1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ভাইরাল ভিডিও

ইভানকা ট্রাম্পের কোম্পানির জুতো তৈরি হয় চীনে

বিষয়টি অনুসন্ধান করার জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে অ্যাক্টিভিস্টরা গেছেন চীনে; সিএনএন থেকে শুরু করে আল-জাজিরা অবধি সব বড় বড় মিডিয়া সংস্থা রিপোর্ট করেছে৷ দৃশ্যত শুধু চীন উত্তেজিত নয়!

সিএনএন ও অপরাপর পশ্চিমা মিডিয়ায় সমালোচনার ধারাটা দ্বিবিধ৷ প্রথমত, চীনে জুতো তৈরির কারখানাগুলিতে দীর্ঘ কাজের সময়, কম পারিশ্রমিক, সংকীর্ণ পরিবেশ ইত্যাদির দিকে নজর দেওয়া হচ্ছে ও সেই সঙ্গে ইভানকা ট্রাম্পের মতো কোম্পানিগুলি যে অপেক্ষাকৃত চড়া দামে সেই সব জুতো পশ্চিমে বিক্রি করে থাকে, তার তুলনা করা হচ্ছে৷

দ্বিতীয়ত, ইভানকার পিতা মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প যে চীনের বিরুদ্ধে বিষোদ্গীরণ করে আসছেন, তার পরিপ্রেক্ষিতে ইভানকা ট্রাম্পের কোম্পানি যে চীনের একাধিক কারখানায় জুতো তৈরি করিয়ে থাকে – এই পরস্পরবিরোধিতার কথা স্মরণ করিয়ে দেওয়া হচ্ছে৷

তৃতীয় একটি দৃষ্টিকোণও যে আছে, সেটা বোঝা যায় ‘গ্লোবাল টাইমস'-এর ভিডিও রিপোর্টটা দেখলে৷ পত্রিকাটির মালিক  চীনের ‘পিপলস ডেইলি' ও এক হিসেবে ‘গ্লোবাল টাইমস' ইংরেজিতে আন্তর্জাতিক পাঠকমহলের জন্য চীনের অভ্যন্তরীণ খবরাখবর পেশ করে থাকে৷

সেই ‘গ্লোবাল টাইমস' পত্রিকা দক্ষিণ চীনের গুয়ানডং প্রদেশের ডংগুয়ান শহরে রিপোর্টার পাঠিয়ে ইভানকা ট্রাম্পের কোম্পানির জন্য জুতো তৈরি করে, এমন একটি কারখানার বিবরণ দিয়েছে৷ সিএনএন-এর মতো এই ভিডিও রিপোর্টেও জুতো তৈরির বিভিন্ন পর্যায় ও প্রক্রিয়া দেখানো হয়েছে – শুধুমাত্র শ্রমিকদের খাবার বা থাকার জায়গা বাদে৷

‘গ্লোবাল টাইমস'-এর মহিলা রিপোর্টার স্মরণ করিয়ে দিচ্ছেন যে, গুচ্চি অথবা মার্ক ফিশার-এর মতো বড় বড় ব্র্যান্ডের জুতোও এই কারখানাতে তৈরি হয়৷ কিন্তু ইভানকা ট্রাম্পের কোম্পানির জন্য জুতো তৈরি নিয়ে এ ধরনের কোম্পানিগুলিকে মাত্রাতিরিক্ত ‘মিডিয়া অ্যাটেনশান' সহ্য করতে হচ্ছে, যার ফলে কারখানাটির জনসংযোগ কর্মকর্তা সহ তিনজন কর্মীর চাকরি গেছে, কেননা তারা একজন বিদেশি ফটোগ্রাফারকে বিনা অনুমতিতে কারখানার শ্রমিকদের ছবি তুলতে দিয়েছিলেন৷ 

রিপোর্টের শেষে অনামা বিশেষজ্ঞদের দোহাই দিয়ে বলা হচ্ছে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প তাঁর সব ঘোষণা সত্ত্বেও, ‘‘ইভানকার জুতো তৈরি করার'' মতো চাকরিগুলোকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নিয়ে যেতে পারবেন বলে মনে হয় না৷

অপরদিকে সিএনএন-এর রিপোর্ট শেষ হচ্ছে এক মার্কিন বিশেষজ্ঞের এই ভবিষ্যদ্বাণী দিয়ে যে, ট্রাম্প চীন থেকে আসা পণ্যের উপর শুল্ক বাড়ালে ইভানকার জুতো তৈরির কাজ বাংলাদেশ কিংবা ভিয়েতনামে চলে যাবে৷

এসি/ডিজি

নির্বাচিত প্রতিবেদন