1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

ইউরোপের অর্থনীতি এখনো নাজুক: ইয়ুংকার

ব্যাংকের সংকট গোটা ইউরোপের অর্থনীতির উপর যাতে আর কুপ্রভাব ফেলতে না পারে, পর্তুগাল ঠিক সময়ে হস্তক্ষেপ করে সেটা নিশ্চিত করেছে৷ এদিকে ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক বা ইসিবি ইউরোপীয় অর্থনীতিকে চাঙ্গা করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে৷

পর্তুগালের সরকার বিইএস ব্যাংকের জন্য ৫০০ কোটি ইউরো বেলআউটের ঘোষণা করায় বাজারে স্বস্তি ফিরেছে৷ দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক বিইএস-এর নিয়ন্ত্রণও নিজেদের হাতে তুলে নিয়েছে৷ ফলে চলতি সপ্তাহের শুরুতে ইউরোপের পুঁজিবাজার বেশ চাঙ্গা হয়ে উঠেছিলো৷ সামগ্রিকভাবে ইউরোজোন পার্চেজিং ম্যানেজার ইনডেক্স বা পিএমআই গত তিন বছরের মধ্যে সবচেয়ে উঁচু মাত্রায় পৌঁছেছে, যা অবশ্যই একটা সুখবর৷ তবে ইউক্রেন সংকটকে কেন্দ্র করে রাশিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা নিয়ে দুশ্চিন্তা কাটছে না৷ জার্মানির বেশ কিছু কোম্পানি এরই মধ্যে নেতিবাচক প্রভাবের কথা বলছে৷ জার্মানির পুঁজিবাজারে সোমবার এ কারণে কিছুটা দরপতন ঘটেছিল৷

এদিকে ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গুরুত্বপূর্ণ এক বৈঠকের আগে ইউরোর বিনিময় মূল্য কিছুটা কমে গেছে৷ তবে বৃহস্পতিবারের বৈঠকে ইসিবি সুদের হারে কোনো পরিবর্তন করবে না বলেই ধরে নেওয়া হচ্ছে৷

Symbolbild 500 Euro Schiene

পর্তুগালের সরকার ৫০০ কোটি ইউরো বেলআউটের ঘোষণা করায় বাজারে স্বস্তি ফিরেছে

অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে জুন মাসে তারা যে সব পদক্ষেপ ঘোষণা করেছিল, আপাতত তার প্রভাব বিশ্লেষণ করা হচ্ছে৷ ইউক্রেন ও রাশিয়া সংকট ইউরোপের অর্থনীতির উপর কোনো বড় প্রভাব ফেলছে কিনা, সে দিকেও লক্ষ্য রাখছে ইসিবি৷

অন্যদিকে ‘ডিফ্লেশন' বা মূল্যহ্রাসের প্রবণতা কাটার কোনো লক্ষণ এখনো দেখা যাচ্ছে না৷ সাম্প্রতিক তথ্য অনুযায়ী জুলাই মাসে ইউরো এলাকায় মূল্যস্ফীতির হার কমে দাঁড়িয়েছে ০.৪ শতাংশে৷ গত সপ্তাহে ইউরো এলাকার ব্যাংকগুলি ব্যবসায়িক প্রতিষ্ঠানগুলির জন্য ঋণের নিয়ম শিথিল করায় কিছুটা আশার আলো দেখা যাচ্ছে৷ তবে শেষ পর্যন্ত কোনো ফল না পেলে ইসিবি ‘অ্যাসেট পারচেজ' কর্মসূচি শুরু করবে বলে মনে করছেন কিছু বিশেষজ্ঞ৷

ইউরোপীয় কমিশনের আগামী প্রেসিডেন্ট জঁ ক্লোদ ইয়ুংকার বলেছেন, ইউরোপকে অর্থনৈতিক সংকট সম্পর্কে সতর্ক থাকতে হবে৷ তাঁর মতে, বর্তমান সংকট কাটিয়ে তুলতে অনেক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে বটে, কিন্তু ঝুঁকি পুরোপুরি কেটে যায় নি৷ পর্তুগালের বিইএস ব্যাংকের সংকট সেটা আবার মনে করিয়ে দিলো৷ পর্তুগাল ও গ্রিসের মতো দেশের অর্থনৈতিক পরিস্থিতি যে এখনো বেশ নাজুক, তা ভুললে চলবে না, বলেন ইয়ুংকার৷ গ্রিসের সংস্কার কর্মসূচির প্রশংসাও করেন তিনি৷ স্পেনের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, প্রত্যাশার তুলনায় অর্থনীতির উন্নতি অনেক ভালোভাবেই এগোচ্ছে৷

এসবি/ডিজি (ডিপিএ, রয়টার্স, এএফপি, এপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন