1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ইকুয়েডরে ভূমিকম্পে মৃতের সংখ্যা বাড়ছে

এবার ইকুয়েডরে হয়ে গেল ভয়াবহ ভূমিকম্প৷ দক্ষিণ অ্যামেরিকার দেশটিতে এ পর্যন্ত কমপক্ষে ২৭২ জন মারা গেছে৷ রাষ্ট্রীয় সফর বাতিল করে দেশে ফিরে ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন, মৃতের সংখ্যা অনেক বাড়তে পারে৷

গত সপ্তাহে জাপানে হানা দিয়েছিল ভূমিকম্প৷ ভূমিকম্প পর্যবেক্ষকরা বলছিলেন, আরো এক সপ্তাহ আতঙ্কেই থাকতে হাবে এশিয়ার এই দেশকে৷ তবে রোববার ভোরে জাপান নয়, ভূমিকম্প দানবের মতো আবির্ভূত হয় দক্ষিণ আমেরিকার দেশ ইকুয়েডরে৷

৭ দশমিক ৪ মাত্রার ভূমিকম্প শুরু হলেও পরে মাত্রা আরো বেড়ে ৭ দশমিক ৮ হওয়ায় বাড়ি-ঘর ধসে পড়তে থাকে৷ মানুষ চাপা পড়তে থাকে ভবনের নীচে৷ পরিণামে ভোরের ঘুম এ পর্যন্ত ২৭২ জনের চিরনিদ্রা হয়েছে৷

ভ্যাটিকান সফর বাতিল করে দেশে ফিরে এসেছেন ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট রাফায়েল কোরেয়া৷ ফিরেই ছুটে গেছেন উপদ্রুত এলাকায়৷ ভয়াবহ মানবিক বিপর্যয় সচক্ষে দেখে তিনি বলেছেন, ‘‘যা ঘটে গেল তার যন্ত্রণাটা বিশাল৷ অতি বিশাল ট্র্যাজেডি৷ আমরা তারপরও নিশ্চয়ই সামনে এগিয়ে যাওয়ার উপায় খুঁজে পাবো৷'' নিহতদের স্বজনদের প্রতি সমবেদনা জানাতে গিয়ে ইকুয়েডরের প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘‘আমরা সবই পুনির্মাণ করতে পারবো৷ শুধু যাঁরা চলে গেলেন তাঁদের জীবন কখনো ফিরিয়ে আনতে পারবো না৷ সেটাই আমাদের সবচেয়ে বড় ক্ষতি৷''

ভূমিকম্পে সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে মান্তা, পোর্টোভিয়েও এবং গুয়াকুইল শহরে৷ উদ্ধার তৎপরতা এখনো চলছে৷ ভবনের নীচে চাপা পড়াদের তাঁদের স্বজনরা খালি হাতে উদ্ধারের চেষ্টা করছেন – এমন মর্মান্তিক দৃশ্যের ছবিও প্রকাশ করেছে সংবাদমাধ্যম৷

আবার মা এবং তাঁর শিশু কন্যাকে উদ্ধার করতে পেরে পুলিশ নিজে থেকেই সেই সুসংবাদ টুইট করে জানাচ্ছে সবাইকে৷

এরই মাঝে বাড়তি আতঙ্ক হয়ে উঠেছে ভূমিকম্পের সুযোগে এক কারাগার থেকে কয়েদিদের পালিয়ে যাবার খবর৷ পোর্টোভিয়েওর কারাগার থেকে পালিয়ে যায় শতাধিক কয়েদি৷ পুলিশ জানিয়েছে ৩০ জন আত্মসমর্পন করে কয়েদখানায় ফিরলেও বাকিদের এখনো পাওয়া যায়নি৷

এসিবি/ডিজি (এপি, এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়