1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

আফ্রিকায় সমকামীরা যেমন আছেন

আফ্রিকান কমিশন অন হিউম্যান অ্যান্ড পিপলস রাইটস বা এসিএইচপিআর এর সহায়তা সত্ত্বেও মহাদেশটিতে সমকামীদের জীবন বিপন্ন৷ সমকামীদের প্রতি বিদ্বেষমূলক আচরণের কারণে এইডস দমনে সাফল্য নিস্তেজ হয়ে পড়ছে৷

ক্যামেরুনে ২০১৩ সালের ১৫ জুলাই সাংবাদিক ও সমকামী অ্যাক্টিভিস্ট এরিক লেমবেমবেকে তাঁর বাড়িতে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়৷ সারা দেহে মারাত্মক নির্যাতনের চিহ্ন৷ পুলিশ তদন্ত শুরু করে৷ এক বছর পর ফলাফল ‘কিছুই না' – ক্ষোভের সাথে এ কথা জানান ক্যামেরুনস্থ আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংঘের উপপ্রধান ড্রিসা৷ তাঁর কথায়, ‘‘সম্ভবত এব্যাপারে কোনো জিজ্ঞাসাবাদই করা হয়নি৷ আজ পর্যন্ত কোনো অগ্রগতিই লক্ষ্য করা যায়নি৷''

যৌন সংখ্যালঘুরা ঝুঁকির মুখে

আফ্রিকায় যৌন সংখ্যালঘুদের সময়টা ভাল নয় এখন৷ এবছরের প্রথম দিকে নাইজেরিয়া ও উগান্ডার প্রেসিডেন্ট একটি আইনে স্বাক্ষর করেছেন, যার আওতায় সমকামিতাকে দণ্ডণীয় অপরাধ বলে গণ্য করা হয়৷ এরফলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডও হতে পারে৷

সরকারি পর্যায়ে এই ধরনের ‘সমকামী আতঙ্ক' সমকামীদের প্রতি বৈরিতাকে সাহস জোগাচ্ছে৷ আর তাই তো লেমবেমবের মতো অ্যাক্টিভিস্টদের হত্যা করেও পার পেয়ে যাচ্ছে খুনিরা৷ ক্যামেরুন, মধ্য আফ্রিকা ও আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলে সমকামীরা আত্মগোপন করে থাকতে বাধ্য হন৷

পুলিশ নির্বিকার

এক্ষেত্রে পুলিশের সাহায্য পাওয়া যায় খুব কমই, বলেন কেনিয়াস্থ আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন হিউম্যান রাইটস ওয়াচের কর্মী নীলা ঘোষাল৷

সমকামী, উভলিঙ্গ কিংবা যৌন সংখ্যালঘুরা প্রায়ই নির্যাতনের শিকার হন৷ পুলিশের কাছে অভিযোগ করতে গেলে হাস্যাস্পদ হতে হয় তাঁদের৷ এমনকি কারাবন্দি হওয়ার সম্ভাবনাও উড়িয়ে দেওয়া যায় না৷

সমকামিতাকে অবৈধ করার ফলে অনেক নেতিবাচক প্রতিক্রিয়াও ঘটছে৷ যেমন এইডস দমনে সাফল্য বাধাগ্রস্ত হচ্ছে৷ উগান্ডার নতুন আইনের কারণে চিকিত্সকরা এই সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন৷ সমকামীদের সংস্পর্শে এলেও কারাদণ্ডের ঝুঁকি থাকে৷ একারণে এইডস দমনে প্রচারণা ও পরামর্শদান অসম্ভব হয়ে পড়ছে৷

উগান্ডার সাফল্য এখন স্তিমিত

এইডস প্রতিরোধে উগান্ডা একসময় উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত ছিল৷ এই সাফল্য এখন মুখ থুবড়ে পড়তে পারে বলে সতর্ক করছে জাতিসংঘ৷ পরিসংখ্যানে দেখা গিয়েছে, যেসব দেশ সমকামীদের অপরাধী হিসাবে গণ্য করে, সেসব দেশে এইচআইভি সংক্রমণের হারও বেশি৷

সম্প্রতি জাম্বিয়াস্থ ‘আফ্রিকান কমিশন অন হিউম্যান রাইটস'-এর পক্ষ থেকে একটি নীতিমালা গ্রহণ করা হয়৷ এতে বলা হয়, সমকামীরা অন্য আফ্রিকানদের মতোই সমান সুরক্ষা ভোগ করার দাবি রাখেন৷ এই নীতিমালায় সমকামীদের নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা করার জন্য আফ্রিকার দেশগুলির প্রতি আহ্বান জানানো হয়৷ বলা হয় মানবাধিকার কর্মীরা যাতে তাদের কাজকর্মের জন্য বৈষম্যের শিকার না হন তা নিশ্চিত করতে৷

নীলা ঘোষাল এই নীতিমালাকে স্বাগত জানিয়ে বলেন, এটা এক বিরাট অগ্রগতি৷ এই প্রথম আফ্রিকান কমিটি আফ্রিকাব্যাপী সমকামীদের বিরুদ্ধে সহিংস আচরণের নিন্দা জানালো৷

আশার আলো

আফ্রিকান সমকামী আন্দোলনগুলি এই নীতিমালা প্রণয়নে চাপ সৃষ্টি করেছে, তৈরি করেছে খসড়া, বলেন নীলা ঘোষাল৷

এক্ষেত্রে পশ্চিমের কোনো প্রভাব ছিল না বলে জানান আফ্রিকান কমিশনের সদস্য বেনিনের রেইনে আলাপিনি গানসু৷ তাঁর কথায়, ‘‘কেউ বলতে পারে না যে, সমকামিতা পশ্চিমের আবিষ্কার, আফ্রিকা এর ব্যতিক্রম৷ সবার জানা উচিত, সমকামিতা একটি মানবিক দিক৷ আফ্রিকান দেশগুলির দায়িত্ব নাগরিকদের শারীরিক ও মানসিক নিরাপত্তা দেওয়া, নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা করা৷ যা প্রযোজ্য হবে সকলের জন্যই৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন

সংশ্লিষ্ট বিষয়