1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

আফগানিস্তানে অপহৃত প্রিন্স হ্যারি!

ব্রিটেনের প্রিন্স হ্যারি আফগানিস্তানে অপহৃত হয়েছেন! না খবরটা সত্য নয়৷ মিথ্যা৷ কিন্তু যদি হতেন তাহলে কি হতো? এর উপরই একটি প্রামাণ্য নাটক তৈরি করেছে ব্রিটিশ টেলিভিশন চ্যানেল ফোর৷ আগামী বৃহস্পতিবার প্রচারিত হবে এটি৷

default

আফগানিস্তানে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর অংশ হিসেবে প্রিন্স হ্যারি

এখন পর্যন্ত এটাই ঠিকঠাক দিনক্ষণ৷ ঠিকঠাক বলছি এই জন্য যে, এই নাটকের প্রচার বন্ধের জন্য চ্যানেলের চেয়ারম্যান লর্ড টেরি বার্নসকে চিঠি দিয়েছেন স্বয়ং ব্রিটিশ বিমান বাহিনীর প্রধান স্যার জক স্টিরাপ৷

ব্রিটিশ রাজ সিংহাসনের তৃতীয় উত্তরাধিকারী প্রিন্স হ্যারি৷ জনপ্রিয়তার তুঙ্গে আছেন৷ তিনি যা করেন তাই যেন খবর! সেনা প্রশিক্ষণ নিয়েছেন, আফগানিস্তানে মোতায়েন ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ছিলেন৷ আরও কত কী! এ সব কিছু বিবেচনা করেই নির্মিত ‘দ্য টেকিং অব প্রিন্স হ্যারি'৷ ২৬ বছর বয়স্ক প্রিন্স হ্যারি আফগানিস্তানে ব্রিটিশ সেনাবাহিনীর সঙ্গে দশ সপ্তাহ কাজ করেছেন৷ এরপর পত্র-পত্রিকায় ব্যাপক লেখালেখির ফলে ২০০৮ সালের ফেব্রুয়ারিতে তাঁকে নিরাপত্তার কারণে ব্রিটেনে ফিরিয়ে আনা হয়৷ সেনাবাহিনীতে হ্যারি পরিচিত লে.ওয়েলস নামে৷ তিনি প্রশিক্ষণ নিয়েছেন৷সেনা হেলিকপ্টারও চালাতে পারেন৷ চালিয়েছেন যুদ্ধ বিমানও৷

চ্যানেল ফোর-এর ৯০ মিনিটের প্রামাণ্য চিত্রে দেখানো হচ্ছে, আফগানিস্তানে কর্মরত প্রিন্স হ্যারি জঙ্গিদের হাতে আটক হয়েছেন৷ তিনি পণবন্দি৷ তাঁকে মুক্ত করতে আলোচনা চলছে৷ পাশাপাশি সেনা অপরেশন৷ এছাড়া রয়েছে আরও অনেক নাটকীয় বিষয়৷ রয়েছে ব্রিটিশ বংশোদ্ভূত এক জঙ্গির সঙ্গে হ্যারির কথাবার্তা৷ পুরোটাই নাটক৷

সেনা বিভাগের এক মুখপাত্র বিমান বাহিনীর প্রধানের লেখা চিঠির কথা স্বীকার করেছেন৷ তবে তিনি বলেছেন, এখনি এই বিষয়ে কোন মন্তব্য করা ঠিক হবে না৷

প্রতিবেদন: সাগর সরওয়ার

সম্পাদনা: আব্দুল্লাহ আল-ফারূক