1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘আমার জন্য মরো না'

একটি গ্রন্থ৷ নাম ‘আমার জন্য মরো না৷' সেখানে রয়েছে পঁচিশটি এমন চিঠি, ই-মেল, টেক্সট মেসেজ যেখানে কোনো মেয়েকে প্রহার করে সুন্দর সুন্দর কথায় ক্ষমা চেয়েছে তাঁর ভালোবাসার মানুষ৷ প্রত্যেককেই বিশ্বাসের চরম মূল্য দিতে হয়েছে!

ব়্যাকুয়েলসকে পিটিয়ে আহত করেছিল তাঁর প্রেমিক৷ যন্ত্রণায় যখন কাতরাচ্ছেন, তখনই প্রেমিকের কাছ থেকে একটা চিঠি এলো৷ চিঠিতে লেখা, ‘‘কথা দিচ্ছি, এমনটি আর হবে না৷ তুমি আমার জীবনের সব৷ ক্ষমা করো৷'' বিশ্বাস করে প্রেমিককে ঘরে ফিরিয়েছিলেন ব়্যাকুয়েলস৷ ফেরার পাঁচ সপ্তাহের মধ্যেই আবার বেদম পিটুনি৷ সেই পিটুনিতেই মারা যান ব়্যাকুয়েলস৷

পেরুর পঁচিশজন নারীর জীবনের এমন গল্পই তুলে ধরা হয়েছে ‘ডোন্ট ডাই ফর মি', অর্থাৎ ‘আমার জন্য মরো না' গ্রন্থে৷ দক্ষিণ অ্যামেরিকার দেশ পেরুতে নারী নির্যাতনের হার খুবই বেশি৷ গত ছয় বছরে সরকারি হিসেবেই সে দেশে ৬৮০ জন নারী তাঁদের জীবনসঙ্গীর প্রহারে মৃত্যু বরণ করেছেন৷

‘আমার জন্য মরো না'-গ্রন্থে যাঁদের কথা এসেছে তাঁদের সবাই অবশ্য মারা যাননি৷ কেউ ব়্যাকুয়েলসের মতো মরেছেন, কেউ হয়তো জীবনের অনেক স্বপ্নের অপমৃত্যুকে মেনে নিয়ে ধুঁকে ধুঁকে ভারবাহীর মতো বয়ে চলেছেন নিজের জীবন৷

Flash-Galerie 50 Jahre Amnesty International AI In mehr als 70 Staaten der Welt wird gefoltert

দক্ষিণ অ্যামেরিকার দেশ পেরুতে নারী নির্যাতনের হার খুবই বেশি৷(প্রতীকী ছবি)

প্রথমবার বেদম প্রহারের পর ভিক্টরও তাঁর সঙ্গিনী কার্লাকে লিখেছিলেন, ‘‘অন্য কারো জন্য তুমি কী করে আমাকে ছেড়ে যেতে পারো – এ কথা ভেবে আমি নিজের ওপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেলেছিলাম৷ ভুল হয়ে গেছে৷ আর কোনোদিন এমন হবেনা৷'' দুজনের মধ্যে আবার সমঝোতা হলো৷ একসঙ্গে বসবাস করতে লাগলেন ভিক্টর-কার্লা৷ এক বছর পর অন্তঃসত্ত্বা হলেন কার্লা৷ তারপর আবার পিটুনি৷ সেই পিটুনিতে গর্ভপাত৷ কার্লা এই জীবনে আর কোনোদিন মা হতে পারবেন না৷‘আমার জন্য মরো না' গ্রন্থটি দুটো ভাগ৷ প্রথম ভাগে সাদা কাগজের ওপরে ছাপা হয়েছে প্রহারের পর হতভাগ্য কোনো মেয়েকে লেখা প্রেমিকের চিঠি, ই-মেল বা টেক্সট মেসেজের অনুরূপ৷ দ্বিতীয় অংশে উঠে এসেছে সঙ্গীকে আবার বিশ্বাস করার পর জীবনে নেমে আসা বিপর্যয়ের কথা৷ সেই পর্ব লেখা হয়েছে সাদা অক্ষরে, কালো কাগজে৷

এসিবি/জেডএইচ (এএফপি)

নির্বাচিত প্রতিবেদন