1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি-যুক্তরাষ্ট্র

ইইউ নিজের দেখাশোনা করার ক্ষমতা রাখে: ম্যার্কেল

মার্কিন প্রেসিডেন্ট-ইলেক্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের উদ্বাস্তু নীতির যে সমালোচনা করেছেন, ম্যার্কেল তা প্রত্যাখ্যান করেছেন৷ ইউরোপীয়দের ভাগ্য তাদের নিজেদের হাতে, বলেছেন ম্যার্কেল৷

জার্মান ট্যাবলয়েড পত্রিকা ‘‘বিল্ড'' ও ‘‘দ্য টাইমস অফ লন্ডন'' পত্রিকাকে প্রদত্ত একটি যৌথ সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প ম্যার্কেলের উদ্বাস্তু নীতিকে একটি ‘‘বিপর্যয়ের তুল্য ভ্রম'' বলে অভিহিত করার পর সোমবার ম্যার্কেল বার্লিনে নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী বিল ইংলিশ-এর সঙ্গে প্রদত্ত একটি যৌথ সাংবাদিক সম্মেলনে স্পষ্ট করে দেন যে, তিনি সন্ত্রাসবাদ ও সিরিয়ার গৃহযুদ্ধ থেকে পলায়নপর উদ্বাস্তুদের প্রসঙ্গ দু'টিকে পরস্পরের থেকে আলাদা রাখতে চান৷ সিরীয়দের অধিকাংশ তাদের দেশ ছেড়েছেন ‘‘আসাদের বিরুদ্ধে সংগ্রাম অথবা আসাদের নিপীড়নের কারণে'', বলেন ম্যার্কেল

অপরদিকে ম্যার্কেল বলেন যে, তিনি খোলা মন নিয়ে ট্রাম্প প্রশাসনের সঙ্গে কথাবার্তা বলবেন: ‘‘উনি কর্মভার গ্রহণ করলে পর – বর্তমানে যে পরিস্থিতি নয় – আমরা নতুন মার্কিন সরকারের সঙ্গে কাজ করব ও দেখব, আমরা কী ধরনের মতৈক্য অর্জন করতে পারি৷''

জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রীর বক্তব্য

ট্রাম্প যে তাঁর সাক্ষাৎকারে ন্যাটোকে ‘‘সেকেলে'' বলে অভিহিত করেছেন, সে ব্যাপারে জার্মান পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফ্রাংক-ভাল্টার স্টাইনমায়ার ব্রাসেলস থেকে বলেছেন যে, ট্রাম্পের মন্তব্যসমূহ ‘‘এখানে (অর্থাৎ ব্রাসেলস-এ) কিছুটা চমক ও বিভ্রান্তির সৃষ্টি করেছে, এবং শুধু এখানেই নয়....ওনার মনোনীত প্রতিরক্ষামন্ত্রী (জেমস) মাটিস কংগ্রেসের সামনে যা বলেছেন, ওনার মন্তব্যগুলি তার বিপরীত৷''

ম্যার্কেল ‘‘হার্ড ব্রেক্সিট'' সম্পর্কে নীরব

সোমবারের সাংবাদিক সম্মেলনে ম্যার্কেলকে এ বিষয়েও মন্তব্য করতে বলা হয় যে, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী টেরেসা মে শীঘ্রই একটি ‘‘হার্ড ব্রেক্সিট'', অর্থাৎ ইউরোপীয় ইউনিয়নের সঙ্গে বিশেষ যোগাযোগ না রেখেই ইইউ পরিত্যাগের পরিকল্পনা ঘোষণা করতে চলেছেন৷ এর অর্থ দাঁড়ায় যে, যুক্তরাজ্য ইউরোপীয় যৌথ বাজার থেকেও বিদায় নেবে – যা মে-র কনজারভেটিভ দলের অনেক সতীর্থের পছন্দ না হবারই সম্ভাবনা৷

জবাবে ম্যার্কেল শুধু বলেন যে, জার্মানি ব্রিটেনের ইইউ পরিত্যাগের আবেদন জমা পড়া অবধি অপেক্ষা করবে৷

ইএস/এসি/ডিজি (এএফপি, রয়টার্স)

এ বিষয়ে আপনার কিছু বলার থাকলে জানান নীচের ঘরে৷

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়