1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আফগানিস্তানে বাড়তি সৈন্য পাঠাচ্ছে জার্মানি

চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেলের নেতৃত্বাধীন জার্মান মন্ত্রিসভা মঙ্গলবার আফগানিস্তানে মোতায়েন জার্মান সৈন্যদের সর্বোচ্চ সংখ্যা এখনকার ৪৫০০ থেকে ৫৩৫০-এ উন্নীত করার পরিকল্পনা অনুমোদন করলেন৷

default

জার্মান সৈন্যদের সর্বোচ্চ সংখ্যা বেড়ে হতে চলেছে ৫৩৫০

সরকার বর্তমান ম্যান্ডেটের সময়সীমা ২০১১ সালের ২৮শে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত অর্থাৎ আরও এক বছর বাড়াতে চায়৷ তবে তা সংসদের অনুমোদনসাপেক্ষ৷

খ্রিষ্টীয় ইউনিয়ন সিডিইউ-সিএসইউ ও উদারপন্থি এফডিপি-র কোয়ালিশন সরকার আফগানিস্তান নিয়ে যে নতুন কৌশল গ্রহণ করেছে তা বাস্তবায়নের সবুজ সংকেত দিল মন্ত্রিসভা৷ এ পর্যন্ত আফগানিস্তানে জার্মান সৈনিকদের সর্বোচ্চ সংখ্যা ৪৫০০ তে সীমিত রাখা হয়েছে৷ আরও ৫০০ সৈন্য স্থায়ীভাবে যুক্ত হবে তাদের সঙ্গে৷ এছাড়া আরও ৩৫০ জন সৈন্যকে রিজার্ভে রাখা হবে৷ এদের কাজে লাগানো হবে সেপ্টেম্বর মাসে অনুষ্ঠেয় আফগান পার্লামেন্টের নির্বাচনের মত বিশেষ বিশেষ প্রয়োজনে৷

Sondersitzung des Bundestags Regierungserklärung der Bundeskanzlerin zum Luftangriff in Afghanistan

বুন্ডেসটাগের অনুমোদন পেলে তবেই আফগানিস্তানে বাড়তি সৈন্য পাঠানো যাবে

আফগান সশস্ত্র বাহিনীর জন্য জার্মান প্রশিক্ষকের সংখ্যা সুস্পষ্টভাবে বাড়ানো হবে৷ এবার ১৪০০ জার্মান সৈন্য এই দায়িত্ব পালন করবেন৷ বর্তমানে এই কাজে সক্রিয় রয়েছেন মাত্র ২৮০ জন সৈন্য৷ এছাড়া আফগান পুলিশ বাহিনীকে প্রশিক্ষণ দেয়ার উপরও জোর দেয়া হচ্ছে৷ দ্বিপাক্ষিক প্রকল্পের আওতায় জার্মান পুলিশ প্রশিক্ষকদের সংখ্যা এখনকার প্রায় ১২০ জন থেকে প্রায় ২০০ জনে বাড়ানো হবে৷ ইউরোপীয় ইউনিয়নের ইউপোল পুলিশ মিশনের কাঠামোয় আরও ৬০ জন জার্মান পুলিশ প্রশিক্ষক যুক্ত হবেন৷ আফগান পুলিশ বাহিনীকে দ্রুত গড়ে তুলতে ভবিষ্যতে আফগান প্রশিক্ষদের ট্রেনিং দেয়া হবে জোরেশোরে৷

২০১১ সাল থেকে আফগানিস্তানে জার্মান সশস্ত্র বাহিনীর ইউনিট কমানো হবে৷ ঐ সময় মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও আফগানিস্তান থেকে তার সৈন্য সরিয়ে আনতে চায়৷ চূড়ান্ত প্রত্যাহারের কোন সময়সূচি অবশ্য জার্মান সরকার নির্দিষ্ট করেনি৷ বার্লিন অবশ্য এ প্রসঙ্গে এই বিষয়টির দিকে দৃষ্টি আকর্ষণ করছে যে আফগান সরকার ২০১৪ সাল নাগাদ দেশের নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্ব নিজের হাতেই তুলে নিতে চায়৷ এই পরিকল্পন বাস্তবায়িত করতে বার্লিন কাবুলকে সাহায্য করবে৷ ধাপে ধাপে এক একটি জেলার নিরাপত্তার দায়িত্ব তুলে দেয়া হবে আফগানদের হাতে৷

Bundeswehr in Kundus Afghanistan nach Anschlag

জার্মান সৈন্যরা মূলত আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলে মোতায়েন রয়েছে৷

আফগানিস্তানের পুনর্গঠন খাতে জার্মানি বর্তমানে বছরে ২২ কোটি ইউরো সরবরাহ করে৷ এই অংক বাড়িয়ে ৪৩ কোটি ইউরো করা হবে৷ সাবেক তালেবান যোদ্ধাদের সমাজের মূলধারায় ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে গঠিত আন্তর্জাতিক তহবিলে জার্মানি ৫ কোটি ইউরো দেবে৷

জার্মান সৈন্যরা মূলত আফগানিস্তানের উত্তরাঞ্চলে মোতায়েন৷ এই ম্যান্ডেট বাড়ানো নিয়ে বার্লিনে সংসদের নিম্ন কক্ষ বুন্ডেস্টাগে বিতর্ক শুরু হচ্ছে বুধবার৷ মাসের শেষ দিকে তার ওপর ভোটাভুটি হবে৷ কারণ সংসদের অনুমোদন ছাড়া জার্মানি বিদেশে সৈন্য মোতায়য়েন করতে পারেনা৷ সংসদে আঙ্গেলা ম্যার্কেলের কোয়ালিশন সরকারের নিরাপদ সংখ্যাগরিষ্ঠতা রয়েছে৷ তবে কিনা আফগানিস্তানে জার্মান সৈন্য মোতায়েন রাখার ব্যাপারটা আর ভাল চোখে দেখছেননা জার্মানির বহু মানুষ৷ ম্যার্কেল চান, এই ম্যান্ডেট দলনির্বিশেষে সংসদের অনুমোদন পাক৷

প্রতিবেদক: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক, সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়