1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আবিদজানে বাগবো বনাম ওয়াতারার লড়াই তুঙ্গে

আইভরি কোস্টের রাজধানী আবিদজানের দখল নিয়ে পথে পথে লড়াই চলছে৷ বিমানবন্দরের কর্তৃত্ব নিজেদের হাতে তুলে নিয়েছে ফরাসি শান্তিরক্ষীবাহিনী৷ জাতিসংঘ ডিউকু-র গণহত্যার জবাবদিহি দাবি করেছে ওয়াতারার কাছে৷

default

আবিদজানের পথে মিলিশিয়াদের দৌরাত্ম্য

আবিদজানে চলছে তুমুল লড়াই

আইভরি কোস্টের রাজধানী আবিদজানের পরিস্থিতি সম্পূর্ণ যুদ্ধকালীন৷ একদিকে ক্ষমতা ছাড়তে গররাজি লরাঁ বাগবোর বাহিনী আর অন্যদিকে আন্তর্জাতিক মহলে স্বীকৃত নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ওয়াতারার সেনাবাহিনী৷ দু'পক্ষের লড়াইয়ের মাঝে পড়েছে শহরের সাধারণ মানুষ৷ শহরে না আছে পানীয় জল বা খাদ্য৷ জীবনের কোন মূল্যও নেই কারও৷ পরিস্থিতি বুঝে আবিদজানের আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ নিজেদের হাতে তুলে নিয়েছে অতিরিক্ত ফরাসি শান্তিরক্ষী বাহিনী৷ ফরাসি প্রতিরক্ষামন্ত্রক গতকাল গভীর রাতে এ খবর জানিয়ে বলেছে, আবিদজানের জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী বাহিনীর সঙ্গে যোগ দিয়েছে অতিরিক্ত ৩৫০ জন ফরাসি সেনা৷ তারাই দায়িত্ব নিয়েছে বিমানবন্দরের৷ প্রসঙ্গত, আইভরি কোস্টে জাতিসংঘের মোট সাড়ে সাত হাজার শান্তিরক্ষীবাহিনী আগে থেকেই ছিল৷

NO FLASH Frankreich Elfenbeinküste Einsatz

আবিদজান বিমানবন্দরের নিয়ন্ত্রণ এখন ফরাসি শান্তিরক্ষী বাহিনীর হাতে৷

সাংবাদিকদের ওপর গুলিবর্ষণ

রাজধানীর আকাশে চক্বর দিচ্ছে জাতিসংঘের এবং ফরাসি বিমানবাহিনীর হেলিকপ্টার৷ শহরের নভোটেল হোটেল থেকে বের হওয়ার সময় ফরাসি টিভি চ্যানেল চ্যানেল টু-এর কয়েকজন সাংবাদিকের ওপর রবিবার গুলি চালায় বাগবো বাহিনী৷ আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির চরম অবনতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রত্যক্ষদর্শীরা৷ শহরে বিদ্যুৎসংযোগ নেই বহু জায়গাতে৷ পানীয় জলের সরবরাহ না থাকায় জলের সন্ধানে সাধারণ মানুষকে পথে বেরোতেই হচ্ছে৷ যা অত্যন্ত বিপদজনক বলে জানিয়েছেন কিছু নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক শহরবাসী৷ রাস্তায় মৃতদেহ পড়ে থাকার কথাও জানিয়েছেন তাঁরা৷ শহরের বিভিন্ন এলাকার দখল নিয়ে লড়াই অব্যাহত রয়েছে বাগবো আর ওয়াতারা বাহিনীর মধ্যে৷ জাতিসংঘের মুখপাত্র হামাদৌন তৌরে বিবিসিকে জানিয়েছেন, প্রেসিডেন্ট প্রাসাদ সংলগ্ন এলাকায় প্রচুর গুলির শব্দ শোনা গেছে রবিবার সারাদিন৷ লরাঁ বাগবো সেই প্রাসাদেই রয়েছেন বলে ধারণা করা হচ্ছে৷

ডিউকু'র গণহত্যা নিয়ে ওয়াতারাকে দোষারোপ

গত সপ্তাহে কোকো উৎপাদক শহর ডিউকুতে ওয়াতারার বাহিনী ৮০০ মানুষকে হত্যা করেছে বলে যে অভিযোগ এনেছে জাতিসংঘ, সে বিষয়ে বিশদ জানতে চেয়ে আলেসানো ওয়াতারার ওপর চাপ বাড়ানো হচ্ছে৷ জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুন ওয়াতারার কাছে এই গণহত্যার বিশদ তদন্তের জন্য আর্জি জানিয়েছেন৷ ওয়াতারা এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন৷ ওদিকে রবিবার মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিন্টন অবিলম্বে বাগবোর পদত্যাগের দাবি জানিয়েছেন৷ বাগবো ঘনিষ্ঠ কিছু সূত্র রবিবার সন্ধ্যায় সংবাদসংস্থা রয়টার্সকে জানায়, বাগবোর সেনাবাহিনীর প্রধান জেনারেল ফিলিপ মানগু ফের বাগবোর পক্ষে ফিরে এসেছেন৷ সাম্প্রতিক অতীতে মানগু বাগবোর পক্ষ ছেড়ে ওয়াতারার দলে যোগ দিয়েছিলেন৷ মানগু ফিরে আসার পর বাগবো বাহিনী আরও সক্রিয় এবং শক্তিশালী হয়ে উঠেছে বলে দাবি করেছে ওই সূত্র৷

প্রতিবেদন : সুপ্রিয় বন্দ্যোপাধ্যায়

সম্পাদনা: রিয়াজুল ইসলাম

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়