1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

পাঠক ভাবনা

‘আমরাও চাই, অপরাধীদের খুঁজে বের করুন'

‘‘বাংলাদেশ ব্যাংক আমার সন্তানের মতো, আমি এর কোনো ক্ষতি করিনি৷'' – এ কথা বলেছেন ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমান৷ ডিডাব্লিউ-র ফেসবুক পাতায় তাঁর এ মন্তব্যের পক্ষে-বিপক্ষে কিছু মন্তব্য তুলে ধরা হলো৷

‘‘ড. আতিউর রহমান বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর পদ থেকে পদত্যাগ করেছেন'' – এভাবেই কি শেষ হলো ৮০০কোটি টাকা হ্যাকিং তদন্তের সফল পরিসমাপ্তি?'' এই প্রশ্নবোধক মন্তব্য ডয়চে ভেলের ফেসবুক বন্ধু মোহাম্মদ হাফিজুর রহমানের৷

পাঠক ফয়সাল আহমেদ সাবেক গর্ভনর সম্পর্কে লিখেছেন, তিনি অনেক পরিশ্রম করে এই পর্যন্ত এসেছেন৷ তবে তাঁর শেষটা ভালো হলো না৷ তাঁর মতে, ‘‘টাকা পাহারা দেওয়া গভর্নরের কাজ নয়, তাঁর দায়িত্ব কঠোর হওয়া৷ যা তিনি হননি আর এর ফলেই আজ এই অপমান৷''

পাঠক খোকন মির্জা সরাসরি আতিউর রহমানের কাছে টাকা চোরের পরিচয় জানতে চেয়েছেন৷ কারণ তিনি বলছেন, ‘‘আপনাদের কাছ থেকে শিখেছি অন্যায়কারী এবং অন্যায় প্রশ্রয়কারী সমান অপরাধী৷''

তানজিব হাসান দুঃখ করে লিখেছেন, ‘‘আতিউর রহমানের মতো একজন ভালো মানুষ ষড়যন্ত্রের শিকার হলেন৷''

‘‘স্যার, আপনাকে শ্রদ্ধা জানাই, আপনাদের মতো জ্ঞানী ও ভালো মানুষ এভাবে চলে গেলে খুব খারাপ লাগে৷'' বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ড. আতিউর রহমানকে লক্ষ্য করে আনোয়ার হোসেনের এই মন্তব্য৷

নাজমুল কবিরাজও প্রায় একই কথা বলছেন সাবেক গভর্নর সম্পর্কে৷ তাঁর ভাষায়, পদত্যাগ করতেও কলিজা লাগে ১০০ কেজি ওজনের৷ আমি বিশ্বাস করি আপনি নিরাপরাধ, কারণ, আপনি জীবনে যে কষ্ট করে লেখাপড়া শিখেছেন, সেই বিদ্যা আপনাকে দুর্নিতি করতে দিতে পারে না৷''

‘‘আসলে এই দেশে সৎ এবং আদর্শবান মানুষরাই বলির পাঠা হয়, অথচ অপরাধীরা দিব্যি পাড় পেয়ে যায়৷'' লিখেছেন মাসুম চৌধুরী৷

আল-মাহফুজ শামীম অবশ্য ভিন্ন মত পোষন করেন৷ তাঁর প্রশ্ন, ‘‘গভর্নর যদি চোর না হন, তাহলে চোর কে? ভাণ্ডারের সদর গেট দিয়ে চুরি হয় আর পাহারাদার জানে না, তা কি কেউ বিশ্বাস করবে?'' আবদুর রহিমও অনেকটা এরকমই মনে করেন টাকা চুরি সম্পর্কে৷

অর্জুন বৈদ্য অবশ্য টাকা চুরির ব্যাপারে সরাসরি বালাদেশের অর্থমন্ত্রীকে আক্রমণ করেছেন৷ তিনি নাকি কত কিছু করে পার পেয়ে যান আর অন্যদের কোনো দোষ পেলে সাথে সাথে সক্রিয় হয়ে যান৷ অর্জুনের ভাষায়, ‘‘এ সব নাকি শুধু এমন রাজনীতিবিদদেরই মানায়৷''

বেকার যুবক শহীদুল ইসলাম পুরোপুরি অন্য কথা বলছেন৷ ড. আতিউর রহমনকে তিনি সরাসরি বলেছেন, ‘‘আপনি ব্যাংকিং খাতে কিছু বেকার চাকরিপ্রার্থীর ক্ষতি করলেন৷ আমি তাদের একজন৷''

‘‘ড. আতিউর রহমান পদত্যাগ করলেই হবে না৷ এই টাকার ব্যয় ভার তাকেই বহন করতে হবে৷'' – বলছেন বিল্লাল হোসেন৷

‘‘জাতির কাছে পরিষ্কার করুন টাকা চুরির নেপথ্য কারা? বক্তব্যটির মধ্য দিয়ে ফেসবুক বন্ধু লোকমান সামী সাবেক গভর্নরকে এই অনুরোধ করেছেন৷

সংকলন: নুরুননাহার সাত্তার

সম্পাদনা: দেবারতি গুহ

নির্বাচিত প্রতিবেদন