1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

ইন্দোনেশিয়ায় হুমকির মুখে সমকামী চলচ্চিত্র উৎসব

মঙ্গলবার মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ ইন্দোনেশিয়ার কট্টরপন্থী মুসলিম দল ‘ইসলামিক ডিফেন্ডারস ফ্রন্ট’ বা এফপিআই সেদেশের বেশ কয়েকটি বিদেশি সংস্কৃতি কেন্দ্রের সামনে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে৷

Islamic Defenders Front (FPI)

এফপিআইএর সমর্থকরা

তাদের এই উষ্মা আর ক্ষোভের মূল কারণ হচ্ছে ইন্দোনেশিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য একটি চলচ্চিত্র উৎসব৷ সমকামী বিষয়টিকে ঘিরেই এবারের এই চলচ্চিত্র উৎসবটি আয়োজিত হয়েছে৷

কট্টরপন্থী মুসলিম দল হিসেবে পরিচিত এফপিআই এর বিক্ষোভকারীরা দাবি জানিয়েছে যে, জার্মানির গ্যোটে ইন্সটিট্যুট এবং ফ্রান্সের সংস্কৃতি কেন্দ্র যেন অবিলম্বে এই সব চলচ্চিত্র প্রদর্শন বন্ধ করে৷ দলের প্রতিনিধি আউয়িত মাশুরি বলেন, ‘‘আমাদের মতে, আপনারা এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে সুপরিকল্পিতভাবে ইন্দোনেশিয়ার যুবসমাজ – বিশেষ করে মুসলিম যুবসমাজকে ধ্বংস করতে চাইছেন৷ আপনারা চান, তারা যেন মুক্ত যৌন জীবন, ব্যভিচার, সমকামী জীবনযাত্রা গ্রহণ করে৷''

উল্লেখ্য, গ্যোটে ইন্সটিট্যুট এবং ফ্রান্সের সংস্কৃতি কেন্দ্র ও স্থানীয় সমকামীদের একটি প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগে এই চলচ্চিত্র উৎসবের প্রদর্শনী শুরু হওয়ার কথা৷ এছাড়াও এফপিআই এর বিক্ষোভ প্রদর্শনের আরেকটি কারণ হচ্ছে- এই প্রতিষ্ঠান দুটি সমকামী চলচ্চিত্র উৎসবে আর্থিক সহায়তা দেওয়া ৪ বিদেশি প্রতিষ্ঠানের অন্যতম৷

Christopher-Street-Day parade

জার্মানিতে সমকামীদের মিছিল

সমকামী এই চলচ্চিত্র উৎসব বন্ধে ইন্দোনেশিয়ার এই কট্টরপন্থী দলটি একেবারে আদাজল খেয়ে নেমেছে বলেই ধারণা করা হচ্ছে৷ এফপিআই এর মনোভাব সম্পর্কে যে খবর মিলেছে তাতে বোঝা যাচ্ছে, তারা যে কোন মূল্যেই এই চলচ্চিত্র উৎসবটিকে এবারে ঠেকিয়ে দিতে চাইছে৷ ইন্দোনেশিয়ায় এর আগেও এফপিআই সেদেশের পানশালাগুলোতে হামলা করেছিল৷ এফপিআইএর বক্তব্য হচ্ছে – এই পানশালাগুলো আদতে মাদক বিক্রি আর বেশ্যাবৃত্তির আখড়া৷

সেবারের সেই পানশালা আক্রমণের পর এবারে এই সমকামী চলচ্চিত্র উৎসব ঠেকাতে নাকি এফপিআই বেশ জোরে সোরেই মাঠে নেমেছে৷ তাদের বক্তব্য হচ্ছে – যেভাবেই হোক তারা এই অনাসৃষ্টি ইন্দোনেশিয়ায় চলতে দেবে না৷ এদিকে এফপিআই এর হুমকি, বিক্ষোভ আর আপত্তির প্রবল চাপ সত্ত্বেও উৎসব আয়োজকরা বেশ দৃঢ় প্রতিজ্ঞ ভাবই দেখাচ্ছেন৷ সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য এই সমকামী চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজকরা টুইটারে পাঠানো এক বার্তায় জানিয়েছেন যে, চলচ্চিত্র উৎসবটি নির্ধারিত সময়ে উদযাপন করতে যা যা করা প্রয়োজন তা তারা করবেন৷ এই উৎসব সফলভাবে সম্পন্ন করতে তারা বদ্ধপরিকর৷

জানা গেছে, ইন্দোনেশিয়ার ৫ টি বড় শহরে এই চলচ্চিত্র উৎসবটি আয়োজিত হতে যাচ্ছে৷ দর্শক-শ্রোতাদের সুবিধার জন্য প্রদর্শনীর চলচ্চিত্রগুলো বাহাসা ইন্দোনেশিয়ায় ভাষান্তর করা হয়েছে৷

উল্লেখ্য, অনুষ্ঠিতব্য এই ‘সমকামী' চলচ্চিত্র উৎসবটি দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ায় এজাতীয় বৃহত্তম চলচ্চিত্র উৎসব এবং মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ হিসেবে ইন্দোনেশিয়াতেই প্রথমবারের মত এধরণের সমকামী চলচ্চিত্র উৎসব আয়োজিত হতে যাচ্ছে৷

‘সমকামী' চলচ্চিত্র উৎসব নিয়ে কট্টরপন্থী মুসলিম দল এফপিআই বিক্ষুব্ধ হলেও ইন্দোনেশিয়ায় পুরুষদের ক্ষেত্রে সমকামীতা তেমন কোন দোষের কিছু নয়৷ অন্তত এখানকার সংস্কৃতি বিষয়টি মোটামুটি সহ্যই করে নেয়৷

প্রতিবেদন: হুমায়ূন রেজা

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন