1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আস্থা ভোটের ঘুসকান্ড নিয়ে তোলপাড় সংসদ

আড়াই বছর আগে ঘুষ দিয়ে আস্থাভোট কেনার অভিযোগের জবাবে সংসদে দেয়া প্রধানমন্ত্রীর বিবৃতি অসত্য বলে বিরোধীপক্ষের আনা অধিকারভঙ্গের প্রস্তাবের ওপর আজ বিতর্কে সরকারের পক্ষের বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী স্বয়ং৷

default

প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং

২০০৮ সালে বামেদের সমর্থন প্রত্যাহারের পর আস্থাভোটে জেতার জন্য তৎকালীন মনমোহন সিং সরকার বিপুল টাকা ঘুস দিয়েছিলেন, উইকিলিকসের ফাঁস করা এই তথ্য নিয়ে সংসদে বিরোধী পক্ষ সরকারকে আসামীর কাঠগড়ায় দাঁড় করালে প্রধানমন্ত্রী ড. মনমোহন সিং ঘুরে দাঁড়িয়ে অভিযোগ খণ্ডন করে বলেন, নতুন দিল্লির মার্কিন দূতাবাস ওয়াশিংটনে কী বার্তা পাঠালো, তা নিয়ে ভাবার চেয়ে অনেক বড় ইস্যু দেশের আছে৷ কোন কেবল উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বিদেশি দূতাবাসের কোন বার্তা ফাঁস করে দেশে একটা দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করতে চায়৷ এই ফাঁদে পা দেয়া এক মারাত্মক প্রবণতা৷ তিনি বলেন, উইকিলকস কেবলসের ফাঁস করা তথ্যের বিশ্বাসযোগ্যতা কতটা তা যাচাই করা সম্ভব নয়৷ দ্বিতীয়ত, যে কমিটি এই ঘুসকাণ্ডের তদন্ত করেছিল, তারা এই অভিযোগের প্রামাণ্য তথ্য পাননি৷ আরো তদন্তের সুপারিশ করেন কমিটি৷ সেইমত তদন্তের কাজ চলেছে৷ এইভাবে নগ্ন আক্রমণ বিরোধীদের অগণতান্ত্রিক দৃষ্টিভঙ্গির পরিচয়, বলেন প্রধানমন্ত্রী ড. সিং৷

সরকার পক্ষের অপর বক্তারা হলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী পি চিদাম্বরম, টেলিকমমন্ত্রী কপিল সিব্বাল প্রমুখ৷ তাঁরা উইকিলিকসের ফাঁস করা বিজেপির কথিত কিছু অপকীর্তির উল্লেখ করেন৷ তাঁদের বক্তব্য, কেবল বার্তা নিয়ে গত এক সপ্তাহ সংসদকে কার্যত পণবন্দি করে বিরোধীপক্ষ তাদের কথাকেই শেষ কথা প্রমাণের জন্য মরিয়া৷ পাশাপাশি তাদের অভিযোগ, যে তিনজন বিজেপি সাংসদ নোটের তাড়া নিয়ে সংসদে এসে বলেন ঐ টাকা তাঁদের দেয়া হয় ভোটের জন্য, সেই স্টিং অপারেশন চালিয়েছিল বিজেপি সরকারকে অপদস্থ করতে৷

প্রধান বিরোধী দল বিজেপি নেত্রী সুষমা স্বরাজ কে সি দেও কমিটির তথ্যকে নস্যাৎ করায় সরকারের সমালোচনা করে বলেন, কমিটি আরো তদন্তের যে সুপারিশ করেন, তা কার্যকর হয়নি৷ প্রধানমন্ত্রীকে সরাসরি আক্রমণ করে বিজেপি নেত্রী বলেন, সরকার প্রধান হিসেবে প্রধানমন্ত্রী কিছু জানেন না বলে তাঁর দায়িত্ব এড়াতে পারেন না৷ কিছু না জানার ভান করে অপরের ঘাড়ে দোষ চাপানো প্রধানমন্ত্রীর অভ্যাস হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ সংসদের উচ্চকক্ষ রাজ্যসভায় বিজেপি নেতা অরুণ জেটলি বলেন, উইকিলিকস কেবলসের তথ্য যাচাই করা যায় আইনি পথেই৷ কিন্তু তা না করে সরকার পুরো ব্যাপারটা ধামাচাপা দিতে চাইছে৷

প্রধানমন্ত্রীর বিরুদ্ধে আনা অধিকার ভঙ্গের প্রস্তাবের ওপর বিতর্কে সিপিআই নেতা গুরুদাস দাসগুপ্ত সাংসদ বেচাকেনাকে সংসদীয় জলদস্যুপনা বলে অভিহিত করে বলেন, সাংসদ ছিনতাই-এর কাজে রাজনৈতিক মাফিয়া গোষ্ঠী সক্রিয়৷

প্রতিবেদন: অনিল চট্টোপাধ্যায়, নতুনদিল্লি

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়