বলেছেন, তাঁর দেশ শরণার্থীদের গ্রহণ করা অব্যাহত রাখবে৷ ইসলামবিরোধী পেগিডা আন্দোলনেরও সমালোচনা করেন তিনি৷

জাতির উদ্দেশ্যে দেয়া ভাষণে ম্যার্কেল বলেন, ‘‘যাঁদের সহায়তা প্রয়োজন জার্মানি তাঁদের সহায়তা করবে৷'' তিনি জানান, ২০১৪ সালে জার্মানি আশ্রয়প্রার্থীদের কাছ থেকে দুই লক্ষেরও বেশি আবেদন পেয়েছে, যেটা বিশ্বে সর্বোচ্চ৷ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর ২০১৪ সালই সবচেয়ে বেশি শরণার্থী দেখেছে, বলেও জানান জার্মান চ্যান্সেলর৷ ম্যার্কেল বলেন, নির্যাতনের শিকার মা-বাবার সন্তানেরা জার্মানিতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে বেড়ে উঠতে পারবে – এ জন্য জার্মানি গর্ব করতে পারে৷

‘পেগিডা'-র সমালোচনা

সাম্প্রতিক সময়ে জার্মানির কয়েকটি শহরে ইসলামবিরোধী পেগিডা (পেট্রিয়টিক ইউরোপিয়ানস এগেনস্ট দ্য ইসলামাইজেশন অফ অক্সিডেন্ট) আন্দোলন অনুষ্ঠিত হয়েছে৷ ম্যার্কেলের সমালোচনা করে জার্মান নাগরিকদের এ ধরণের কর্মসূচি থেকে নিজেদের দূরে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন৷ তিনি বলেন, এ ধরণের কর্মসূচি বিভিন্ন বর্ণ ও ধর্মের মানুষের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ৷ ‘‘আপনারা এই আন্দোলনের আয়োজকদের অনুসরণ করবেন না৷ তারা শীতল হৃদয়ের অধিকারী এবং তাদের মন প্রায়ই পক্ষপাতদুষ্ট ও ঘৃণায় পূর্ণ,'' নাগরিকদের উদ্দেশ্যে বলেন জার্মান চ্যান্সেলর৷

প্রসঙ্গ আইএস

ইসলামিক স্টেট-এর জঙ্গিরা বিশ্বের জন্য যে বিপদের কারণ হয়ে উঠছে, সে ব্যাপারে সবাইকে সতর্ক করে দেন ম্যার্কেল৷ এই জঙ্গি গোষ্ঠীটি ‘‘সব শ্রেণির মানুষের উপর নির্যাতন চালিয়েছে, আর যারা তাদের বিরোধিতা করেছে তাদের হত্যা করেছে,'' বলেন তিনি৷ আইএস ‘আমাদের মূল্যবোধের' জন্যও হুমকি, বলেন জার্মান চ্যান্সেলর৷

ম্যার্কেল তাঁর নববর্ষের বার্তায় ইউরোপ-রাশিয়া সম্পর্ক, ইবোলা নিয়েও কথা বলেন৷ ইউক্রেন সংকটের কারণে ইউরোপ বিভক্ত হবে না বলে মন্তব্য করে তিনি বলেন, জার্মানি রাশিয়াকে সঙ্গে নিয়েই নিরাপদ ইউরোপ গড়তে চায়, রাশিয়ার বিরুদ্ধে গিয়ে নয়৷

জেডএইচ/ডিজি (রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন