1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ইবোলা এইডস-এর মতোই এক মহামারি!

ইবোলা বা এবোলা এইডস-এর মতো মহামারি আকার ধারণ করছে৷ পশ্চিম আফ্রিকায় এইডস-এর প্রাদুর্ভাবের পর থেকে ইবোলাই সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দেখা দিয়েছে৷ জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের শীর্ষ স্বাস্থ্য কর্মকর্তা থমাস ফ্রিডেন৷

যুক্তরাষ্ট্রের ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন সেন্টার (সিডিসি) জানিয়েছে যে, এই রোগ প্রতিরোধে ভালো পদক্ষেপ নেয়া না হলে আগামী জানুয়ারির মধ্যে বিশ্বব্যাপী ইবোলা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা দাঁড়াবে ১৪ লাখে৷ এত দ্রুত ছড়ানোর কারণ মানুষের শরীর নিঃসৃত রস থেকে ইবোলা ছড়িয়ে পড়ে৷

পরিচালক টম ফ্রিডেন বলেন, বিশ্বকে দ্রুত কাজ করতে হবে যাতে করে ইবোলা ‘পরবর্তী এইডস' মহামারি হয়ে না দাঁড়ায়৷ ইবোলা সংকট নিয়ে বিশ্বব্যাংক ও আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের উচ্চপর্যায়ের একটি ফোরামে কথা বলেন ফ্রিডেন৷ তাঁর মতে, ইবোলা মোকাবিলায় দীর্ঘ যুদ্ধের প্রস্তুতি নিতে হবে৷ ফ্রিডেন বলেন, ‘‘জনস্বাস্থ্যে আমি ৩০ বছর ধরে কাজ করছি৷ এরকম একটিমাত্র জিনিস ছিল এইডস৷''

Gesundheits-Screening am Casablanca Flughafen in Marokko

মরক্কোর একটি বিমানবন্দরে যাত্রীকে পরীক্ষা করা হচ্ছে

জাতিসংঘের মহাসচিব জানিয়েছেন, ইবোলা সংক্রমণে পশ্চিম আফ্রিকায় মারা গেছে ৩ হাজার ৯০০ জন৷ এর মধ্যে স্বাস্থ্যকর্মী মারা গেছে ২শ'রও বেশি৷

এদিকে ক্যানাডায় ইবোলার একটি ভ্যাকসিন বা টিকা আবিষ্কার করেছেন বিজ্ঞানীরা৷ দু'মাস আগে তারা এই ভ্যাকসিনের কথা বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে জানায়৷ তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এটি পরীক্ষা করে এখনো তাদের সিদ্ধান্ত জানায়নি বলে জানিয়েছে ক্যানাডা কর্তৃপক্ষ৷ গত আগস্ট মাসে জানানো হয়েছিল প্রাণীর দেহে ভ্যাকসিনটি পরীক্ষা করা হবে৷

ইবোলা মোকাবেলায় আরো ত্রাণের জন্য আবেদন জানিয়েছেন ভাইরাসটি মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়া তিনটি দেশ লাইবেরিয়া, সিয়েরা লিওন এবং গিনির প্রেসিডেন্টরা৷ যুক্তরাষ্ট্রে ইবোলা সংক্রমণ ধরা পড়া প্রথম রোগী থমাস ডানক্যান মারা গেছেন বলে জানিয়েছে টেক্সাস হাসপাতালের কর্মকর্তারা৷

যুক্তরাষ্ট্রে ধরা পড়া রোগী ডানক্যানই ছিলেন দেশটিতে প্রথম ইবোলা আক্রান্ত রোগী৷ এছাড়া তিন অ্যামেরিকান ত্রাণকর্মী এবং ফটোসাংবাদিক লাইবেরিয়ায় ইবোলা আক্রান্ত হন৷ পশ্চিম আফ্রিকার ইবোলা প্রাদুর্ভাবকে ‘বৈশ্বিক নিরাপত্তার জন্য একটি হুমকি' বলে অভিহিত করেছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা৷

এ কারণে ওবামা প্রশাসন বিমানবন্দরে বিশেষ সতর্কতা নিয়েছে৷ জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, ইবোলা সন্দেহে কাউকে বিমানবন্দর থেকে বিশেষ পরীক্ষার জন্য নিয়ে যাওয়া সংক্রান্ত একটি আইন প্রয়োগ করা হবে সংবিধান মেনেই৷ অবশ্য আদালতে গিয়ে ঐ ব্যক্তি নিজের রোগ সম্পর্কে চ্যালেঞ্জ করতে পারবেন৷

এছাড়া পশ্চিম আফ্রিকার তিনটি দেশ লাইবেরিয়া, সিয়েরা লিওন ও গিনির যাত্রীদের অ্যামেরিকায় অবতরণের পর বিভিন্ন শারীরিক পরীক্ষার ভেতর দিয়ে যেতে হবে৷

এপিবি/ডিজি (এপি, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন