1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

বিশ্ব

আফগানদের মধ্যে নিরাপত্তাহীনতার কারণে বাড়ছে হতাশা

সাম্প্রতিক এক জরিপে দেখা গেছে, আফগানরা মনে করেন ১০ বছর আগের তুলনায় দেশটি এখন ভুল পথে চলেছে৷ এছাড়া জরিপে নিজেদের হতাশার কারণ হিসেবে নিরাপত্তাহীনতা, দুর্নীতি, বেকারত্ব ও অর্থনীতির বেহাল অবস্থাকে দায়ী করেছেন তাঁরা৷

১৮ই নভেম্বর এশিয়া ফাউন্ডেশনে পুরো দেশের মানুষের ওপর চালানো এ মতামত জরিপ প্রকাশিত হয়৷ গতবছর একই ধরনের জরিপে আফগানদের ৫৭.২ শতাংশ মনে করতেন দেশ ঠিক পথে চলছে৷ ৩৭.৯ শতাংশ মনে করতেন ঠিক পথে চলছে না৷ বর্তমানে সেখানে ৫৪.৭ শতাংশ আফগান মনে করেন যে, দেশ ঠিক পথে চলছে৷ আর ৪০.৪ শতাংশ মানুষ ঠিক অন্য কথা ভাবেন৷

‘আফগানিস্তান ইন ২০১৪: আ সার্ভে অফ দ্য আফগান পিপল' শিরোনামে একটি জন সমীক্ষায় দেখা যায়, সেদেশের মানুষের হতাশার প্রধান কারণ নিরাপত্তাহীনতা (৩৮ শতাংশ), দুর্নীতি (২৪ শতাংশ), বেকারত্ব (২৩ শতাংশ), বাজে অর্থনীতি (১০ শতাংশ) এবং নির্বাচনে জালিয়াতি (৯ শতাংশ)৷

রিপোর্টটটি এমন সময় প্রকাশ হলো যখন বিদেশি সেনারা আফগানিস্তান ছাড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে৷ সম্প্রতি কয়েক সপ্তাহে আফগানিস্তানে জঙ্গি হামলার ঘটনা বেড়েছে৷ এছাড়া সেপ্টেম্বর মাসে নতুন জোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর, ক্ষমতা ভাগাভাগির চাপে আরো অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরি হয়েছে৷

আফগানিস্তানের এশিয়া ফাউন্ডেশনের বর্তমান কর্ণধার আব্দুল্লাহ আহমাদজাই বলেছেন, ‘‘নির্বাচনের সময় থেকে অনেক উন্নয়ন প্রকল্পে ধীরগতি এসেছে৷ এর ফলে দেশের মানুষের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে৷''

জরিপে আরো দেখা গেছে দেশের নিরাপত্তাবাহিনীর প্রতি ৭০ শতাংশ মানুষের আস্থা রয়েছে৷ ৫৪ শতাংশ মানুষ মনে করেন, বিদেশি সেনাদের দ্বারা এদের প্রশিক্ষণ দরকার৷ তবে এবারের জরিপে উল্লেখ করার মতো বিষয় হলো অর্থনীতি নিয়ে মানুষের মতামত৷ দেশের মানুষ দুর্নীতিকে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থার পতনের অন্যতম কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন৷

এছাড়া মুখোমুখি প্রশ্ন উত্তরে বেশিরভাগ মানুষ জানিয়েছেন জঙ্গিবাদের উত্থানের কারণে পরিবারের নিরাপত্তা নিয়ে আশঙ্কায় ভুগছেন তাঁরা৷ কেননা আগে কেবল উত্তর পশ্চিমাঞ্চলের তালেবানের ঘাঁটি থাকলেও বর্তমানে দক্ষিণ পূর্বেও জঙ্গিবাদ ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে৷

তবে বিশেষজ্ঞদের অভিমত, এতটা হতাশ হওয়ার কিছু নেই৷ এর কারণ হিসেবে তাঁরা কিছু পরিবর্তনের কথা উল্লেখ করেছেন৷ তাঁরা বলছেন, ‘‘প্রেসিডেন্ট আশরাফ গনি গত দু'মাসে যেসব সংস্কার করেছেন, তাতে আফগানরা আশার আলো দেখতেই পারে৷ এছাড়া দুর্নীতির বিরুদ্ধে এরই মধ্যে তিনি কিছু শক্ত পদক্ষেপ নিয়েছেন, যা প্রশংসার দাবি রাখে৷''

নির্বাচিত প্রতিবেদন