1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

ইন্দোনেশিয়

ইন্দোনেশিয়ার ‘সহনশীল ইসলামের ধারক’ পরিচয় ক্ষতিগ্রস্ত?

বিশ্বের সবচেয়ে বেশি মুসলমানের বাস ইন্দোনেশিয়ায়৷ সে দেশের রাজধানী জাকার্তার খ্রিষ্টান গভর্নরকে ব্লাসফেমির দায়ে মঙ্গলবার দুই বছরের কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে৷

গত সেপ্টেম্বরে নির্বাচনি প্রচারণা চালানোর সময় করা এক মন্তব্যের জন্য জাকার্তার প্রথম খ্রিষ্টান গভর্নর বাসুকি তিজাহাজা পুর্নামাকে এই শাস্তি দেয়া হয়৷ তিনি তাঁর রাজনৈতিক বিরোধীদের বিরুদ্ধে কোরানের একটি আয়াত ব্যবহার করে তাঁর (গভর্নর) বিরুদ্ধে ভোট দিতে নাগরিকদের উৎসাহিত করার অভিযোগ এনেছিলেন৷ সুরা আল মায়িদাহ'র ৫১ নম্বর আয়াতের কথা উল্লেখ করে তিনি দাবি করেছিলেন, প্রতিপক্ষ সাম্প্রদায়িকতা ছড়াচ্ছে

গভর্নর পুর্নামার বক্তব্যের একটি ভিডিও অনলাইনে ছড়িয়ে পড়লে তাঁর বিরুদ্ধে ব্লাসফেমির অভিযোগে বিক্ষোভ শুরু করেন কট্টর মুসলিমরা৷ পরে গভর্নর নির্বাচনে পুর্নামার বিরুদ্ধে দাঁড়ানো মুসলিম প্রার্থীর দলের সমর্থকরা বিক্ষোভে সমর্থন দেন৷ গত মাসে অনুষ্ঠিত ঐ নির্বাচনে হেরে যান পুর্নামা৷

ভিডিও দেখুন 02:47

ইন্দোনেশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাক্ষাৎকার

তবে পুর্নামা সেই সময় বলেছিলেন, ভিডিওতে তাঁর পুরো বক্তব্য প্রচার করা হয়নি৷ ব্লাসফেমির অভিযোগও তিনি অস্বীকার করেন৷ তারপরও তাঁর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলতে থাকে৷ এক পর্যায়ে পুর্নামার বিরুদ্ধে মামলা শুরু হলে বিচারকাজ শেষে আইনজীবীরা পুর্নামাকে দুই বছরের ‘প্রবেশন' অর্থাৎ অবেক্ষণ দেয়ার প্রস্তাব করেন৷ এর মানে হচ্ছে, এই দুই বছরের মধ্যে পুর্নামা আবারও ব্লাসফেমির মতো অপরাধ করবেন না এই শর্তে তাঁকে মুক্তি দেয়া যেতে পারে৷ কিন্তু চূড়ান্ত রায়ে পাঁচ বিচারকের একটি প্যানেলে পুর্নামার বিরুদ্ধে দুই বছরের কারাদণ্ড দেন৷

বিচারক প্যানেল সাধারণত আইনজীবীদের প্রস্তাব অনুযায়ী রায় দিলেও এই ক্ষেত্রে সেটি না হওয়ায় বিশ্লেষকরা মনে করছেন, পুর্নামার রাজনৈতিক বিরোধীরা দুর্নীতিগ্রস্ত বিচার ব্যবস্থার উপর চাপ প্রয়োগ করায় এমন রায় এসেছে৷

প্রতিক্রিয়া

জাতিসংঘ এই রায়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে ইন্দোনেশিয়াকে ব্লাসফেমি আইন সংস্কার করার আহ্বান জানিয়েছে৷ ইউরোপীয় ইউনিয়ন ‘দীর্ঘদিন ধরে সহনশীলতা ও প্লুরালিজম ধরে রাখার ঐতিহ্যের' ধারবাহিকতা রক্ষা করতে জাকার্তার প্রতি আহ্বান জানিয়েছে৷ 

এদিকে, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল মনে করছে, ‘‘এই রায় সহনশীল ইন্দোনেশিয়ার পরিচয়কে ক্ষতিগ্রস্ত করবে৷''

হিউম্যান রাইটস ওয়াচের ইন্দোনেশিয়া বিষয়ক গবেষক আন্দ্রেয়াস হার্সোনো বলছেন, ‘‘ইন্দোনেশিয়ায় ধর্মীয় স্বাধীনতা ধীরে ধীরে কমে যাওয়ার পথে এটি আরেকটি বড় ধাপ৷''

ডয়চে ভেলের টোমাস লাচান গভর্নরের বিরুদ্ধে দেয়া এই রায়কে ইন্দোনেশিয়ার জন্য ভয়ংকর সংকেত বলে মন্তব্য করেছেন৷ দেশটির রাজনীতিতে ব়্যাডিক্যাল ইসলামপন্থিদের প্রভাব কতটা, তা এই রায় দেখিয়ে দিয়েছে বলে মনে করছেন তিনি৷

মঙ্গলবার রায় হওয়ার পর পুর্নামাকে জেলে পাঠিয়ে দেয়া হয়৷ সেখান তাঁর সমর্থকরা উপস্থিত হলে বুধবার সকালে তাঁকে জাকার্তার বাইরে একটি উচ্চ নিরাপত্তা বিশিষ্ট কারাগারে সরিয়ে নেয়া হয়৷

পুর্নামার মুক্তির দাবিতে তাঁর সমর্থকরা বুধবার জাকার্তায় বিক্ষোভ করেছে৷

জেডএইচ/এসিবি (এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও