1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

কাতার সংকট

আরব দেশগুলোর দাবি প্রত্যাখ্যান এর্দোয়ানের

আরব দেশগুলো কাতারে তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি বন্ধ করে দেওয়ার যে দাবি জানিয়েছিল, তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রেচেপ তাইয়েপ এর্দোয়ান তা প্রত্যাখ্যান করেছেন৷ এই দাবি মেনে নেয়া কাতারের সার্বভৌমত্বে আঘাত হানার সামিল বলে মন্তব্য করেছেন৷

তুরস্কের বৃহত্তম শহর ইস্তান্বুলে রবিবার ঈদের নামাজ শেষে এর্দোয়ান বলেন, ‘‘আরব দেশগুলো সেনা ঘাঁটি প্রসঙ্গে যে দাবি জানিয়েছে, তা অসম্মানজনক৷ তুরস্ক নিজেদের প্রতিরক্ষা সহযোগিতার চুক্তির ব্যাপারে কখনোই অন্যের অনুমতি নিয়ে কাজ করে না৷'' ২০১৪ সালে কাতারে তুরস্কের সেনা ঘাঁটি স্থাপনের ব্যাপারে প্রস্তাব পাস হয় আংকারার পার্লামেন্টে৷ এর্দোয়ান বলেছেন, ‘‘কাতারের কাছে আরব দেশগুলোযে ১৩টি দাবি জানিয়েছে তা আন্তর্জাতিক আইনবিরোধী৷''

তথাকথিত ইসলামিক জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস), আল কায়েদা, মুসলিম ব্রাদারহুডসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী সংগঠনকে ‘মদদ দিচ্ছে'– এই অভিযোগ তুলে গত ৫ জুন প্রতিবেশী সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, বাহরাইন, ইয়েমেন ও মিশর কাতারের সঙ্গে কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক ছিন্নের ঘোষণা দেয়৷ সেইসঙ্গে কাতারের সব নাগরিককে দেশে ফেরার নির্দেশও দেওয়া হয়৷

ভিডিও দেখুন 02:02

২৩ শে জুন সম্পর্ক ছিন্ন করা পাঁচ আরব দেশ কাতারের উপর থেকে অবরোধ তুলে নিতে ১৩টি দাবির একটি তালিকা দোহায় পাঠায়৷ দাবি মেনে নেওয়ার জন্য কাতারকে ১০ দিনের সময় বেঁধে দেওয়া হয়৷ দাবির অন্যতম হলো আল-জাজিরা চ্যানেল বন্ধ করে দেয়া, ইরানের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক হ্রাস করা এবং কাতারে তুরস্কের সামরিক ঘাঁটি বন্ধ করে দেওয়া৷

কাতারের সমর্থনে এর্দোয়ান আরও বলেন, ‘‘এই ১৩ দাবির বিরুদ্ধে কাতারের আচরণকে সমর্থন এবং প্রশংসা করছি আমরা৷ কেননা, আপনি একটি দেশের সার্বভৌমত্বকে আঘাত করতে পারেন না৷'' যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রী রেক্স টিলারসন সংকট সমাধানে আরব দেশগুলোকে আলোচনায় বসার আহ্বান জানিয়েছেন৷ তিনি বলেন, ‘‘আমার বিশ্বাস সন্ত্রাসবাদ দমনে আরব দেশগুলো একজোট হয়ে কাজ করবে৷''

এপিবি/এসিবি (এপি, এএফপি, রয়টার্স)

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়