1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

খেলাধুলা

ইংল্যান্ডের ভরসা ওয়েন রুনি

ফুটবল বিশ্বকাপ ২০১০ এর অন্যতম আকর্ষণীয় তারকা ওয়েন রুনি৷ তাই রুনির প্রতি ভক্তদের প্রত্যাশা একটু বেশি রকম৷

default

রুনির নাম শুনলেই প্রথমত চোখের সামনে ভেসে ওঠে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড৷ তবে শুধু তা-ই নয়, বৃহত্তর অঙ্গনে ইংল্যান্ডের জাতীয় দলের এই স্ট্রাইকার এই বছরে পেয়েছেন প্রফেশনাল ফুটবলার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে বর্ষসেরা খেলোয়াড়ের মর্যাদা৷ চলতি মৌসুমে ৩৪টি গোল করা রুনি সম্প্রতি আশা ব্যক্ত করেন যে, খেলার পর্ব শেষ হলে দলের প্রশাসনিক দায়িত্ব নেবেন তিনি৷ রুনি বলেন, ‘‘আমি ফুটবল ভালোবাসি এবং উপভোগ করি৷ তাই আমি খেলার পাঠ চুকিয়ে রেস্তরাঁ চালাতে পারি না৷ আমি ফুটবলের সাথেই থাকতে চাই৷''

সম্প্রতি কুঁচকির ইনজুরিতে ভুগলেও আর ক'দিন পরে দক্ষিণ আফ্রিকায় শুরু হওয়া ২০১০ বিশ্বকাপ ফুটবলের আসরে ইংল্যান্ডের চূড়ান্ত জয় নির্ভর করছে এই রুনির উপরই৷ অন্তত ফুটবলপ্রেমীদের ধারণা সেরকমই৷ রুনি বলেন, ‘‘গত বিশ্বকাপে আমি যতটা দক্ষতা এবং উদ্দীপনা দেখাতে চেয়েছিলাম প্রকৃতপক্ষেই ততোটা দেখানো হয়নি৷''

Manchester United Wayne Rooney Flash-Galerie

রুনির নাম শুনলেই প্রথমত চোখের সামনে ভেসে ওঠে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড

তবে সাম্প্রতিক সময়ের দু'টি ঘটনা রুনির জীবনে বড় প্রভাব ফেলেছে৷ একটি হলো ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড থেকে ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোর বিদায়৷ অপরটি গত নভেম্বরে পুত্র সন্তান কাই এর জন্ম৷ রুনির স্ত্রী কলিন বলেন, ‘‘পুত্র সন্তানের সাথে খুব স্বাভাবিক মনে হয় তাকে৷ ওয়েন বেশ ধৈর্যশীল আর সেটাই তার বিশেষ ভালো দিক৷''

কলিনের কথায়, ‘‘রুনি ১৬ বছর বয়সে এভার্টনের মাঠে খেলা শুরু করে, ওর উদ্যম এখনও সেসময়ের মতোই রয়ে গেছে৷'' ২৪ বছর বয়সি রুনিও হতাশ করতে চান না ভক্তদের৷ তাঁর উক্তি, ‘‘আমি ভালো আছি৷ আর বিশ্বকাপ ফুটবল নিয়ে কোন সমস্যা নেই৷'' তবে রুনি ছাড়া ইংল্যান্ডের পক্ষে বিশ্বকাপ জেতা সম্ভব নয়, এমন ধারণা মানতে নারাজ রুনি৷ তিনি বললেন, ‘‘আমরা এখন অনেকগুলো বড় মাপের খেলোয়াড় পেয়েছি৷ আমার ইনজুরি থাকলেও কোন সমস্যাই নেই৷''

ইংল্যান্ডের জন্য সফলতম বিশ্বকাপ কী হতে পারে - এই প্রশ্নের উত্তরে রুনি বলেন, ‘‘শিরোপা জেতাটাই হবে সফলতা৷ আমরা বেশ ভালোই প্রস্তুতি নিয়েছি এবং আশা করি, আমরা এবার কাপ ঘরে ফিরিয়ে আনতে পারবো৷'' উল্লেখ্য, ১৯৬৬ সালে নিজের মাটিতে অনুষ্ঠিত আসরেই শুধুমাত্র শিরোপা জিতেছিল ইংল্যান্ড৷ আর এবার আলজিরিয়া এবং স্লোভেনিয়ার সাথে গ্রুপ সি'তে রয়েছে ইংল্যান্ড৷ তারা এ বছরের বিশ্বকাপ দৌড় শুরু করবে ১২ জুন, রুস্টেনবার্গ এর মাঠে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিপক্ষে খেলার মধ্য দিয়ে৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: অরুণ শঙ্কর চৌধুরী

সংশ্লিষ্ট বিষয়