1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ইরাকে সিরিজ হামলা, নিহতের সংখ্যা বাড়ছে

সোমবার সিরিজ বোমা এবং সশস্ত্র হামলায় কেঁপে ওঠে ইরাক৷ প্রাণ হারায় সেনা পুলিশসহ বেশ কয়েকজন সাধারণ মানুষ৷ দেশটির সরকার বলছে, ইরাককে আবারো অশান্ত করে তুলতে এধরণের হামলা চালানো হচ্ছে৷

default

ফাইল ফটো

ইরাকে একাধিক গাড়িবোমা, আত্মঘাতী আর সশস্ত্র হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন কমপক্ষে ৬৫ জন, আহত ১৪০৷ সবচেয়ে বড় হামলাটি হয়েছে বাগদাদের ১০০ কিলোমিটার দক্ষিণে হিল্লা শহরে৷ সেখানে আত্মঘাতী জোড়া গাড়ি বোমা হামলায় নিহতের সংখ্যা কমপক্ষে ২০ জন, আহত ৭০ জন৷

বাগদাদ এর দক্ষিণপূর্বাঞ্চলে একটি মসজিদের কাছে অপর হামলায় প্রাণ হারায় আটজন, আহত কমপক্ষে ৫০৷ রাজধানীর উত্তরের শহর আল-তারেমায়ায় গাড়ি বোমা হামলায় প্রাণ হারায় দুই জন, আহত ১২৷ আল-হাল্লা শহরে অপর বোমা হামলায় প্রাণ হারিয়েছেন এক উর্ধ্বতন পুলিশ কর্মকর্তা৷ সঙ্গে আহত ছয় পুলিশ কর্মী৷

এদিকে, বাকুরা প্রদেশের এক ঊর্ধ্বতন প্রাদেশিক কর্মকর্তাকে সন্ত্রাসীরা ঘরে ঢুকে গুলি করে হত্যা করেছে৷ এছাড়া, আবু ঘারিব, আল-আদিল, আল-জিহাদসহ কয়েক জায়গায় বোমা ও সশ্রস্ত্র হামলায় পাঁচ সেনা সদস্যসহ প্রাণ হারিয়েছে কমপক্ষে ১৯ জন৷ এসব হামলায় হতাহতের সংখ্যা আরো বাড়ার আশঙ্কা রয়েছে৷

বর্তমানে ইরাকে নতুন সরকার গঠন নিয়ে বেশ অস্থিরতা চলছে৷ এরই মাঝে বেড়ে চলেছে সন্ত্রাসী হামলা৷ এই ঘটনার পর তাই ইরাকের ভাইস প্রেসিডেন্ট আদেল আব্দুল মেহেদী সব রাজনৈতিক দলকে দ্রুত সরকার গঠনে সহায়তার আহ্বান জানিয়েছেন৷ ইরাকের ইসলামিক পার্টি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানিয়ে বলেছে, ইরাকের নিরাপত্তা পরিস্থিতি অবনতির পরিষ্কার ইঙ্গিত এটি৷

ইরাকের সেনাবাহিনী ধারাবাহিক হামলার সঙ্গে জড়িত সন্দেহে সাত সম্ভাব্য সন্ত্রাসীকে আটক করেছে৷ বাকুরা প্রদেশের প্রাদেশিক কর্মকর্তাকে হত্যার পেছেন আল-কায়দা সন্ত্রাসীরা জড়িত থাকতে পারে বলে জানাচ্ছে পুলিশ৷ তাছাড়া, আত্মঘাতী হামলা সাধারনত আল-কায়দা জঙ্গি গোষ্ঠী চালিয়ে থাকে বলেও মত বিশেষজ্ঞদের৷ তবে, এসব হামলার দায় এখনো কেউ স্বীকার করেনি৷

প্রতিবেদন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়