1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

জার্মানি-ভারত

আমরা ইউরোপের ঐক্যে বিশ্বাস করি: মোদী

ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী চতুর্থ আন্তঃসরকার সংলাপ উপলক্ষ্যে বার্লিনে জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের সঙ্গে তাঁর কার্যালয়ে মিলিত হয়েছেন৷

ভারতের প্রধানমন্ত্রীকে চ্যান্সেলারির সামনে গার্ড অফ অনার দিয়ে স্বাগত জানানো হয়৷ জার্মান সেনাবাহিনীর ব্যান্ড ভারতের জাতীয় সংগীত বাজায়৷

পরে দুই নেতা চতুর্থ ভারত-জার্মান আন্তঃসরকার আলাপ-আলোচনার প্লেনারি সেশনে অংশগ্রহণের জন্য চ্যান্সেলরিতে প্রবেশ করেন৷ এই বিধিবদ্ধ আলাপ-আলোচনার আগে সোমবার সন্ধ্যায় মোদীকে বার্লিনের কাছে মেজেব্যার্গ প্রাসাদে নৈশভোজে স্বাগত জানান ম্যার্কেল৷ উভয়ের মধ্যে ব্রেক্সিট, দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য এবং ইউরোপে একাধিক সাম্প্রতিক সন্ত্রাসী আক্রমণের পরিপ্রেক্ষিতে উগ্রপন্থিদের প্রসার নিয়ে আলোচনা হয়৷ শ্লস মেজেব্যার্গ হল চ্যান্সেলরের সরকারি অবসর কাটানোর স্থান৷

ব্রেক্সিট প্রসঙ্গে মোদী বলেন, ভারত ইউরোপের একতাকে গুরুত্ব দেয়৷ ইউরোপের সংহতি বিশ্বরাজনীতির স্থিতিশীলতার জন্য একটি মুখ্য উপাদান বলে মোদী মন্তব্য করেন৷ এ কথা জানিয়েছেন জার্মানিতে ভারতের রাষ্ট্রদূত মুক্তা দত্ত টোমার৷

উভয় নেতার আলাপ-আলোচনায় আফগানিস্তানের প্রসঙ্গটিও আলোচিত হয়৷ এ ক্ষেত্রে মোদী আফগানিস্তানে জার্মান উপস্থিতি সম্পর্কে প্রশংসাসূচক মন্তব্য করেন৷ অপরদিকে বেইজিংয়ের বেল্ট অ্যান্ড ফোরাম প্রসঙ্গে ম্যার্কেল জার্মানির মনোভাব ব্যাখ্যা করেন৷

দ্বিবাৎসরিক আন্তঃসরকার আলাপ-আলোচনা বা আইজিসিতে এবার মোদীর সাথে রয়েছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী হর্ষ বর্ধন, বাণিজ্যমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন, জ্বালানি মন্ত্রী পীযুষ গোয়েল ও পররাষ্ট্র বিভাগের প্রতিমন্ত্রী এম জে আকবর৷ সর্বশেষ আইজিসি অনুষ্ঠিত হয়েছিল ২০১৫ সালের অক্টোবর মাসে, নতুন দিল্লিতে৷ এবার বার্লিনের আইজিসিতেও একাধিক চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হবার কথা৷

এসি/এসিবি (এপি, ডিপিএ, পিটিআই)   

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়