1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

ইউক্রেন সংকটের ফলে পুঁজিবাজার উত্তাল

রাশিয়ার উপর নিষেধাজ্ঞা চাপানো নিয়ে আন্তর্জাতিক স্তরে আলোচনা চলছে৷ ফলে ইউক্রেন সংকটের কারণে বিশ্ব অর্থনীতি ধাক্কা খেতে পারে৷ এরপরেও অবশ্য ইউরো এলাকার অগ্রগতি সম্পর্কে েখনও আশাবাদী ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংক৷

ইউক্রেন সংকটের কারণে ইউরোপের পুঁজিবাজার সপ্তাহের শুরুতে বেশ উত্তাল হয়ে উঠেছিল৷ সীমান্তে রুশ সেনাবাহিনীর মহড়া শেষ হবার পর উত্তেজনা কমে যাওয়ায় মঙ্গলবার বাজার আবার কিছুটা চাঙ্গা হয়ে ওঠে৷ তবে সংকট না কাটা পর্যন্ত বিশ্ব অর্থনীতির জন্য ঝুঁকি থেকে যাচ্ছে বলে বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন৷ তাছাড়া রাশিয়া ও ইউরোপের অর্থনীতি পরস্পরের উপর অনেকটা নির্ভর করে৷ ইউরোপের জ্বালানির চাহিদার একটা বড় অংশ মেটায় রাশিয়া৷ ইউক্রেন সংকটের কারণে রাশিয়ার পুঁজিবাজার বেশ বড় ধাক্কা খেয়েছে৷ অ্যামেরিকা ও ইউরোপের কিছু দেশ রাশিয়ার উপর অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা চাপানোর বিষয়ে আলোচনা করছে৷ সেদিকেও নজর রাখছে ইউরোপের পুঁজিবাজার৷

EZB Mario Draghi Leitzinssenkung 07.11.2013

ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান মারিও দ্রাগি

তবে এমন আশঙ্কা সত্ত্বেও এই মুহূর্তে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণেই রয়েছে৷ ইউরোপীয় কেন্দ্রীয় ব্যাংকের প্রধান মারিও দ্রাগি সোমবার বলেছেন, বিশ্বব্যাপী আর্থিক সংকট সত্ত্বেও ইউরো এলাকা পরিস্থিতি যথেষ্ট সামলে নিয়েছে এবং সঠিক পথে অগ্রসর হচ্ছে৷ সংকটগ্রস্ত দেশগুলি বাজেট ঘাটতি নিয়ন্ত্রণ ও ব্যয় সংকোচের ক্ষেত্রে যথেষ্ট অগ্রগতি দেখিয়েছে৷ শুধু চরম বেকারত্বের সমস্যার এখনো কোনো সমাধানসূত্র দেখা যাচ্ছে না৷ মূল্যস্ফীতি কেটে যাবার পর আপাতত সবচেয়ে বড় সমস্যা দাঁড়িয়েছে ‘ডিফ্লেশন'-এর আশঙ্কা, যার মোকাবিলার নানা প্রচেষ্টা চলছে৷ চলতি সপ্তাহেই ইসিবি ২০১৬ পর্যন্ত ইউরো এলাকার অর্থনীতি সম্পর্কে এক পূর্বাভাষ প্রকাশ করতে চলেছে৷ তাছাড়া ইসিবি বৃহস্পতিবারও সুদের হার অপরিবর্তিত রাখবে বলে মনে করা হচ্ছে৷ অর্থনীতিকে আরও চাঙ্গা করতে এ দিন কিছু পদক্ষেপও ঘোষণা করা হতে পারে৷

ইউরোপের সংকটগ্রস্ত দেশগুলির অবস্থার সত্যি কিছু উন্নতি দেখা যাচ্ছে৷ ইটালিকে ঘিরে আশার আলো দেখা যাচ্ছে৷ ২০১৩ সালে সে দেশের অর্থনীতির ১.৯ শতাংশ সংকোচন দেখা গেছে৷ তবে বাজেট ঘাটতি নিয়ন্ত্রণেই ছিল৷ টানা প্রায় ২ বছরের মন্দা কাটিয়ে বেরিয়া আসা নতুন প্রধানমন্ত্রী মাটেও রেনসির সামনে বিশাল চ্যালেঞ্জ৷ গ্রিস আন্তর্জাতিক দাতাদের সঙ্গে পরবর্তী কিস্তির সহায়তা নিয়ে আলোচনা করছে৷ তবে বন্ড বাজারে গ্রিসের অবস্থানে উন্নতি দেখা যাচ্ছে৷ সংকট শুরু হওয়ার পর স্পেনে বেকারত্বের হার এই প্রথম কিছুটা কমেছে৷

এসবি/ডিজি (ডিপিএ, রয়টার্স, এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন