1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

ইন্দোনেশিয়ায় ইসলামি সলিডারিটি গেমস শুরু

ব্যাপক বিতর্ক ও সমালোচনার মুখে রোববার থেকে ইন্দোনেশিয়ায় শুরু হয়েছে ইসলামি সলিডারিটি গেমস৷ নারী অ্যাথলিটদের টু-পিস ও বিকিনি পড়া নিয়ে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছেন আয়োজকরা৷

৪৬টি মুসলিম অধ্যুষিত রাষ্ট্রের ১৮শ অ্যাথলিট অংশ নিচ্ছে এবারের প্রতিযোগিতায়৷ বিশ্বের সবচেয়ে বড় মুসলিম অধ্যুষিত দেশ ইন্দোনেশিয়ায় বসেছে এবারের আয়োজন৷

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট সুসিলো ব্যামব্যাং ইয়োধোইয়োনো রাজনৈতিক বিধি নিষেধকে ক্রীড়াঙ্গনে প্রবেশ করতে না দেয়ার আহ্বান জানান৷ এসময় প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্য মিশর, সিরিয়া এবং ফিলিস্তিনের প্রতিযোগীদের বিশেষভাবে সম্মান জানান তিনি৷ এই আয়োজনের মধ্য দিয়ে বিশ্বের কাছে নিজেদের একাত্মতা প্রকাশের দৃষ্টান্ত তুলে ধরার আহ্বান জানান প্রেসিডেন্ট৷

সুমাত্রার দ্বীপশহর পালেমব্যাং-এর এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে চাকচিক্য তেমন একটা ছিল না৷ তহবিলের অভাবটা যেন আয়োজনের মধ্য দিয়ে স্পষ্ট হয়ে উঠেছিল৷

স্থানীয় আয়োজকরা জানালেন, কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে আয়োজনের পুরো অর্থ এখনও তারা পাননি৷ আয়োজক কমিটির সিনিয়র সদস্য জোকো প্রামোনো এএফপিকে জানিয়েছেন, পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করার জন্য সরকারি ও বিরোধী সব দলের প্রতি আহ্বান জানিয়েও ব্যর্থ হয়েছেন তারা৷

ভেন্যু পরিবর্তন ছাড়া আপাতত আরো কোনো সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে না প্রতিযোগিতাটি৷

সুমাত্রার রিয়াও থেকে রাজধানী জাকার্তায় ভেন্যু পরিবর্তনের পর সেখানকার কর্মকর্তাদের অভিযোগের পর পালেমব্যাং-এ নিয়ে যাওয়া হয়৷

ভেন্যু পরিবর্তনের কারণে আয়োজকদের হাতে দুই মাসেরও কম সময় থাকায় পরিকল্পনা মাফিক তারা কাজ করতে পারেননি বলে জানালেন প্রামোনো৷

ইসলামি সলিডারিটি গেমস প্রথম অনুষ্ঠিত হয় গত বছর সৌদি আরবে৷ সেখানে অবশ্য বিকিনি নিষিদ্ধ ছিল৷ আর নারী ও পুরুষদের ভিন্ন ভিন্ন দিনে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়েছিল৷ নারীদের সাঁতারে কোনো পুরুষ দর্শকের উপস্থিতি নিষিদ্ধ ছিল৷

3. Islamischen Spiele in Indonesien 22.09.2013

৪৬টি মুসলিম অধ্যুষিত রাষ্ট্রের ১৮শ অ্যাথলিট অংশ নিচ্ছে এবারের প্রতিযোগিতায়

বহু সমালোচনার পরও ইন্দোনেশিয়ায় অবশ্য এসব নিষেধাজ্ঞা রাখা হয়নি৷ কিছু দেশ নারী ও পুরুষদের ভিন্ন দিনে প্রতিযোগিতার আহ্বান জানালেও আয়োজকরা তা নাকচ করে দেন৷

প্রামোনো জানান, তারা মুসলিম আইন মেনে নয়, আন্তর্জাতিক আইন মেনেই প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছেন৷ তিনি আরো জানান, পোশাকের ব্যাপারে প্রতিযোগীদের সবধরনের স্বাধীনতা দেয়া হয়েছে৷ কেউ যদি ভলিবল খেলার সময় বোরকা বা মাথায় স্কার্ফ পড়তে চান তাহলে আয়োজকরা কোনো বাধা দেবেন না৷

ইন্দোনেশিয়ার অলিম্পিক কমিটির প্রধান রিতা সুবোয়ো এএফপিকে জানিয়েছেন, ইন্দোনেশিয়ার বিচ ভলিবল দল দু পিস কস্টিউম পড়েই খেলবে, কেননা আন্তর্জাতিক অলিম্পিক কমিটির দ্বারা এটি অনুমোদিত৷

রোববার বাস্কেটবল আর ফুটবল খেলার মধ্য দিয়ে প্রতিযোগিতার উদ্বোধন হয়েছে৷ আগামী দিনগুলোতে রয়েছে আরো ১১টি ইভেন্ট৷

তবে, প্যালেমব্যাং কমপ্লেক্স নিয়েও বেশ কিছু জটিলতা রয়েছে৷ ২০১১ সালে সাউথ ইস্ট এশিয়ান গেমস চলার সময় অ্যাথলিটদের অনেকেই এখানকার খাবার খেয়ে অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন৷ এমনকি একটি ভেন্যুতে পদপৃষ্ট হয়ে মারা গিয়েছিলেন দুই ফুটবল ভক্ত৷ তবে এবারের আয়োজন নিয়ে আয়োজকরা বেশ সন্তুষ্ট৷ অক্টোবরের ১ তারিখ পর্যন্ত চলবে এই প্রতিযোগিতা৷

এপিবি/জেডএইচ (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন