1. Inhalt
  2. Navigation
  3. Weitere Inhalte
  4. Metanavigation
  5. Suche
  6. Choose from 30 Languages

সমাজ সংস্কৃতি

আন্দ্রেয়া ভিলান্ড : এক মহিলা পুলিশ অফিসারের জবানি

জার্মানিতে পুলিশের চাকরি কেমন ? জনমনে পুলিশ সম্পর্কে ধারণাই বা কেমন ? এ নিয়েই কোলনের হোমিসাইড বিভাগ বা নরহত্যার তদন্তকারী বিভাগের পুলিশ অফিসার আন্দ্রেয়া ভিলান্ড৷

default

জার্মানির এক মহিলা পুলিশ

কতদিন ধরে তিনি পুলিশ হিসেবে কাজ করছেন ? কেন এ পেশাটি বেছে নিলেন তিনি ?

‘‘১৯৮৫ সালে আমি পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেই৷ ১৯৮৩ সাল থেকে জার্মানির নর্থরাইন ওয়েস্টফেলিয়া রাজ্যে মেয়েদের পুলিশ বাহিনীতে নিয়োগ শুরু হয়৷ এর আগে শুধু পুরুষরাই এই পেশায় কাজ করতে পারতো৷ বিশেষ করে নিরাপত্তা রক্ষার বিভাগে৷ আমি সেখান থেকেই শুরু করি৷ রাস্তায় আমার ডিউটি ছিল, সম্পূর্ণ ইউনিফর্ম পরে৷ এরপর ১৯৯২ সাল থেকে অপরাধ দমন বিভাগে আমাকে নিয়োগ দেয়া হয়৷ আমি পুলিশ হয়েছি অনেকটা পরিকল্পনা ছাড়াই৷ আমি পুলিশ বাহিনীতে যোগ দেয়ার মাত্র দু'বছর আগেই মেয়েদের নিয়োগ শুরু হয়৷ আমার খুব ভাল এক বান্ধবী আমার একবছর আগে যোগ দেয়৷ সেই আমাকে বিভিন্ন কাজ, ট্রেনিং সম্পর্কে জানায়৷ আমি নিজেও এ নিয়ে বিভিন্ন লিফলেট দেখতে থাকি৷ তখন আমি আবেদনের সিদ্ধান্ত নেই৷ পরীক্ষায় টিকে যাই৷ আমাকে নেয়া হয়৷''

জার্মানিতে একজন পুলিশ হিসেবে কাজ করা কি খুব সম্মানজনক ?

‘‘এই পেশাকে অন্য সব পেশার মতই দেখা হয়৷ তবে গত কয়েক বছরে আমাদের কাজের ধরণে কিছুটা পরিবর্তন এসেছে৷ আমাদের এখন প্রায়ই সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলতে হয়, তাদের অনেক প্রশ্ন থাকে, সেসব বোঝাতে হয়৷ এর সঙ্গে এটাও বলতে হচ্ছে যে, বিগত বছরগুলোতে পুলিশের ওপর আক্রমণের মাত্রাও অনেক বেড়েছে৷ উত্তর হিসেবে বলা যেতে পারে যে সামাজিক অবস্থান এক্ষেত্রে একটি বিষয়৷ এছাড়া মানুষের সহ্যশক্তি অনেক কমে গেছে৷ তারা অল্পতেই উত্তেজিত হয়ে উঠে৷ পুলিশ দেখলে সেটা আরো মাথা চাড়া দিয়ে ওঠে৷ এর সঙ্গে রয়েছে মাদক এবং অন্যান্য ধরণের অপরাধমূলক কাজকর্ম৷''

একজন পুলিশকে জার্মান সমাজ কি ভাবে দেখে ?

‘‘আমার জন্য তেমন কোন পরিবর্তন হয়নি৷ বিশেষ কিছু হয়েছে বলে আমি মনে করি না৷ আমি যেভাবে কাজ করতাম এখন সেভাবেই কাজ করি৷ আমার ব্যক্তিগত জীবনে সবার সাহায্য এবং সহযোগিতা আমি পেয়েছি৷ আমি যেন আরো ভালভাবে কাজ করতে পারি সবাই সেটাই চায়৷ পুলিশরা তাদের কাজকর্মে আরো সক্রিয় হোক৷ তবে হঠাৎ করেই আমাকে বিভিন্ন জায়গায় চলে যেতে হয় - সেটা বোধ করি সব পেশাতেই রয়েছে৷ আলাদা করে কোন বিশেষত্ব নেই৷''

গত দশ বছরে অপরাধের মাত্রা কি বেড়েছে ? বাড়লে কতটা ?

‘‘আমরা দেখেছি যে খুব অল্প হলেও অপরাধমূলক কাজকর্ম আগের চেয়ে অনেক বেশি বেড়েছে৷ আগেই বলেছি এর একটি প্রমাণ, পুলিশের ওপর অতর্কিত হামলা হচ্ছে৷ ইদানিং শারীরিকভাবে আঘাতের ঘটনা ঘটছে অনেক বেশি যা আগে দেখা যেত না৷ কোন কারণ ছাড়া হামলা এছাড়া নিরাপত্তা আর আগের মত নেই৷ নিরাপত্তার অবনতি ঘটেছে৷ অ্যালকোহল এবং অনান্য মাদকে আসক্তি বেড়েছে মানুষের৷ সেটা পথে ঘাটেই ইদানিং দেখা যায়৷ এর সঙ্গে রয়েছে মানুষের সহ্যশক্তি৷ সেটা অনেক কমেছে৷''

প্রতিবেদক : মারিনা জোয়ারদার

সম্পাদক : আবদুল্লাহ আল-ফারূক

সংশ্লিষ্ট বিষয়