1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিজ্ঞান পরিবেশ

ইতিহাস-সমৃদ্ধ শহর ইয়র্ক

ব্রিটেন বললেই কি লন্ডন ছাড়া অন্য শহরের কথা মনে পড়ে না? অথচ দেশটিতে অন্য অনেক শহর আছে, যেখানে ইতিহাসের অভিনব সব প্রভাব খুঁজে পাওয়া যায়৷ যেমন ইয়র্ক৷ ছোট্ট এই শহরেই রয়েছে নানা যুগের ছাপ৷

ইয়র্ক শহরে ঢোকার পথ ‘বার'-এর ভিতর দিয়ে – শহরের প্রাচীন তোরণগুলিকে এই নামেই ডাকা হয়৷ মোট ছ'টি এমন তোরণ রয়েছে, যেগুলি প্রায় ২,০০০ বছরের ইতিহাসের প্রবেশপথ৷ ইয়র্ক শহরে নানা যুগের নিদর্শনগুলি অত্যন্ত ভালোভাবে সংরক্ষণ করা হয়েছে৷ রয়েছে মধ্যযুগ, ক্ল্যাসিক যুগের অনেক চিহ্ন৷

প্রায় পাঁচ কিলোমিটার দীর্ঘ, ইংল্যান্ডের দীর্ঘতম প্রাচীরের উপর দিয়ে হাঁটাও যায়৷ অ্যালেক্স ডোনাল্ডসন ইয়র্ক শহরে ইতিহাস নিয়ে পড়াশোনা করছেন৷ অবসর সময়ে ২০ বছর বয়স্ক এই তরুণ ‘ফুটপ্রিন্ট টুর্স' কোম্পানিতে পর্যটকদের গাইড হিসেবে কাজ করেন৷ অ্যালেক্স বলেন, ‘‘একটি মাত্র জায়গায় এত ইতিহাসের সমন্বয় ইয়র্ক-এর মতো কোথাও দেখা যায় না৷ ভাইকিং, রোমান, মধ্যযুগ, নরমান – ছোট্ট এই জায়গায় সবার চিহ্ন রয়েছে৷ ইয়র্ক ছোট শহর, মিনিট পনেরোর মধ্যেই প্রায় সব জায়গায় হেঁটে পৌঁছানো যায়৷''

শহরের বিখ্যাত স্থানগুলির মধ্যে রয়েছে ক্লিফোর্ডস টাওয়ার – এককালে যা একটা দূর্গ ছিল৷ আর আছে ইয়র্ক মিনস্টার৷ অ্যালেক্স বলেন, ‘‘এটি উত্তর ইউরোপের সবচেয়ে বড় গথিক ক্যাথিড্রাল, প্রায় ২০০ ফুট উঁচু৷ একমাত্র জার্মানির কোলন শহরের ক্যাথিড্রাল এর চেয়ে লম্বা৷ কিন্তু আকার-আয়তনের দিক থেকে ইয়র্ক-এর এই গির্জা সবচেয়ে বড়৷ বিশাল এই কাঠামো তার ওজনের ভারে প্রতি বছর একটু করে বসে যাচ্ছে৷''

ইয়র্ক মিনস্টার গির্জা প্রায় আড়াইশো বছর নির্মাণের পর ১৪৭২ সালে উদ্বোধন করা হয়৷ দান ও প্রবেশমূল্যের অর্থে এটি চালু রাখা হয়েছে৷

দু'লক্ষ জনসংখ্যার এই শহরের আরেকটি বিশেষত্ব হলো মধ্যযুগের আমলের সরু অলিগলি, যাদের ‘স্নিকেলওয়েস' বলা হয়৷ এর মধ্যে একটির নাম ‘দ্য শ্যাম্বেলস'৷ এককালে এখানে অনেক কসাইয়ের দোকান ছিলো৷ এখন এই গলির অদ্ভুত স্থাপত্যরীতি পর্যটকদের কাছে এক বিশাল আকর্ষণ৷ অ্যালেক্স বলেন, ‘‘দ্য শ্যাম্বেলস – গলিটি যে একটু এলোমেলো, তার একটা ভালো কারণ রয়েছে৷ টিউডর আমলের শুরুতে একটি কর চালু করা হয়েছিলো৷ নীচের তলার আয়তন অনুযায়ী গৃহকর দিতে হতো৷ তাই কর এড়াতে বা তার অঙ্ক কম করতে নীচের তলার আয়তন যতটা সম্ভব কম রাখা হতো৷ তার পরের তলাগুলি বড়ো করে তৈরি করা হতো৷ তাই এমন সুন্দর আকারের সব বাড়ি তৈরি হয়েছে, যা এই পথটিকে ‘আইকন' করে তুলেছে৷''

এমন সরু গলি পেরিয়ে শান্তির খোঁজ করলে যেতে হবে হাওয়ার্ডিয়ান হিলস-এ, গাড়িতে ইয়র্ক শহর থেকে প্রায় ২০ মিনিট দূরে৷ ‘এরিয়া অফ আউটস্ট্যান্ডিং বিউটি' তকমাধারী এই এলাকা ঘুরে দেখতে এক দিন সময় লেগে যায়৷ এখানে রয়েছে সুন্দর কিছু ‘কান্ট্রি হাউস'৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়