1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ইরানের সঙ্গে সমঝোতাকে ঘিরে নানা প্রশ্ন

ইরানের সঙ্গে আন্তর্জাতিক সমাজের ঐতিহাসিক বোঝাপড়ার খবর সোশ্যাল মিডিয়া জগতেও বিশাল আলোড়ন সৃষ্টি করেছে৷ চুক্তির বিভিন্ন দিক তুলে ধরে হারজিতের হিসাবও কষছেন অনেকে৷

আন্তর্জাতিক আণবিক শক্তি সংস্থা আইএইএ তাদের সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্টে ইরানের সঙ্গে বোঝাপড়ার রূপরেখা শেয়ার করেছে৷

হুসেইন দাবাজেহ মার্কিন ও ইরানি পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানিয়ে লিখেছেন, একবিংশ শতাব্দীতে যুদ্ধ নয়, কূটনীতিই সঠিক পথ৷

মাহতাব নামের এক টুইটার ব্যবহারকারী লিখেছেন, ‘‘আমি আমার সন্তানদের বলবো, ঐতিহাসিক এই দিনে আমি তরুণ ছিলাম এবং শান্তি ও কূটনীতির জন্য প্রার্থনা করেছিলাম৷''

ইসরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেনইয়ামিন নেতানিয়াহু শুরু থেকেই ইরানের সঙ্গে পরমাণু চুক্তির বিরোধিতা করে আসছেন৷ প্রধানমন্ত্রী তাঁর সরকারি টুইটার অ্যাকাউন্টে লিখেছেন, প্রাথমিক রিপোর্ট দেখেই এই সিদ্ধান্তে আসা যায় যে, এই বোঝাপড়া এক ঐতিহাসিক ভুল৷

বোঝাপড়ার এক দিন আগেই নেতানিয়াহু ইরানের মানুষের সঙ্গে সরাসরি সংলাপের উদ্দেশ্যে ফারসি ভাষায় এক টুইটার অ্যাকাউন্ট চালু করেছেন৷ এ সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট শেয়ার করে সিওভান ও'গ্র্যাডি মন্তব্য করেছেন, ফারসি-ভাষীরা মোটেই খুশি নয়৷

লেখক ও সাংবাদিক আয়ান ফ্রেসার মনে করেন, ইরানের সঙ্গে বোঝাপড়া আসলে নেতানিয়াহুর বিশাল পরাজয়৷

শুধু ইসরায়েল নয়, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য এই বোঝাপড়া একটা চ্যালেঞ্জ হতে চলেছে৷ প্রেসিডেন্ট ওবামাকে মার্কিন কংগ্রেসের অনুমোদন পেতে বেশ বেগ পেতে হবে বলে মনে করেন সাংবাদিক লিন সুইট৷

ইরানের সঙ্গে বোঝাপড়ার ফলে পেট্রোলিয়ামের দাম কম হবে এবং এর ফলে রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও সাধারণ ভোক্তাদের উপকার হবে বলে মনে করেন ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সদস্য পেট্রাস আউস্ট্রেভিসিয়াস৷

পরমাণু কর্মসূচি সংক্রান্ত বোঝাপড়ার পর অন্যান্য ক্ষেত্রেও ইরানের প্রতি প্রত্যাশা বাড়ছে৷ ইসরায়েলের ‘জেরুসালেম পোস্ট' পত্রিকার সাংবাদিক বেনজামিন ভাইনটাল প্রশ্ন তুলেছেন, এবার কি ইউরোপীয় রাজনীতিকরা ইরানে বন্দি সাংবাদিক, খ্রিস্টান ও বাহাই সম্প্রদায়ের মানুষের মুক্তির দাবি তুলবেন বা সমকামীদের ফাঁসি বন্ধের দাবি জানাবেন?

সংকলন: সঞ্জীব বর্মন

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন