1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি ইউরোপ

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে মানবিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা

রুশপন্থি বিদ্রোহী ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে লাগাতার সংঘর্ষের ফলে ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে সাধারণ মানুষের জীবনযাত্রা দুর্বিষহ হয়ে পড়েছে৷ না আছে চাল, না আছে চুলো৷ নিরাপদে তাদের প্রস্থানের পথ সুগম করার ডাক দিচ্ছে কিয়েভ সরকার৷

ইউক্রেনের পূর্বাঞ্চলে রুশপন্থি বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত এলাকায় মানবিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা করছে সে দেশের সরকার৷ দিনের পর দিন ধরে বিদ্যুৎ ও জল সরবরাহ অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে৷ নিরীহ মানুষের জীবনযাত্রা দুর্বিষহ হয়ে উঠছে৷ সরকার ও বিদ্রোহীদের মধ্যে সংঘর্ষের ফলে গত সপ্তাহান্তেই ১০ জনের বেশি নিহত হয়েছে৷ লুগানস্ক শহরের মেয়র মানবিক বিপর্যয়ের আশঙ্কা ব্যক্ত করেছেন৷ এই অবস্থায় সাধারণ মানুষ যাতে দোনেৎস্ক, লুগানস্ক সহ অন্যান্য শহর ছেড়ে চলে যেতে পারে, কিয়েভ সরকার বিদ্রোহীদের উদ্দেশ্যে সেই আবেদন জানিয়েছে৷ সরকারের প্রস্তাব, দিনে কয়েক ঘণ্টার জন্য ‘মানবিক করিডোর' সৃষ্টি করে সেখান দিয়ে অবাধে নিরীহ মানুষ বেরিয়ে আসতে পারবে৷ প্রয়োজনে তাদের চিহ্নিত করা হবে সাদা পতাকা অথবা অন্য কোনো উপায়ে৷

এদিকে বিদ্রোহীদের নিয়ন্ত্রিত যে এলাকায় গত ১৭ই জুলাই মালয়েশীয় বিমান এমএইচ-১৭ বিধ্বস্ত হয়েছিল, সেখানে তদন্তের কাজে আসছেন মালয়েশিয়ার বিশেষজ্ঞরা৷ নেদারল্যান্ডস ও অস্ট্রেলিয়ার তদন্তকারী দল আগেই সেখানে কাজ শুরু করে দিয়েছে৷ ইউক্রেনের সরকার বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে তদন্তে বাধা সৃষ্টি করার অভিযোগ করে চলেছে৷

ইউক্রেনের প্রতিরক্ষামন্ত্রী সংবাদ সংস্থা বিবিসি-কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে দাবি করেছেন, বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে সংগ্রামে তাঁর সরকার দ্রুত সাফল্য পেতে চলেছে৷ তবে দোনেৎস্ক ও লুগানস্ক শহর মুক্ত করা সহজ হবে না বলে তিনি স্বীকার করেন৷

এরই মধ্যে রাশিয়া ইউক্রেন সীমান্তের কাছে বিশাল আকারে সামরিক মহড়ার ঘোষণা করেছে৷ প্রায় ১০০ বোমারু বিমান ও হেলিকপ্টার এতে অংশ নেবে৷ আস্ত্রাখান অঞ্চলে সোম থেকে শুক্রবার পর্যন্ত এই মহড়া চলবে৷ এছাড়া চলতি মাসেই এস-৪০০ নামের নতুন প্রজন্মের ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করতে চলেছে রুশ সেনাবাহিনী৷

রাশিয়ার উপর পশ্চিমা জগতের নিষেধাজ্ঞার মাত্রা ধীরে ধীরে বেড়ে চলেছে৷ জার্মানি সোমবার রাশিয়ার জন্য নির্দিষ্ট প্রতিরক্ষা সরঞ্জাম রপ্তানি স্থগিত করেছে৷ সামরিক প্রশিক্ষণের জন্য প্রায় ১২ কোটি ৮০ লক্ষ ইউরো মূল্যের সরঞ্জাম রাশিয়ায় পাঠানোর কথা ছিল৷ জার্মান কোম্পানি রাইনমেটাল এর জন্য সরকারের কাছে ক্ষতিপূরণ চাইতে পারে৷ কারণ বিগত সরকারের আমলেই এই চুক্তি অনুমোদন করা হয়েছিল৷ রাশিয়া বিষয়টি আদালতে নিয়ে যাওয়ার হুমকি দিয়েছে৷

এসবি/ডিজি (এএফপি, ডিপিএ, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন