1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আফগানিস্তানে জার্মান সৈনিকদের মিশন চালু থাকবে: ম্যার্কেল

আফগানিস্তানে আবারও চারজন জার্মান সৈনিক নিহত হবার পর জার্মানির ভিতরে এই মিশন নিয়ে বিতর্কটা জোরদার হয়েছে৷ চ্যান্সেলর এবং সিডিইউ দলের প্রধান আঙ্গেলা ম্যার্কেল অবশ্য এই মিশন চালু রাখার পক্ষেই মত প্রকাশ করেছেন৷

default

জার্মান চ্যান্সেলর আঙ্গেলা ম্যার্কেল

সংঘাতদীর্ণ আফগানিস্তানে জার্মান সৈনিকদের মিশন নিয়ে দেশের ভিতরে বহু মানুষের মনে দ্বিধা আর সংশয় যে রয়েছে, চ্যান্সেলর ম্যার্কেল তা অস্বীকার করেননি৷ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে তাঁর সফর শেষ হবার অল্প আগে তিনি বলেন: ‘‘ আমি জানি, এই মিশন সঠিক কিনা তা নিয়ে বহু মানুষের মনে সংশয় রয়েছে৷ তবুও আমি বলতে চাই যে আমি অত্যন্ত সচেতনভাবে এই তৎপরতার পক্ষ নিচ্ছি যাতে ঐ দেশটি স্থিতিশীল হয়ে ওঠে এবং নিজেদের দায়িত্ব নিজেরাই গ্রহণ করতে পারে৷''

ম্যার্কেল আরও বলেন: ‘‘এই বিষয়টিও বিবেচ্য যে আমরা আমাদের জন্য এবং অবশ্যই পশ্চিমের সব গণতান্ত্রিক দেশগুলোর জন্য নিরাপত্তা অর্জন করতে চাই৷ এই মিশন যে বিপজ্জনক তা আমাদের জানা আছে৷ কিন্তু এই মিশন চালু রাখতেই হবে৷ এবং তা অব্যাহত রাখতে হবে অত্যন্ত সতর্কভাবে প্রস্তুত করা আমাদের ম্যান্ডেটের মূল ভিতটার ওপর দাঁড়িয়ে৷''

বিরোধী সামাজিক গণতন্ত্রী দল এসপিডি-র প্রতিরক্ষাবিষয়ক মুখপাত্র রাইনার আর্নল্ড মিশনের পক্ষ নিয়েই বক্তব্য রেখেছেন৷

Flash-Galerie Wochenrückblick KW 15 2010 Verteidigungsminister Guttenberg in Afghanistan

আফগানিস্তানে জার্মান সেনাদের সঙ্গে জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী কার্ল-থেয়োডর সু গুটেনব্যার্গ (ফাইল ফটো)

তবে তিনি চান, আফগানিস্তানের যেসব এলাকায় তালেবান বিদ্রোহীরা এখনও কর্তৃত্ব বজায় রাখছে, সেইসব এলাকাকে এমন রূপ দিতে হবে যাতে সেখানে আফগান রাষ্ট্রের কর্তৃত্ব বজায় থাকে৷

সামাজিক গণতন্ত্রীদের সংসদীয় দলের প্রধান, প্রাক্তন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ফ্রাংক-ভাল্টার স্টাইনমায়ারও তড়িঘড়ি আফগানিস্তান থেকে সরে আসার বিরোধী৷

জার্মান টেলিভিশন এআরডি'র শুক্রবারের এক জনমত জরিপের ফল থেকে দেখা যাচ্ছে, জার্মানদের ৭০ শতাংশই আফগানিস্তান থেকে জার্মান সৈন্যদের দ্রুত সরিয়ে আনার পক্ষে মত দিয়েছে৷

২০০১ সাল থেকে জার্মান সৈনিকদের মিশন চলছে আফগানিস্তানে৷ তখন থেকে এ পর্যন্ত ৪৩ জন সৈন্য সেখানে মারা গেছে৷ বৃহস্পতিবার জঙ্গি হামলায় যে চারজন নিহত হলেন রবিবার তাঁদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে মাজার-ই শরীফে জার্মান বাহিনীর ঘাঁটিতে শোকসভা হবে৷ আহত পাঁচ সৈন্যকে চিকিৎসার জন্য জার্মানিতে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে৷ শুক্রবারই খোদ জার্মান প্রতিরক্ষামন্ত্রী কার্ল-থেয়োডর সু গুটেনব্যার্গ দেশে ফিরছেন তাঁদের নিয়েই৷

নিহত জার্মান সৈনিকদের সংখ্যা বাড়তে থাকায় বিরোধী লিংকসপার্টাই এই মিশনের বিরোধিতা করছে পুরোপুরি৷ বিরোধী সবুজ দলের সংসদীয় গোষ্ঠীর প্রধান ইউর্গেন ট্রিটিন চান, এই মিশনের জন্য সৈন্যরা আদৌ কতটা প্রস্তুত সেটা নতুন করে খতিয়ে দেখা হোক৷

প্রতিবেদক: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক

সম্পাদনা: সঞ্জীব বর্মন

সংশ্লিষ্ট বিষয়