ইউসেইন বোল্ট মরসুম শেষ করলেন | খেলাধুলা | DW | 26.08.2014
  1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

ইউসেইন বোল্ট মরসুম শেষ করলেন

শনিবার ওয়ারশ’য় ইতিহাসের দ্রুততম ইনডোর ১০০ মিটার দৌড়নোর পর এ বছর বোল্ট আর ট্র্যাকে নামছেন না, অন্তত প্রতিযোগিতার জন্য নয়৷ তাঁর চোখ এবার ২০১৫ সালের বেইজিং এবং ২০১৬ সালের ব্রাজিলের দিকে৷

default

অ্যাথলেটিক্সের ইতিহাসে নিজের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখার মতো সোনা তো এখনই বোল্টের ভাঁড়ারে রয়েছে

ইউসেইন বোল্ট চলতি সিজনটা শুরুই করেন পায়ের পাতার আর পায়ের ডিমের চোট নিয়ে৷ এ মরসুমে তিনি দৌড়েছেন – মানে প্রতিযোগিতায় অংশ নিয়েছেন – মাত্র তিনবার: গ্লাসগোর কমনওয়েল্থ গেমস-এ স্বদেশ জামাইকার হয়ে ‘চারবার ১০০ মিটার' রিলেতে অংশ নিয়েছেন; দ্বিতীয়ত, রিও ডি জানেরোর সুবিখ্যাত কোপাকাবানা সৈকতে একটি প্রদর্শনী ১০০ মিটার দৌড়ে অংশ নিয়েছেন; তৃতীয়ত, শনিবার ওয়ারশ'য় ইনডোর ১০০ মিটার দৌড়৷ বলা বাহুল্য, তিনটি দৌড়েই জিতেছেন ইউসেইন বোল্ট৷

ওয়ারশ'য় রেকর্ড সময়ে জেতার একদিন পরেই বোল্টের কোচ গ্লেন মিলস ঘোষণা করলেন – এবং বোল্টের ম্যানেজার রিকি সিম্স সেই ঘোষণার যাথার্থতা নিশ্চিত করলেন – যে, বোল্ট আর এই সিজনে প্রতিযোগিতামূলক দৌড়ে নামছেন না৷

Leichtathletik WM 2013 Moskau Usain Bolt

‘‘বোল্ট নামছেন শুনলে স্টেডিয়ামে মানুষ ধরে না৷ আর বোল্ট বাদে? সে দুঃখের কথা না হয় না-ই শুনলেন’’

প্রসঙ্গত, ওয়ারশ'র জাতীয় ফুটবল স্টেডিয়ামে বোল্ট ১০০ মিটার দৌড়ন ৯ দশমিক ৯৮ সেকেন্ডে, যা কিনা একটা ইনডোর রেকর্ড৷ অপরদিকে এ-ও সত্য যে, তিনটি দৌড়ের কোনো দৌড়েই বোল্টকে ঝলসে উঠতে দেখা যায়নি, রূপকথার বেড়াল জাদু বুট পা'য়ে দিয়ে যেরকম মাইল জোড়া পা ফেলে, সেরকম ভাবে ‘উড়ে' যেতে দেখা যায়নি৷ এ বোল্ট যেন বাকি দৌড়বীরদের মতোই মর্ত্যের মানুষ, নশ্বর অ্যাথলিট৷ বলতে কি, এ বছর বোল্ট প্রথমবার ১০ সেকেন্ডের কমে ১০০ মিটার দৌড়লেন ঐ ওয়ারশ'তেই!

অতঃপর বোল্ট নির্দ্বিধায় মরসুমের বাদবাকি দৌড় বাতিল করলেন, ওদিকে এই বৃহস্পতিবারেই তাঁর জুরিখে আইএএএফ-এর ডায়মন্ড লিগ ফাইনালে দৌড়নোর কথা৷ জুরিখের উদ্যাক্তারা জানিয়েছেন, ম্যানেজার গ্লেন মিলস ‘‘মনে করেন যে, (বোল্ট) সুস্থ এবং চোট-মুক্ত থাকা অবস্থাতেই (মরসুম) শেষ করা উচিত'': ভাগ্যিস সাংবাদিকরা জুরিখ ‘মিট'-এর পরিচালক প্যাট্রিক ম্যাজিয়ারকে জিজ্ঞাসা করেননি, ‘তবে আপনার মুখ অতো বেজার কেন?' উত্তরটা সোজা: বোল্ট নামছেন শুনলে স্টেডিয়ামে মানুষ ধরে না৷ আর বোল্ট বাদে? সে দুঃখের কথা না হয় না-ই শুনলেন৷

তবুও ম্যাজিয়ার দেখিয়েছেন তিনি সমঝদার ও সহানুভূতিশীল: ‘‘ইউসেইন-এর দেহ বিগত কয়েক বছরে দারুণ সব পার্ফর্মেন্স দেখিয়েছে৷ কিন্তু ওটা একটা শরীরই, কোনো যন্ত্র নয়৷ ঐ পর্যায়ের একজন অ্যাথলিট আর তাঁর কোচ যদি মনে করেন যে, আরো বিশ্রাম প্রয়োজন, তাহলে আমরা নিশ্চয় তা নিয়ে প্রশ্ন তুলব না এবং এই সিদ্ধান্তে পুরোপুরি মদত দেব৷'' কাজেই বিশ্বের দ্রুততম মানুষটি সেপ্টেম্বরে স্পন্সরিং-এর কাজকর্ম নিয়ে দিন কাটানোর পর অক্টোবর থেকে আবার ট্রেনিং শুরু করবেন, বলে জানিয়েছেন তাঁর কোচ৷

২০১৫ সালে আসছে বিশ্ব অ্যাথলেটিক চ্যাম্পিয়নশিপ – বেইজিংয়ে, যেখানকার ‘পাখির বাসা' স্টেডিয়ামে তিনি ২০০৮ সালে তিনবার সোনা জিতেছিলেন এবং একাধিক বিশ্বরেকর্ড স্থাপন করেছেন৷ ২০১৫ গেলে আসছে ২০১৬, এবং রিও অলিম্পিক্সে আরো তিনটি সোনা সংগ্রহ করার আশা৷ অবশেষে ২০১৭ সালে লন্ডনের বিশ্ব অ্যাথলেটিক চ্যাম্পিয়নশিপে ক্যারিয়ার শেষ করার পরিকল্পনা রাখেন ইউসেইন বোল্ট: তখন তাঁর বয়স হবে ৩১৷ অ্যাথলেটিক্সের ইতিহাসে নিজের নাম স্বর্ণাক্ষরে লেখার মতো সোনা তো এখনই তাঁর ভাঁড়ারে রয়েছে৷

এসি/ডিজি (এপি, রয়টার্স, ডিপিএ)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়