1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

ইউরো’কে বাঁচাতে আপদকালীন উদ্যোগ

ইউরোপীয় অভিন্ন মুদ্রা ইউরো’র অভূতপূর্ব সঙ্কটের মোকাবিলা করতে চলতি সপ্তাহান্তে ইউরো এলাকার শীর্ষ নেতারা সর্বশক্তি প্রয়োগ করে সমাধানসূত্র খুঁজছেন৷

default

ইউরোপের সামনে আজ বিশাল চ্যালেঞ্জ

বিষয়টি আর গ্রিসের আর্থিক সঙ্কটের মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই৷ গোটা ইউরোপ সামগ্রিকভাবে আর্থিক ও অর্থনৈতিক অস্তিত্বের সঙ্কটের মুখ পড়েছে৷ পরিস্থিতির গুরুত্ব তাই এমন এক পর্যায়ে চলে গেছে, যে পরাজয় কোন বিকল্প হতে পারে না৷ শনিবার ভোররাতে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নিকোলা সার্কোজি বলেন, এই মুহূর্তে ইউরোপের চালিকা শক্তি হিসেবে ফ্রান্স ও জার্মানির সম্মিলিত ও দৃঢ় উদ্যোগের প্রয়োজন৷

প্রথমে গ্রিসের আর্থিক সঙ্কট, তারপর দীর্ঘ টালবাহানার পর ইউরোপীয় স্তরে গ্রিসের জন্য সাহায্যের কর্মসূচি ঘোষণা, তারপর শেয়ার বাজারে ধস এবং সর্বোপরি ইউরো'র পড়ে চলা বিনিময়মূল্য – সম্প্রতি একের পর এক বিপর্যয় ঘটে চলেছে৷ সোমবার শেয়ার বাজার খোলার আগেই ইউরোপের নেতারা আন্তর্জাতিক আর্থিক বাজারের কাছে দেরিতে হলেও একটি স্পষ্ট বার্তা পাঠাতে চান – আর তা হলো, কোনো সদস্য দেশ দুর্বল হয়ে পড়লেও ইউরোপীয় ইউনিয়ন সঙ্ঘবদ্ধভাবে তাকে রক্ষা করবে৷ উল্লেখ্য, গ্রিসের পর বাজারে স্পেন ও পর্তুগালের আর্থিক দুর্বলতার আশঙ্কা ছড়িয়ে পড়তে থাকে৷ ইউরোগ্রুপের প্রধান ও লুক্সেমবুর্গের প্রধানমন্ত্রী জঁ-ক্লোদ ইয়ুঙ্কার এই প্রবণতাকে ইউরোর বিরুদ্ধে বিশ্বব্যাপী সুপরিকল্পিত হামলা হিসেবে বর্ণনা করেন৷ তিনি বলেন, ‘‘আমাদের মনে হচ্ছে, গোটা ইউরো এলাকাই হামলার মুখে পড়েছে৷ রবিবার রাতের মধ্যে আমাদের এই সব অনৈতিক হামলার জবাব দিতে হবে৷ গোটা ইউরো এলাকা এবং ইউরোপীয় ইউনিয়নকে সমবেতভাবে এই কাজ করতে হবে৷''

Griechenland / Finanzkrise / Papakonstantinou / Juncker

গ্রিক অর্থমন্ত্রী জিয়র্জিয়স পাপাকনস্তানতিনু (বামে) ও ইউরোগ্রুপ’এর প্রধান ইয়ুঙ্কার (ডানে)

ইউরো এলাকার কোনো দেশকে সাহায্য করার পথ ইউরোর জন্মলগ্নেই কার্যত বন্ধ করে দেওয়া হয়েছিল – উদ্দেশ্য ছিল, সহায়তার আশ্বাসকে সম্বল করে সদস্য দেশগুলি যাতে বল্গাহীন আর্থিক নীতি গ্রহণ করতে না পারে৷ চলতি সপ্তাহান্তে গোটা বিষয়টিকে নতুন করে ভেবে দেখতে হচ্ছে৷ ইউরো চুক্তির ১২২ ধারাকে সম্বল করে একটি সমাধানসূত্র খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে৷ ঐ ধারা অনুযায়ী কোনো সদস্য দেশ হুমকির মুখে পড়লে সহায়তা করা যেতে পারে৷ আপদকালীন পরিস্থিতিতে দ্রুত ও দৃঢ় পদক্ষেপ নেওয়ার ব্যবস্থার কথা শোনা যাচ্ছে৷ ইউরো এলাকার স্থিতিশীলতার স্বার্থে সব প্রতিষ্ঠান যাতে সম্ভাব্য সব পদক্ষেপ গ্রহণ করতে পারে, সেই পথ খুলে যাওয়ার প্রস্তাব রাখা হচ্ছে৷ সেইসঙ্গে রাষ্ট্রীয় বাজেট ঘাটতি ও আর্থিক বাজারের নিয়ম আরও কড়া করতে চান ইউরোপীয় নেতারা৷

প্রতিবেদন: সঞ্জীব বর্মন
সম্পাদনা: জাহিদুল হক

সংশ্লিষ্ট বিষয়