1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

‘আমরা ফাঁসির রায় পেয়েছি, শান্তিতে ঘুমাও ভাইয়েরা আমার'

যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে মৃত্যুদণ্ড হয়েছে জামায়াত নেতা কাদের মোল্লার৷ এ রায় নিয়ে অনেকেই লিখেছেন সামাজিক যোগাযোগের মাধ্যমে৷ এমন দিনেই বাংলাদেশের কিছু কিছু আইআইজি থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে ‘আমার ব্লগ'-কে৷

আমার ব্লগ খবরটি জানিয়েছে একটি সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে৷ সেখানে লেখা হয়েছে, ‘‘জামাত-শিবির এবং যুদ্ধাপরাধের বিচারে জনমত গঠনকারী শীর্ষ অন-লাইন ব্লগ আমারব্লগ-কে বাংলাদেশের কিছু কিছু আইআইজি থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে বলে নিশ্চিত সংবাদ পাওয়া গিয়েছে৷ গত ৬ মাসে এ নিয়ে তৃতীয়বারের মতো বাংলাদেশে আমারব্লগ বন্ধ করা হলো৷ আমারব্লগ কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত এ নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে কোনো সরকারি কিংবা আনুষ্ঠানিক চিঠি পায়নি৷''

আমারব্লগ কর্তৃপক্ষ এ পদক্ষেপকে ‘বেআইনি' আখ্যা দিয়ে ‘তীব্র প্রতিবাদ' জানিয়ে লিখেছে, ‘‘এ ধরনের বেআইনি নিষেধাজ্ঞা জামাত-শিবিরের হাত শক্তিশালী করবে৷....আমারব্লগ কর্তৃপক্ষ দেশের আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল এবং ব্লগারদের সাংবিধানিক বাকস্বাধীনতার কাছে দায়বদ্ধ৷ সেই দায় পূরণে আমারব্লগ কোনো অন্যায় আবদারের কাছে মাথা নত করবে না৷ সাংবিধানিক বাকস্বাধীনতার কাছে দায়বদ্ধ আমারব্লগ প্রত্যাশা করে, সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ বেআইনি নিষেধাজ্ঞা অতি সত্বর বাতিল করবেন এবং জামাত শিবিরের বিরুদ্ধে জনমত গঠন করতে সাহায্য করবেন৷''

প্রেস বিজ্ঞপ্তি প্রচারের আগে কাদের মোল্লাকে নিয়ে আমারব্লগে একটি পোস্ট লিখেছেন এ হুসাইন মিন্টু৷ সেখানে ‘ফিরে দেখা, মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে কসাই কাদেরের কুকীর্তি ও কিছু হত্যার ঘটনা' শিরোনামে একাত্তরে জামায়াত নেতার যুদ্ধাপরাধের বর্ণনা দিয়েছেন তিনি৷

সামহোয়্যারইন ব্লগে কাদের মোল্লার রায় নিয়ে বেশ কিছু লেখা ছাপা হয়েছে৷ অধিকাংশই ছদ্মনামে৷ পরিচয় গোপন করে যাঁরা লিখেছেন তাঁদের মধ্যে কেউ কেউ ফাঁসির আদেশের প্রতিবাদে জামায়াত-শিবির যে হরতাল-বিক্ষোভ শুরু করেছে তার শেষ কোথায় জানতে চেয়েছেন৷ মুসা ইসলাম জানতে চেয়েছেন, ‘কাদের মোল্লার রায় নিয়ে রিভিউ বিতর্ক, কার কথা সঠিক?' মঙ্গলবার আব্দুল কাদের মোল্লার আইনজীবী জানান, আপিল বিভাগের মৃত্যুদণ্ডের রায় পর্যালোচনার জন্য আবেদন করা হবে৷ তবে আইনমন্ত্রী শফিক আহমেদ বলেছেন, এ রায় পর্যালোচনার কোনো সুযোগ নেই৷

নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্টে ব্লগার আরিফ জেবতিক লিখেছেন, ‘‘তখনও শাহবাগে মানুষের ভিড় হয়নি৷ প্রায় ফাঁকা শাহবাগের রাস্তায় বসে একটা ছেলে মনোযোগ দিয়ে পোস্টারে লিখছে – ‘এই পথে আজ জীবন দেব/রক্তের বদলা ফাঁসি নেব৷' – এই ছেলেটির নাম দীপ৷''

‘‘সিলেটের শহীদ মিনারে তখনও ভিড় বাড়েনি৷ এলাকা থেকে একটা বিশাল মিছিল নিয়ে অনেক বড় একটা জাতীয় পতাকা শক্ত হাতে ধরে এগিয়ে আসছে এক যুবক – তাঁর নাম জগৎ জ্যোতি৷''

‘‘পেছনে ঘাতকের দলের নিঃশব্দ পা ফেলা, অন্ধ সন্ধ্যায় একাকী বাড়ি ফিরছে – রাজীব হায়দার৷''

‘‘'ফাঁসি চাই' স্লোগান দিতে দিতে হৃৎপিণ্ড থমকে যাচ্ছে এক তরুণের – তাঁর নাম তরিকুল ইসলাম শান্ত৷

শিবিরের তাণ্ডব রুখতে একাই সামনে এগিয়েছেন অগ্রণী ব্যাংকের লিফটম্যান-জাফর মুন্সি৷''

আরিফ জেবতিক ছোট্ট এ লেখা শেষ করেছেন দুটি বাক্যে, ‘‘আমরা ফাঁসির রায় পেয়েছি৷

এখন একটু শান্তিতে ঘুমাও ভাইয়েরা আমার৷''

যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে সোচ্চার দীপ, জগৎ জ্যোতি, তরিকুল ইসলাম শান্ত এবং লিফটম্যান জাফর মুন্সি গত কয়েক মাসের মধ্যেই মারা গেছেন৷ প্রত্যেকটি হত্যাকাণ্ডে জামায়াতের ছাত্র সংগঠন ইসলামী ছাত্র শিবিরের জড়িত থাকার অভিযোগ রয়েছে৷ ব্লগার আহমেদ রাজীব হায়দারকে ইসলামের জন্য অবমাননাকর লেখালেখির অভিযোগে কুপিয়ে হত্যা করা হয়৷

সংকলন : আশীষ চক্রবর্ত্তী

সম্পাদনা : সঞ্জীব বর্মন

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়