1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

অন্বেষণ

আমস্টারডামের এক চিলেকোঠার কথা

নেদারল্যান্ডসের আমস্টারডামে বেড়াতে যাওয়া পর্যটকদের একটি বড় অংশ আনা ফ্রাংকের ঐতিহাসিক বাড়িটি দেখতে যান৷ তার কাছেই অবস্থিত প্রায় আড়াইশ’ বছরের পুরনো একটি বাড়ির চিলেকোঠায় বাস করেন দুই ডিজাইনার৷

ভিডিও দেখুন 02:56

চলুন ঘুরে আসি এক স্বপ্নের বাড়ি থেকে...

তাঁরা হলেন অলিভার মিচেল আর জর্জ গটেল৷ আমস্টারডামের কেন্দ্রে অবস্থিত জোরদান এলাকায় ব্ল্যোমগ্রাখট রাস্তার ধারে বসবাস তাঁদের৷ পুরনো আসবাবপত্র আর আধুনিক ডিজাইনের মিশেল ঘটিয়ে তাঁরা ঘরগুলো সাজিয়েছেন৷

জর্জ গটেল বলেন, ‘‘জায়গাটি বেছে নেয়ার কারণ এটি অনেক বড় জায়গা৷ এছাড়া অনেকদিন এখানে কেউ থাকেননি৷ বাড়িটি তৈরি হয়েছে ১৭৬৩ সালে৷ এখানে কোনো দেয়ালও ছিল না৷ তাই আমস্টারডামে চিলেকোঠায় থাকার পরিকল্পনাটি আমাদের ভালো লেগেছে৷ এরকম তো সাধারণত কেউ করে না৷

২০০৭ সালে সংস্কারের সময় বাড়িটির আসল রূপ যতটা সম্ভব ধরে রাখার চেষ্টা করা হয়েছে৷

মার্কিন নাগরিক জর্জ গটেল আর ফ্রান্সের নাগরিক অলিভার মিচেল পেশাগত জীবনে হোটেল আর কর্পোরেট অফিসের নকশা করেন৷ তবে ব্যক্তিগতভাবে তাঁরা একটু অন্যরকম থাকতে পছন্দ করেন৷

জর্জ গটেল বলেন, ‘‘আমরা ভবনটির যে অংশে আছি সেটি আসলে ছিল একটি গুদাম৷ তাই পুরো জায়গাটি ছিল ফাঁকা, মাঝে কোনো দেয়াল ছিল না৷ আমরাও চেয়েছি কোনো দেয়াল না রাখতে৷ তাই পর্দা দিয়ে বেডরুম আর গেস্টরুমগুলো আলাদা করেছি৷’’

এই বাড়ির আরেকটি উল্লেখযোগ্য দিক হচ্ছে, টেরাস থেকে ওয়েস্টারটোরেন গির্জা দেখতে পাওয়া যায়৷ তাছাড়া আনা ফ্রাংক হাউসও খুব কাছে৷

ঘর সাজানো প্রসঙ্গে অলিভার মিচেল বলেন, ‘‘আমাদের এখানে যে জিনিসগুলো আছে সেগুলো দেখতে সুন্দর আর কুৎসিতের মাঝামাঝি কিছু একটা৷ আমরা সেরকমই পছন্দ করি৷ তাই আমি বলবো বাড়িটা একটু অন্যরকম, কারণ এখানে সুন্দর-অসন্দুর অনেক কিছু আছে৷’’

গ্যোনা কেটেলস/জেডএইচ

নির্বাচিত প্রতিবেদন

ইন্টারনেট লিংক

এই বিষয়ে অডিও এবং ভিডিও

সংশ্লিষ্ট বিষয়