1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘আমার তো জয় ভাইয়ের মতো কাড়ি কাড়ি টাকা নাই'

বাংলাদেশে ফেসবুক ২২ দিন বন্ধ থাকায় মানুষদের যে শুধু অসুবিধাই হয়েছে, তা কিন্তু নয়! এ সময়ে প্রযুক্তির নানা দিক সম্পর্কে জানতে পেরে উপকৃতও হয়েছেন অনেকে৷ আর সে'কথাই কেউ কেউ ডয়চে ভেলের ফেসবুকে পাতায় জানিয়েছেন৷

‘‘ফেসবুক বন্ধের সুযোগে ছেলেপুলেরা ভিপিএন, টর, প্রক্সি, বাইপাস – এ সব প্রযুক্তি সম্পর্কে একটা বিস্তারিত ধারণা পেয়েছে৷ এটাই ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার সুফল৷ তবে যাই হোক, মাননীয় মন্ত্রী মহোদয়ের নিকট আহ্বান থাকবে যেন ভবিষ্যতে তাঁরা বেশ কিছু সার্ভার বন্ধ করে দেন৷ তাহলে সার্ভার কনফিগারেশন, ট্রাবলশুটিং ও কোন ধরনের সার্ভারে কী ধরণের কাজ হয়, সেটা সম্পর্কে বিশদ ধারণা পাবে অনেকে৷ এ জাতির নিষিদ্ধ জিনিসে ঝোঁক বেশি৷ তাই ‘ব্যান' থেকে যদি ভালো কিছু হয়, মন্দ কি?'' ফেসবুক খুলে দেওয়ার পর এই মন্তব্য পাঠক তৌহিদুর রহমানের৷

সরকারিভাবে ফেসবুক খুলে দিলেও,পুরোপুরি নাকি খোলা হয়নি৷ হ্যাঁ, এ কথাই জানিয়েছেন ডয়চে ভেলের ফেসবুক বন্ধু ওমর আলি৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘যে সরকার ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে চায়, তারাই আবার ২২ দিন বন্ধ রাখলো ফেসবুক!! এ সময়ে পিছিয়ে পড়েছে অনেক কিছু৷ কয়েক হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে কেবল ফেসবুকেরই৷

বাংলাদেশের বিভিন্ন গণমাধ্যম ভিজিটর বাবদ কয়েক হাজার কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে ধারণা করা হচ্ছে৷ শেষ কথা হলো, ফেসবুক খুলে দেয়া হয়েছে বলা হলেও এই ‘কমেন্ট' করার সময়ও আমি বিকল্প উপায়েই করছি৷ মানে এখনও স্বাভাবিক উপায়ে ফেসবুকে ঠুকতে পারছি না৷

ফেসবুক বন্ধ থাকায় বাংলাদেশের বাইরে যাঁরা থাকেন, তাঁরা সত্যিই মানসিকভাবে কষ্টে ছিলেন, যা বোঝা গেলো আমাদের নিয়মিত পাঠক জলিলুর রহমানের মন্তব্যে৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘ফেসবুক বন্ধ হওয়াতে সবচেয়ে অসুবিধায় পরেছিলাম আমরা, প্রবাসীরা৷ সারাদিন কাজ শেষে দেশমাতৃকার একটু খবরাখবর নিতে আমরা ফেসবুকে গিয়ে যখন দেখতাম, ভাই, বন্ধু, আত্মীয়স্বজন – কেউ-ই ফেসবুকে নাই, তখন মনটা বেদনায় ম্লান হয়ে যেত৷''

ফেসবুক বন্ধ থাকার কারণে কোনোরকম দাঙ্গা কিংবা নাশকতা হতে পারেনি বলে মনে করছেন ভারতের বন্ধু কাজি রবিউল কবির৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘হয়ত বাংলাদেশ সরকারের কাছে খবর ছিল যে, নাশকতা হতে পারে৷ তাই সেটা বন্ধ করতে সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যম অবশ্যই বন্ধ করার প্রয়োজন ছিল৷ কয়েকদিন যোগাযোগের অসুবিধা হয়েছে ঠিকই, কিছু প্রাণ তো বাঁচানো গেছে! আর আর্থিক ক্ষতি একটা প্রাণের দামের চেয়ে নিশ্চয় বেশি নয়৷''

বাংলাদেশ সরকার ফেসবুক বন্ধ করায় সাঈদ আহমেদের তেমন কোনো অসুবিধা হয়নি৷ তাঁর ভাষায়, ‘‘চালাইতেছিলাম৷ কোনো অসুবিধা হয়নি৷ ‘লাইক' বা ‘কমেন্ট' একটু কম পাইছি, এই আর কি!''

‘‘ফেসবুকের সাথে যদি জয় ভাই দয়া করে ‘ভাইবার’-টাও ছাড়তো! আমার তো জয় ভাইয়ের মতো কাড়ি কাড়ি টাকা নাই, তাই লন্ডন প্রবাসী ভাইটাকে ফোন করতে গিয়ে মিনিটে ২০ টাকা খরচ করে পকেট খালি হয়ে যায়৷’’ এই মন্তব্য ডয়চে ভেলের ফেসবুক বন্ধু ফারহানা নাসরিনের৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন