1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ইচ্ছে করে সবচেয়ে বিষধর সাপের কামড় খাওয়া!

টাইপ্যান আর ব্ল্যাক মাম্বা – এই দু'টি সাপের কোনো একটি কাউকে কামড়ালে কয়েক মিনিটের মধ্যে তার মৃত্যু হওয়ার কথা৷ অথচ টিম ফ্রিডি এই দুই সাপের কামড় খেয়ে এখনও বেঁচে আছেন!

৩৭ বছরের এই মার্কিন নাগরিক টাইপ্যান আর ব্ল্যাক মাম্বাকে দিয়ে নিজ ইচ্ছেতেই তাঁর হাতে কামড় খাইয়েছেন৷ এটি নাকি তাঁর গবেষণার একটি অংশ৷ এভাবে সাপের বিষের ভ্যাকসিন তৈরি করতে চান শৌখিন এই বিজ্ঞানী৷

সেই লক্ষ্যে গত ১৬ বছর ধরে প্রায় ১৬০ বার বিষধর সাপের কামড় খেয়েছেন তিনি৷ গত জানুয়ারি মাসে টিম ফ্রিডির সাপের কামড় খাওয়ার দৃশ্য সম্বলিত একটি ভিডিও ইউটিউবে আপলোড করা হয়৷ এখন পর্যন্ত (২০-০৪-২০১৬) সেটি দেখা হয়েছে প্রায় ২৯ লক্ষ বার৷

আজব এই নেশার কারণে টিম ফ্রিডিকে ছেড়ে গেছেন তাঁর স্ত্রী৷ প্রায় ২০ বছর পর গত অক্টোবরে তাঁরা নিজেদের মধ্যে সম্পর্ক ছিন্ন করেন৷ তাঁদের দুই সন্তান রয়েছে৷

ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুজীব বিজ্ঞানী ড. ব্রায়ান হানলে টিম ফ্রিডিকে পরীক্ষা করে দেখেছেন যে, তাঁর শরীরে এখন অ্যান্টিবডির সংখ্যা স্বাভাবিকের দ্বিগুণ৷

সাপের কামড় খেতে গিয়ে ২০১১ সালে একবার কোমায় চলে গিয়েছিলেন টিম ফ্রিডি৷ সেবার পরপর দু'বার কোবরা সাপের কামড় খেয়েছিলেন তিনি৷ ‘‘প্রথম কামড়ে পর সব ঠিক ছিল৷ কিন্তু দ্বিতীয় কামড়ের পর অজ্ঞান হয়ে যাই'', জানান ফ্রিডি৷ তিনি বলেন, ‘‘ওটা একটা বড় ভুল ছিল৷ কিন্তু কখনও কখনও আপনাকে ওরকম ভুল করতে হয়৷''

উল্লেখ্য, সাপের কামড়ে বিশ্বে সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা যায় ভারতে৷ দেশটির সরকারের এক হিসাবে জানা যায়, সেখানে প্রতিবছর গড়ে প্রায় ৪৬ হাজার মানুষ প্রাণ হারায়৷ বাংলাদেশের ক্ষেত্রে সংখ্যাটি ৬ হাজার বলে ২০১৪ সালে সংসদে জানিয়েছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক৷

জেডএইচ/ডিজি (ডেইলি মেইল, আইবিটি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়