1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

কর ফাঁকি

ইইউ’র তালিকায় কর ফাঁকি দেওয়ার ‘স্বর্গ’ ১৭টি দেশ

ইউরোপীয় ইউনিয়ন সবচেয়ে বেশি কর ফাঁকি দেওয়া হয় এমন ১৭টি দেশের তালিকা প্রকাশ করেছে৷ তবে তালিকায় ইইউ’র কোনো সদস্যদেশ সমালোচনাও হচ্ছে৷

বেশ কয়েক মাস ধরে টানাপোড়েন ও বিভিন্ন দেশের শেষ মুহূর্তে কর প্রণালী বদলে ইইউ-এর ‘কালো খাতায়’ নাম ওঠা বন্ধ করার প্রচেষ্টার পর ইইউ'র অর্থমন্ত্রীরা মঙ্গলবার তালিকাটি অনুমোদন করেন৷

মার্কিন সামোয়া, বাহরাইন, বার্বাডোস, গ্রেনাডা, গুয়াম, দক্ষিণ কোরিয়া, ম্যাকাও, মার্শাল দ্বীপপুঞ্জ, মঙ্গোলিয়া, নামিবিয়া, পালাউ, পানামা, সেন্ট লুসিয়া, সামোয়া, ত্রিনিদাদ ও টোবাগো, টিউনিশিয়া এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতকে ইউরোপীয় ইউনিয়নের মানের অনুপযোগী বলে গণ্য করা হয়েছে৷

যেসব দেশ ইইউ’র নিয়মাবলী সঠিকভাবে মেনে চলে না, কিন্তু তাদের কর প্রণালী পরিবর্তন করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, সে ধরণের ৪৭টি দেশকে ‘গ্রে লিস্টে’ রাখা হয়েছে৷

বিভিন্ন সংস্থা ও ব্যক্তিবর্গ তাদের করের বোঝা কমানোর জন্য যেসব পন্থা অবলম্বন করে থাকে, তার সঙ্গে জড়িত নানা কেলেংকারি ইত্যাদির পরিপ্রেক্ষিতে ইউরোপীয় ইউনিয়ন কর এড়ানোর বিরুদ্ধে আরো সক্রিয় হবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে৷ ইইউ বলেছে যে, জোট হিসেবে সমন্বয়কৃত পদক্ষেপের মাধ্যমে যেসব দেশ ও সরকার কর প্রসঙ্গে ন্যায্য আচরণ করতে অস্বীকার করবে, তাদের ক্ষেত্রে ‘আরো জোরালো’ ব্যবস্থা নেওয়া সম্ভব হবে৷

তবে ইউরোপীয় কমিশনের একাধিক সদস্যের মতে, কর ফাঁকি দেওয়ার ‘স্বর্গের’ তালিকাটি প্রকাশ করাই যথেষ্ট নয়, যেসব দেশ বা সরকার ইইউ-এর নিয়মাবলী মানছে না, তাদের বিরুদ্ধে বাস্তব শাস্তিমূলক ব্যবস্থার উপযোগ রাখা হয়নি৷ ফলে এই ‘ব্ল্যাক লিস্ট' বাস্তবিক কোনো পরিবর্তন আনতে পারবে না বলেই সমালোচকদের ধারণা৷ কাজেই ইইউ’র কর কমিশনার পিয়ের মস্কোভিচি ব্ল্যাক লিস্টটিকে একটি গুরুত্বপূর্ণ অগ্রণী পদক্ষেপ হিসেবে অভিহিত করলেও, যুগপৎ তাকে ‘বিশ্বব্যাপী কর ফাঁকি দেওয়ার মাত্রার তুলনায় অপর্যাপ্ত প্রতিক্রিয়া’ বলে বর্ণনা করেছেন৷

অক্সফাম ত্রাণ সংস্থা আরো এক ধাপ এগিয়ে ইইউকে তাদের কোনো সদস্যদেশের নাম এই তালিকায় না রাখার কারণে সমালোচনা করেছে৷ মঙ্গলবারের ঘোষণার আগেই অক্সফাম ‘ব্ল্যাকলিস্ট নাকি হোয়াইটওয়াশ’, এই শিরোনাম দিয়ে একটি রিপোর্ট প্রকাশ করে৷ ইইউ-এর নিজের শর্তাবলী অনুযায়ী, লুক্সেমবুর্গ, মাল্টা, নেদারল্যান্ডস ও আয়ারল্যান্ড, এই চারটি দেশের নাম ঐ ব্ল্যাকলিস্টে থাকা উচিত ছিল বলে অক্সফামের রিপোর্টে মত প্রকাশ করা হয়েছে৷

অসাম্য ও কর প্রসঙ্গে ইইউ’র নীতি সম্পর্কে অক্সফামের উপদেষ্টা অরোর শার্দোনে ডয়চে ভেলেকে বলেছেন, ‘‘এই চূড়ান্ত ইইউ ব্ল্যাকলিস্ট কিছুটা হতাশাজনক৷ তালিকায় মাত্র ১৭টি দেশকে রাখা হয়েছে ও তাদের অধিকাংশ ছোট ছোট দেশ, এমনকি উন্নয়নশীল দেশ৷’’

শার্লট চেলসম-পিল/এসি

নির্বাচিত প্রতিবেদন