1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে ‘চুরি বৈধ' করার অভিযোগ ফিলিস্তিনের

পশ্চিম তীরে ফিলিস্তিনিদের জমিতে গড়ে তোলা বসতিকে বৈধতা দিয়ে সোমবার ইসরায়েলের সংসদে একটি আইন পাস হয়েছে৷ যুক্তরাষ্ট্র এ বিষয়ে এখনই মন্তব্য করতে রাজি হয়নি৷

এই আইনের কারণে ইসরায়েল বৈধভাবে ফিলিস্তিনিদের সেই সব ব্যক্তিগত জমির নিয়ন্ত্রণ নিতে পারবে, যেখানে ইসরায়েলিরা বসতি নির্মাণ করেছে৷ বিনিময়ে ফিলিস্তিনিদের ক্ষতিপূরণ দেয়া হবে কিংবা অন্য কোথাও জমি দেয়া হবে৷

সংসদে ভোটাভুটিতে ৬০ জন সাংসদ পক্ষে, আর ৫২ জন আইনের বিপক্ষে ভোট দেন৷

‘প্যালেস্টাইন লিবারেশন অর্গানাইজেশন' বা পিএলও এক বিবৃতিতে বলেছে, এই আইনের মাধ্যমে ‘জমি চুরির বৈধতা' দেয়া হচ্ছে৷ এছাড়া ইসরায়েল যে মধ্যপ্রাচ্য সংকটের একটি রাজনৈতিক সমাধানের সুযোগ নষ্ট করতে চায়, এই আইন পাস সেটি দেখিয়ে দিচ্ছে৷

এদিকে, এই আইন পাস করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখা রাজনীতিক বেজালেল স্মটরিচ মার্কিন প্রেসিডেন্ট হিসেবে ডোনাল্ড ট্রাম্পকে নির্বাচিত করায় যুক্তরাষ্ট্রের জনগণকে ধন্যবাদ দিয়েছেন৷ কারণ ‘‘তাঁকে (ট্রাম্প) ছাড়া এই আইন পাস হয়ত সম্ভব ছিল না'' বলে মনে করেন তিনি৷

যুক্তরাষ্ট্র অবশ্য ইসরায়েলের এই আইন নিয়ে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হয়নি৷ বার্তা সংস্থা এএফপি মার্কিন পররাষ্ট্র দপ্তরের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার মন্তব্য জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘‘মন্তব্য করার আগে বিষয়টি নিয়ে সব পক্ষের সঙ্গে মার্কিন প্রশাসনের কথা বলতে হবে৷'' তিনি মনে করছেন, ইসরায়েলের আদালত সংসদে পাস হওয়া এই আইন যাচাই করে দেখতে পারে৷ তখন ট্রাম্প প্রশাসন মন্তব্য করতে পারে বলে জানান ঐ কর্মকর্তা৷

আইন পাস হওয়ার সপ্তাহখানেক আগে প্রতিরক্ষামন্ত্রী আভিগডর লিবারমান বলেছিলেন, সুপ্রিম কোর্টের এই আইন বাতিল করে দেয়ার শতভাগ সম্ভাবনা আছে৷

সম্প্রতি পশ্চিম তীরে ইসরায়েলিদের অবৈধভাবে গড়ে তোলা একটি বসতি থেকে অধিবাসীদের সরিয়ে নেয়ার রায় দিয়েছিল দেশটির সুপ্রিম কোর্ট৷ এই রায়ের পক্ষে কোর্ট যুক্তি দিয়েছিল যে, বসতিটি ফিলিস্তিনিদের ব্যক্তিগত জমির উপর নির্মাণ করা হয়েছে৷

ইসরায়েল সফররত তুরস্কের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এই আইন পাস করায় কঠোর ভাষায় ইসরায়েলের সমালোচনা করেছেন৷

ইসরায়েলে নিযুক্ত অস্ট্রেলিয়ার রাষ্ট্রদূত মার্টিন ওয়াইজ আইন পাসের খবরটি শেয়ার করে টুইট করেছেন৷

হিউম্যান রাইটস ওয়াচ পাস হওয়া আইনের সমালোচনা করে বলেছে, ট্রাম্প প্রশাসন আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের তদন্ত থেকে ইসরায়েলকে রক্ষা করতে পারবে না৷

ইসরায়েলের মানবাধিকার সংস্থা বি'টিসেলেম ইসরায়েলি প্রশাসনের সমালোচনা করে বলেছে, এই আইন বুঝিয়ে দিলো যে, ফিলিস্তিনিদের জমি চুরি বন্ধ করার কোনো ইচ্ছা ইসরায়েলের নেই৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়