1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

মধ্যপ্রাচ্য

ইরাকে যুদ্ধে জড়িয়ে পড়লো তুরস্ক

মোসুল শহর থেকে আইএস জঙ্গিদের তাড়াতে সামরিক অভিযান চালাচ্ছে ইরাক৷ সঙ্গে শিয়া মিলিশিয়া কুর্দি ও কোয়ালিশন বাহিনী৷ এবার তুরস্ক সেই সংঘাতে জড়িয়ে পড়ায় পরিস্থিতি জটিল হয়ে উঠতে পারে৷

Irak Bartella vor Mossul (picture-alliance/AP Photo/K. Mohammed)

ইরাকের মসুল শহরে আইএস বিরোধী অভিযান

ইরাকের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর মোসুল থেকে তথাকথিত ইসলামিক স্টেট জঙ্গিদের তাড়িয়ে কর্তৃত্ব স্থাপন করতে বদ্ধপরিকর ইরাকের সরকার৷ গত সোমবার থেকে এই লক্ষ্যে বড় অভিযান শুরু হয়েছে৷ উত্তর পূর্বে বাশিকা শহর দখল করতে লড়াই চালাচ্ছে কুর্দি পেশমারগা বাহিনী৷ তাদের দাবি, তারা গোটা শহর ঘিরে ফেলেছে৷ তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদিরিম জানিয়েছেন, কুর্দি বাহিনীর অনুরোধে তাঁর দেশ সামরিক সহায়তা দিয়েছে৷ উল্লেখ্য, বাশিকার কাছে এক সামরিক ঘাঁটিতে প্রায় ৫০০ তুর্কি সৈন্য কুর্দি বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দিয়ে আসছে৷

আইএসের বিরুদ্ধে সংগ্রামে ইরাকের সরকার বিভিন্ন পক্ষের সাহায্য নিলেও তুরস্কের হস্তক্ষেপের বিরোধিতা করে আসছে৷ সরকার আরও মনে করিয়ে দিয়েছে যে, ইরাকের ভূখণ্ডে তুরস্কের সৈন্যের উপস্থিতির কোনো অনুমতি দেওয়া হয়নি৷ মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রী অ্যাশটন কার্টার তুরস্কের সহায়তা গ্রহণের পরামর্শ দেওয়ার পরও সেই বিরোধিতার সুর নরম হয়নি৷

এর মধ্যে কার্টার রবিবার কুর্দি নেতা মাসুদ বারজানির সঙ্গে সাক্ষাৎ করেছেন৷ তিনি বলেন, আইএসকে উৎখাত করতে সব শক্তির সম্মিলিত উদ্যোগে ইরাকের মোসুল শহর ও সিরিয়ার রাকা শহরের উপর একসঙ্গে হামলার পরিকল্পনা বেশ কিছুকাল আগেই নেওয়া হয়েছে৷ তাছাড়া নীতিগতভাবে মোসুল শহর উদ্ধারের প্রশ্নে ইরাক ও তুরস্কের ঐকমত্য রয়েছে৷

মরিয়া অবস্থায় আইএস-ও পালটা হামলা চালাচ্ছে৷ শুক্রবার তারা ইরাকে কুর্দি নিয়ন্ত্রিত কির্কুক শহরের উপর হামলা চালিয়েছে৷ এ কাজে সাফল্য না পেলেও শহরে কিছুটা অরাজকতার সৃষ্টি করেছে তারা৷ উল্লেখ্য, মোসুল শহরে চাপের মুখে পড়লে রণকৌশল বদলে আইএস জঙ্গিরা অন্যান্য শহর ও এলাকার উপর হামলা চালাতে পারে, এমন আশঙ্কা শুরু থেকেই ছিল৷ রুতবা শহরেও আইএস তাণ্ডব চালিয়েছে৷

মোসুল শহর শেষ পর্যন্ত আইএস মুক্ত হলেও ইরাকের বিভিন্ন সম্প্রদায় ও তাদের বিদেশি মদতদাতাদের মধ্যে উত্তেজনার আশঙ্কা দেখা যাচ্ছে৷ ইরাকের সরকার ইরানের মদতে শিয়া মিলিশিয়া বাহিনীর সহায়তা নিচ্ছে৷ সুন্নি-প্রধান মোসুল শহর ও এলাকার মানুষ তাদের উপস্থিতি ভালো চোখে দেখবে না, এমনটাই ধরে নেওয়া হচ্ছে৷ ইরাকের প্রায় স্বাবলম্বী কুর্দিস্তান এলাকার নেতাদের স্বার্থও বাগদাদের সঙ্গে মিলছে না৷

এসবি/এসিবি (এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়