1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘‘আমার চোখ দিয়ে আনন্দের অশ্রুধারা বয়ে যাচ্ছে''

জামায়াত নেতা আব্দুল কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় কার্যকর হওয়ায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা গেছে৷ একপক্ষ এই রায়ে ব্যাপক উচ্ছ্বাস প্রকাশ করলেও অপর পক্ষ ফাঁসি কার্যকরের প্রতিবাদে বেছে নিয়েছে সহিংস পথ৷

কমিউনিটি বাংলা ব্লগ এবং সামাজিক যোগাযোগ সাইট ফেসবুকে কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় কার্যকর নিয়ে মন্তব্য করেছেন অসংখ্য মানুষ৷ বাংলা ব্লগ সামহয়্যার ইন ব্লগে আশম এরশাদ লিখেছেন, ‘‘জামায়াতের বোঝা উচিত রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ বিচারালয় ঘুরে কাদের মোল্লার জীবনাবসান ঘটছে৷''

এই ব্লগার লিখেছেন, ‘‘...একজন কাদের মোল্লার জন্য বিশজনের প্রাণ নেওয়াটাও মোটেই সমীচীন হচ্ছে না জামাত শিবিরের৷ যারা আওয়ামী লীগার বা পুলিশের প্রাণ নেওয়ার জন্য বা আগুন দেবার জন্য এগিয়ে যাচ্ছে তাদেরও বোঝা উচিত সেটা ইসলাম সম্মত না৷ সেটা নবির শিক্ষাও না৷''

জামায়াত নেতা কাদের মোল্লা আর ‘কসাই কাদের' এক ব্যক্তি নন বলে ইন্টারনেটে মন্তব্য করেছেন অনেক মানুষ৷ আমারব্লগে ফারুক লিখেছেন, ‘‘প্রশ্ন উঠেছে, কসাই কাদের ও কাদের মোল্লা এক ব্যক্তি নয়৷ এই প্রশ্নের সমাধান কি এতই কঠিন? গতবছর লন্ডনের এক পার্কিং লটে রাস্তা বানানোর লক্ষ্যে মাটি খোড়ার সময় একটি কঙ্কাল পাওয়া যায়, যেটি ৬০০ বছর পূর্বে যুদ্ধে নিহত এক বৃটিশ রাজার বলে ধারনা করা হচ্ছিল৷ কঙ্কালটির সুনির্দিষ্ট পরিচয় নিশ্চিতভাবে জানা যায় ক্যানাডায় বসবাসরত রাজার এক দুর সম্পর্কের আত্মীয়ার ডিএনএ'র সাথে মিলিয়ে৷

এই ব্লগার লিখেছেন, ‘‘কসাই কাদেরের নিকট বা দূর কোনো আত্মীয় কি নেই? ডিএনএ'র উপর ভিত্তি করে যদি ৬০০ বছরের পুরোনো কঙ্কালের পরিচয় জানা যায়, তাহলে কাদের মোল্লা ও কসাই কাদের মোল্লা এক, নাকি ভিন্ন ব্যাক্তি, সেটা জানা কি এতই কঠিন?''

ফেসবুকে সাইফুর আর. মিশু লিখেছেন, ‘‘আমার এলাকার মসজিদে খুতবা হচ্ছে, বাসা পাশে হবার কারণে ঘরে বসে শোনা যায়৷ ইমাম সাহেব সরকারকে ধন্যবাদ দিচ্ছেন মানবতাবিরোধী অপরাধের বিচারের রায় কার্যকর করার জন্য৷ কেনো জামায়াত প্রকৃত ইসলামের পথে নেই তা বর্ণনা করছেন৷ মন থেকে ধন্যবাদ জানাই ইমাম সাহেবকে৷''

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত কাদের মোল্লার ফাঁসি নিয়ে ডয়চে ভেলের ফেসবুক পাতায় মন্তব্য করেছেন অসংখ্য পাঠক৷ সাদিক পাভেল লিখেছেন, ‘‘অসাধারণ মুহূর্ত... প্রবাসে আমি একা, আমার চোখ দিয়ে আনন্দের অশ্রুধারা বয়ে যাচ্ছে, এই অশ্রু দায়মুক্তির, কলঙ্কমুক্তির... তবে আরও রাজাকার রয়ে গেছে৷ তাদের জন্য আনন্দ অশ্রু কিছু বাঁচিয়ে রাখতে চাই৷''

ডয়চে ভেলের আরেক পাঠক মোবাশ্বের নীল ফেসবুকে একটি ছবি শেয়ার করেছেন৷ তিনি লিখেছেন, ‘‘ছবিতে চোখ মুছতে থাকা বৃদ্ধ মানুষটির নাম শেখ মোহাম্মদ আল আমান, একজন বীর মুক্তিযোদ্ধা৷ জুলাই ২০০৮, শুধুমাত্র একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে পরিচয় দেবার সাহস দেখাবার জন্য জামাত নেতার কাছ থেকে কোমরে লাথি খেয়েছিলেন প্রকাশ্য দিবালোকে; ঢাকা ইঞ্জিনিয়ার'স ইন্সটিটিউটের অডিটোরিয়ামের দরজার সামনে, দিনে দুপুরে৷ একটি রাজাকারের ফাঁসি কার্যকর করে হলেও এর ‘প্রতিশোধ' চাই আমরা৷ জামাত-শিবিরকে নিষিদ্ধ করার এখনই সময়...''

এদিকে, জামায়াতে ইসলামীর সঙ্গে সম্পৃক্ত ফেসবুক পাতা হিসেবে পরিচিত ‘বাঁশেরকেল্লা'য় কাদের মোল্লার ফাঁসি পরবর্তী বিভিন্ন ঘটনাপ্রবাহ দ্রুত প্রকাশ করা হচ্ছে৷ এই পাতায় শুক্রবার এক বার্তায় উল্লেখ করা হয়, ‘‘আজ সমগ্র বিশ্বে শহীদ আব্দুল কাদের মোল্লা ভাইয়ের গায়েবানা জানাজার নামাজ অনুষ্ঠিত হবে৷'' বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে নামাজের ছবিও প্রকাশ করা হয়েছে পাতাটিতে৷

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার বাংলাদেশ সময় রাত দশটা এক মিনিটে কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় কার্যকর করা হয়৷ রাতেই তার মরদেহে ফরিদপুরে আমিরাবাদ গ্রামে দাফন করা হয়৷

সংকলন: আরাফাতুল ইসলাম

সম্পাদনা: জাহিদুল হক

নির্বাচিত প্রতিবেদন