1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

‘আমি সমকামী’ ঘোষণার পর মৃত্যুঝুঁকিতে মালয়েশীয় ইসমাইল

‘আমি একজন সমকামী ’, খোলাখুলিই কথাটা বলে দিলেন, মালয়েশিয়ার মুসলমান প্রকৌশলী আজমান ইসমাইল৷ সেদেশে প্রথমবারের মতো এমন প্রকাশ্য ঘোষণার পর সরকারি নিষেধাজ্ঞা, সমালোচনা এবং কড়া শাস্তির হুমকির মুখে ইসমাইল৷

lesbian, gay, bisexual, transgender, community, gesture, 'Pride March', rally Bangalore, India, যৌন, যৌনতা, সমকামী, গে, হিজড়া, মালয়েশিয়া, মুসলমান, Anul sex, Sexuality, Malaysia, Youtube, Facebook, Death, Penalty,

সমকামী যুগল (ফাইল ছবি)

ইউটিউবে দুই মিনিটের ভিডিও ক্লিপে তিনি বলেছেন, ‘‘আমি সমকামী৷ আমি ঠিক আছি৷'' এছাড়া সেখানে তিনি তুলে ধরেছেন, মালয়েশিয়ায় ধর্মীয় ও সাংস্কৃতিক গোঁড়ামির কারণে সমকামীদের জীবনযাপন করা কতটা কঠিন৷ তিনি চেষ্টা করেছেন সমকামীদের সমঅধিকারের পক্ষে নিজের যুক্তি তুলে ধরার৷ গত মাসে নিজেকে সমকামী হিসেবে প্রকাশ্যে জানানোর পর বিভিন্ন মহল থেকে সমালোচনার মুখে পড়েন ইসমাইল৷ এমনকি হত্যার হুমকিও জুটেছে একাধিক৷

তিনি বলেন, ‘‘আমি এখন মৃত্যুঝুঁকিতে৷ আমি জানিনা এরপর আর কী অপেক্ষা করছে আমার জন্য৷'' স্থানীয় গণমাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘‘আমি ইসলাম ধর্মের অবমাননা করছি না৷ বরং আমি এর মাধ্যমে শুধুমাত্র মালয়েশিয়ার সমকামীদের প্রতিনিধিত্ব করতে চেয়েছি৷ আমি আশা করি যে, এই ভিডিও আরো একটু খোলামেলা সমাজ এবং আলোচনার সুযোগ করে দেবে৷'' ইসমাইলের ইচ্ছা অনুসারে খোলামেলা আলোচনা বেশ শুরুও হয়েছে৷ তবে প্রায় সব আলোচনাতেই তাঁকে ‘বিপথগামী' কিংবা ‘পশু' বলে আখ্যায়িত করেছে সমালোচকরা৷ সরকার নিয়ন্ত্রিত গণমাধ্যম থেকে শুরু করে ব্লগ, ফেসবুক ও চ্যাট গ্রুপেও উঠেছে সমালোচনার ঝড়৷

অবশ্য মালয়েশিয়ায় সেক্স বা যৌন অধিকার নিয়ে খোলামেলা আলোচনার প্রচেষ্টা এটিই প্রথম নয়৷ ‘সেক্সুয়ালিটি মের্ডেকা' নামের একটি সংস্থা এ বিষয়টি নিয়ে সেখানে কাজ করছে৷ এমনকি তারা বিশেষভাবে সমকামীদের অধিকারের উপর গুরুত্ব দিয়ে যৌনতা বিষয়ক বার্ষিক মানবাধিকার উৎসবের আয়োজনও করে থাকে৷ তবে এতদিন পর্যন্ত অমুসলমানদের আনাগোনা ছিল এই সংস্থাটির কর্মতৎপরতায়৷ আজমান ইসমাইল প্রথম কোন মুসলমান যিনি এই আসরে যোগ দেওয়ার কথা প্রকাশ্যে ঘোষণা করলেন৷

উল্লেখ্য, মালয়েশিয়ায় মানবশরীরের পশ্চাৎদেশে যৌন কাজ করাকে মারাত্মক অপরাধ হিসেবে বিবেচনা করা হয়৷ আর এই অপরাধে ২০ বছর পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে৷

প্রতিবেদন: হোসাইন আব্দুল হাই

সম্পাদনা: সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

নির্বাচিত প্রতিবেদন